চট্টগ্রাম সোমবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২১

সর্বশেষ:

২৪ জুন, ২০১৯ | ১:০৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, চন্দনাইশ

নগর বিএনপি সভাপতির বিরুদ্ধে মামলা

চন্দনাইশে দু’ গ্রুপে চাপা উত্তেজনা

মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, নগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী সিরাজসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি, পৌর বিএনপি’র সাবেক আহ্বায়ক চেয়ারম্যান নুরুল আনোয়ার চৌধুরী। দু’জনই চন্দনাইশের নাগরিক হওয়ায় চন্দনাইশ বিএনপিতে এর প্রভাব পড়েছে। গত দু’দিন ধরে চন্দনাইশ পৌর এলাকায় দু’জনের সমর্থকদের মধ্যে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে।
বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, গত ১৮ জুন বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীমের সাথে চন্দনাইশ উপজেলা ও পৌর বিএনপি’র নেতৃবৃন্দের সাংগঠনিক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় চন্দনাইশ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন নিয়ে মহানগর বিএনপি সভাপতির হস্তক্ষেপের বিষয়টি তুলে ধরে বক্তব্য দেন নুরুল আনোয়ার চৌধুরীসহ কয়েকজন নেতা। বিষয়টি জানতে পেরে নগর বিএনপি’র সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন গত ১৯ জুন দুপুরে নুরুল আনোয়ার চৌধুরীর সাথে মোবাইলে কথা বলেন। এ সময় উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরবর্তীতে একই দিন বিকালে লালদিঘির পাড়ে বৈঠকের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু বিকালে ছাত্রদল, যুবদলের একটি গ্রুপ নুরুল আনোয়ার চৌধুরীর নগরীর বাকলিয়াস্থ বাসায় হামলা চালায়। এ সময় তার বাসার দরজা ও জানালার কাঁচ ভাঙচুর করে বলে নুরুল আনোয়ার চৌধুরী অভিযোগ করেন। এ ব্যাপারে ঐদিন রাতেই নুরুল আনোয়ার চৌধুরী বাদি হয়ে মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, নগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী সিরাজসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। বিষয়টি নিয়ে চন্দনাইশ বিএনপি বিভক্ত হয়ে পৃথক পৃথক কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে চন্দনাইশ সদর এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছিল। গত ২১ জুন বিকালে চন্দনাইশ পৌর এলাকায় নুরুল আনোয়ারের সমর্থকেরা প্রতিবাদ কর্মসূচি নিলে সংবাদ পেয়ে ডা. শাহাদাত হোসেনের সমর্থকেরা চন্দনাইশ সদর এলাকায় অবস্থান নেয়। এতে কোন ধরনের কর্মসূচি পালন করতে পারেনি কোন পক্ষই। সেই থেকে গত ২২ জুন পর্যন্ত উভয়পক্ষের সমর্থকেরা বিক্ষিপ্তভাবে মিলিত হওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। তবে পক্ষদ্বয়ের মধ্যে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে। এদিকে নুরুল আনোয়ার চৌধুরীর বাসায় হামলার কথা অস্বীকার করে মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, তিনি একজন উগ্র মেজাজের মানুষ। এলাকার কিছু লোকের সাথে তার কথা কাটাকাটির কারণে এলাকার ছেলেরাই এ ঘটনা ঘটাতে পারে। তিনি সারাদিন মামলা সংক্রান্ত ব্যাপারে আদালতেই ছিলেন বলে জানান। তিনি বলেন, নুরুল আনোয়ার চৌধুরী বিরোধী দলের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থাকলেও সরকারি দলের সাথে লিঁয়াজো করে অদ্যাবধি কোন মামলার আসামি হননি।
মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি এডভোকেট মিজানুল হক চৌধুরীর সমর্থনে একটি গ্রুপ, কেন্দ্রীয় বিএনপি’র পরিকল্পনাবিষয়ক সম্পাদক ডা. মহসিন জিল্লুর করিমের সমর্থনে অপর একটি গ্রুপ, বিএনপি’র সাবেক সভাপতি এডভোকেট নুরুল ইসলাম, নুরুল আনোয়ার চৌধুরীসহ কয়েকজন নেতৃবৃন্দ নিয়ে আরেকটি গ্রুপ চন্দনাইশের মাঠে ময়দানে রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করতে দেখা যায়। হঠাৎ করে ডা. শাহাদাত হোসেনের বিরুদ্ধে চান্দগাঁও থানায় মামলা হওয়ার পর চন্দনাইশ বিএনপির গ্রুপিংয়ের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনার কারণে পূর্ব থেকে নির্ধারিত গত ২১ জুন ডা. মহসিনের সমর্থকদের নিয়ে বরকল আমরা কমিউনিটি হাসপাতালে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 369 People

সম্পর্কিত পোস্ট