চট্টগ্রাম বুধবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২১

সর্বশেষ:

৭ এপ্রিল, ২০২১ | ১:০৬ অপরাহ্ণ

মোস্তফা মোহাম্মদ এমরান

অবহেলায় শহীদ স্মৃতিফলক কোর্টবিল্ডিং চত্বর

চট্টগ্রাম কোর্টবিল্ডিং এলাকার জেলা প্রশাসন ভবনের ঠিক উল্টো পাশে একটি স্মৃতি ফলক। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে তৈরি ফলকটিতে রয়েছে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাগণের নামের তালিকা। তাঁরা হানাদার বাহিনীর হাতে শহীদ হয়েছিলেন।

স্মৃতিস্তম্ভের শিরোনামে লেখা রয়েছে, ১৯৭১ এর মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে চট্টগ্রাম জেলায় শহীদ মুক্তিযোদ্ধাগণ। তার নিচে লেখা ‘আমরা তোমাদের ভুলব না। তার নিচে শহীদদের নামের তালিকা। ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস ও ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে এখানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শহীদদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা হলে বছরের বাকি সময় এ স্মৃতিফলকটি থাকে অরক্ষিত। উপযুক্ত সম্মান প্রদর্শন বা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার বালাই নেই স্মৃতিফলকটিকে ঘিরে। অসচেতন কতিপয় মানুষ স্মৃতিফলকের পবিত্রতা নষ্ট কওে যাচ্ছে। বেদিতে বসে ধূমপান ও আড্ডা দিতেও দেখা যায়। শুধু তাই নয়, স্মৃতিফলকের পাশে পড়ে রয়েছে ভাঙাচোরা দুটি গাড়ি। ফলকের মাত্র কয়েক ফুটের মধ্যে রাখা সাদা ও নীল রঙের এ দুটি গাড়ি হয়তো কোনো মামলার আলামত।

জানা গেছে, গাড়ি দুটি চট্টগ্রাম চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেসির (সিজেএম) মালখানা থেকে রাখা হয়েছে। এ গাড়িগুলো শহীদ ফলকের পবিত্রতা যেমন নষ্ট করছে তেমনি কোর্ট বিল্ডিংসহ এ এলাকার চরম সৌন্দর্যহানি ঘটাচ্ছে। জানতে চাইলে জেলা কোর্ট ইন্সপেক্টর হুমায়ুন কবির পূর্বকোণকে বলেন, এটি আদালতের বিষয়। এ ব্যাপারে আমি কোন বক্তব্য দিতে পারব না। সিজেএম মালখানার ইনচার্জ নিজাম উদ্দিনের মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি ফোন ধরেননি।

মালখানার দায়িত্বে থাকা আমিনুল ইসলাম পূর্বকোণের কাছে গাড়ি দুটো ওই মালখানার বলে স্বীকার করেন। তবে কোনো মামলার আলামত তা তাৎক্ষণিক জানাতে পারেননি। এডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী পূর্বকোণকে বলেন, চট্টগ্রামে হানাদার বাহিনীর হাতে শহীদ ও সম্মুখযুদ্ধে শহীদগণের নামের তালিকা সম্বলিত এ স্মৃতিফলকটি রক্ষণাবেক্ষণ এবং শহীদদের যথাযথ সম্মান প্রদর্শনের জন্য ফলকটির পবিত্রতা রক্ষা করা আমাদের সকলের নৈতিক দায়িত্ব। ফলকটিকে পরিচ্ছন্ন রাখা ও উপযুক্ত সম্মান প্রদর্শনের পদক্ষেপ নেয়ার জন্য তিনি পূর্বকোণের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি অনুরোধ করেন।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 129 People

সম্পর্কিত পোস্ট