চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১

সর্বশেষ:

১৩ এপ্রিল, ২০২১ | ১:১৬ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

চবির ভর্তি পরীক্ষায় যেসব বিষয় জানা দরকার

চট্টগ্রাম শহর থেকে ২২ কিলোমিটার দূরে হাটহাজারী উপজেলার জোবরা গ্রামে অবস্থিত দেশের অন্যতম সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি)। হাজারো শিক্ষার্থীর স্বপ্ন এ বিশ্ববিদ্যালয়কে ঘিরে। সবুজে ঘেরা পাহাড়ের বুক চিরে এ বিশ্ববিদ্যালয় দেখলে যে কারোই মনভরে যায়। তাইতো প্রতিবছর ক্যাম্পাসে একঝাঁক তরুণ-তরুণী তাদের স্বপ্নকে সত্যি করতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।

করোনা মহামারির মধ্যে এবারের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ (সম্মান) ভর্তি পরীক্ষার অনলাইন আবেদন শুরু হয়েছে। যা শেষ হবে চলতি মাসের ৩০ এপ্রিল রাত ১২টায়।

যারা আবেদন করতে পারবেন :

এবার অনিয়মিত (মানোন্নয়ন দেওয়া) শিক্ষার্থীদের আবেদন করার সুযোগ থাকছে না। শুধুমাত্র যারা ২০১৮ সালে মাধ্যমিক ও ২০২০ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে তারাই ভর্তি পরীক্ষার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের যোগ্যতা :

এবার প্রতিটি ইউনিটেই আবেদনের ন্যূনতম জিপিএ শূন্য দশমিক ৫০ বাড়ানো হয়েছে। বি ইউনিটের অধীনে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীদের মোট জিপিএ ৮.০০ এবং প্রতিটিতে নূন্যতম জিপিএ ৩.২৫; মানবিক শাখার শিক্ষার্থীদের মোট জিপিএ ৭.৫ এবং প্রতিটিতে নূন্যতম জিপিএ ২.৭৫; ব্যবসায় শিক্ষা শাখার সর্বনিম্ন দুটিতে মোট জিপিএ ৮ এবং প্রতিটিতে নূন্যতম জিপিএ ৩.২৫ অর্জন করতে হবে।

বি১ উপ-ইউনিটের অধীনে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদ অধিভুক্ত চারুকলা ইনিস্টিউট, নাট্যকলা এবং সঙ্গীত বিভাগের ভর্তি পরীক্ষার আবেদনের জন্যও একই যোগ্যতা নির্ধারণ করা হয়েছে।

ডি ইউনিটের অধীনে সমাজবিজ্ঞান অনুষদ, আইন অনুষদ, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ (আংশিক) ও জীববিজ্ঞান অনুষদের দুটি বিভাগের (আংশিক) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এই ইউনিটে আবেদনের যোগ্যতা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে সর্বনিম্ন জিপিএ ৭.৫০ এবং প্রতিটিতে নূন্যতম জিপিএ ৩.৫০ নির্ধারণ করা হয়েছে।

এ ইউনিটের অধীনে বিজ্ঞান অনুষদ, জীববিজ্ঞান অনুষদ, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ এবং সমুদ্রবিজ্ঞান ও মৎস্যবিদ্যা অনুষদের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এই ইউনিটে আবেদনের যোগ্যতা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে সর্বনিম্ন জিপিএ ৮.০০ এবং প্রতিটিতে আলাদাভাবে জিপিএ ৪ নির্ধারণ করা হয়েছে।

সি ইউনিটের অধীনে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের যোগ্যতা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে সর্বনিম্ন জিপিএ ৮.০০ এবং প্রতিটিতে আলাদাভাবে জিপিএ ৪ নির্ধারণ করা হয়েছে।

ডি১ উপ-ইউনিটের অধীনে শিক্ষা অনুষদের ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের যোগ্যতা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে সর্বনিম্ন জিপিএ ৭.৫ এবং প্রতিটিতে আলাদাভাবে জিপিএ ৩.৫ নির্ধারণ করা হয়েছে।

পরীক্ষা পদ্ধতি :

ভর্তি পরীক্ষা বরাবরের মতোই ১২০ নম্বরে অনুষ্ঠিত হবে। বহুনির্বাচনী পদ্ধতিতে ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বাকি ২০ নম্বর এসএসসি ও এইচএসসির জিপিএ থেকে যুক্ত হবে। প্রতি ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর কাটা যাবে। পরীক্ষায় নূন্যতম পাস নম্বর হবে ৪০।

আবেদন ফি :

এবারের ভর্তি পরীক্ষায় ইউনিট/উপ-ইউনিটে আবেদন ফি গতবারের মতো ৫৭৫ টাকা ও আবেদন প্রসেসিং ফি ৭৫ টাকাসহ সর্বমোট ৬৫০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। আবেদন ফি বিকাশ, রকেট ও শিওর ক্যাশের মাধ্যমে দেওয়া যাবে। আবেদন শেষে টাকা জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২ মে রাত ১১. ৫৯ মিনিট পর্যন্ত।

ভর্তি পরীক্ষার সময়সূচি :

এবারের ভর্তি পরীক্ষা স্বাস্থ্যবিধি মেনে সশরীরে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হবে। ক্যাম্পাসে ২২ হাজার শিক্ষার্থী বসার মতো আসন রয়েছে। এক্ষেত্রে আবেদনকারীর সংখ্যা বিবেচনা করে ১৫ হাজার করে কয়েক শিফটে পরীক্ষা নেওয়া হবে। ২২ ও ২৩ জুন বি ইউনিট, ২৪ ও ২৫ জুন ডি ইউনিট, ২৮ ও ২৯ জুন এ ইউনিট ও ৩০ জুন সি ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া ১ জুলাই উপ-ইউনিট বি-১ ও ডি-১ এর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

আসন সংখ্যা :

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪৮টি বিভাগ ও ৬টি ইনস্টিটিউট রয়েছে। এতে ৪ হাজার ৯২৬টি আসন রয়েছে। এর মধ্যে এ ইউনিটে আসন রয়েছে ১ হাজার ২১৪টি, বি ইউনিটে ১ হাজার ২২১টি, সি ইউনিটে ৪৪২টি, ডি ইউনিটে ১ হাজার ১৫৭টি। উপ-ইউনিটের মধ্যে বি১ ইউনিটে ১২৫টি ও ডি১ ইউনিটে ৩০টি আসন রয়েছে। এ ছাড়াও ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (https://admission.cu.ac.bd) পাওয়া যাবে।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 501 People

সম্পর্কিত পোস্ট