চট্টগ্রাম বুধবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২১

সর্বশেষ:

৯ মার্চ, ২০২১ | ২:২৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক 

অক্সিজেন মোড়ের হোটেল: নোংরা পরিবেশ, উন্মুক্ত খাবার

উত্তর চট্টগ্রামের গুরুত্বপূর্ণ অক্সিজেন মোড়। যে মোড় দিয়ে ঘণ্টায় যাতায়াত করে শত শত গাড়ি। বর্তমানে এই মোড়ে জলাবদ্ধতা প্রকল্পের কালভার্ট নির্মাণের কাজ করছে সেনাবাহিনী। ফলে ধূলাবালিতে একাকার। এ এলাকায় খোলা পরিবেশে তৈরি হচ্ছে হোটেলের খাবার। খোলামেলাভাবে সেই খাবার খাচ্ছেন ভোক্তারা। এমনই নোংরা ও খোলা পরিবেশে খাবার তৈরি করে বিক্রি করছে অক্সিজেন মোড় এলাকার মক্কা খাজা হোটেল নামের রেস্টুরেন্ট।

সরেজমিনে দেখা যায় সড়কের পাশে অবস্থিত হোটেলের বাইরের অংশে যেনতেনভাবে অপরিষ্কার পরিবেশে খাবার তৈরি করছে তিনজন হোটেল শ্রমিক। কয়েকটা গামলায় ঢাকনা ছাড়াই ফেলে রাখা হয়েছে কাঁচা সবজিগুলো। আরেকটা গামলায় রেখেছে আটা। একটা টিনের জারে কিছু খোলা তেল। এক পাচক অপরিষ্কার হাতে তৈরি করছেন সিঙ্গারা ও সমুচা। অপর এক কারিগর পরটা তৈরি করে দিচ্ছেন। আরেকজন সেই পরটা তেলে ভাজছেন। এ খাবারই পরিবেশন করা হচ্ছে কাস্টমারদের।

এ বিষয়ে হোটেলের এক কর্মচারীর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, এ এলাকায় শ্রমিক শ্রেণীর লোক বেশি হওয়ায় কাজের চাপ বেশি। তিনি দাবি করেন মানুষ বেশি হলেও আমরা পরিষ্কার পরিচ্ছন্নভাবে খাবার তৈরি করি। যদিও এ কথার কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি।

ক্যাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন বলেন, ব্যবসায়ীরা টাকার নেশায় অন্ধ হয়ে আছে। তাই এমন নোংরা পরিবেশে খাবার তৈরি করে বিক্রি করতেও তাদের বাধছে না। এমনিতেই আমাদের দেশের খাদ্যাভ্যাসের অবস্থা খুবই করুণ। সবকিছুতেই ভেজাল আর ভেজাল। পোড়া পাম অয়েল দিয়ে তৈরি হচ্ছে খাবার। যা মানুষকে শারীরিকভাবে অসুস্থ করার জন্য যথেষ্ট। মানুষ টাকা দিয়ে মৃত্যু কিনছে। এরা মানুষকে খাবারের মাধ্যমে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। করোনা পরিস্থিতিতে এমন পরিবেশে তৈরি করা খাবার শরীরের জন্য খুবই বিপদজনক। প্রশাসনকে আরো অনেক বেশি সচেতন হতে হবে। এসব হোটেলগুলোতে প্রশাসনের অভিযান পরিচালনা করা দরকার। এদের শুধু জরিমানা করেই শেষ করলে হবে না। খাবারের মাধ্যমে মানুষকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়ার কারণে জেলও হওয়া দরকার।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম ডায়াবেটিস জেনারেল হাসপাতালের পুষ্টিবিদ হাসিনা আকতার লিপি বলেন, খুব কম মানুষই জানে এসব খাবার কতটা ভয়ঙ্কর। খোলা খাবারে প্রচুর জীবাণু থাকে যা খুব সহজেই ডায়রিয়া, আমাশয়, টাইফয়েড, জন্ডিসে আক্রান্ত হতে পারে মানুষ। এ ধরনের খাবার খেলে পেটের সমস্যাসহ নানা রোগ দেখা দিতে পারে। তেলে ভাজা সমুচা, পাকোড়া ইত্যাদি মোটেই খাওয়া উচিত নয়। কারণ এতে ব্যবহৃত তেলসহ উপাদানগুলো বাসি থাকায় গ্যাসের সমস্যা হয়। এছাড়া এসব খাবারে সংক্রমণের ঝুঁকিও অনেক বেশি থাকে।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 222 People

সম্পর্কিত পোস্ট