চট্টগ্রাম রবিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২১

সর্বশেষ:

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ | ১২:৩৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক 

ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস আজ

চট্টগ্রাম ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতালে দৈনিক ৮শ জন রোগীকে চিকিৎসাসেবা দেয়া হয়। তাদের সবাইকে ডায়াবেটিস রোগ নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে চিকিৎসাসেবার পাশাপাশি সচেতনতামূলক পরামর্শ দেয়া হয়। এই হিসাবে বছরে প্রায় ২৯ হাজার রোগীকে সচেতন করা হলেও বছর শেষে দেখা গেছে মাত্র ৩০ জন রোগী তা পালন করে ডায়াবেটিক নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হয়েছেন। ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস উপলক্ষে গতকাল শনিবার চট্টগ্রাম ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতালের এসিস্টেন্ট ডাইরেক্টর পুষ্টিবিদ হাসিনা আক্তার লিপি এ তথ্য জানিয়েছেন।

আজ রবিবার জাতীয় ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস। অন্যান্যবারের মতো এবারও চট্টগ্রামে দিবসটি পালন করা হচ্ছে। এবারের দিবসটির প্রতিপাদ্য হলো ‘কোভিড ও ডায়াবেটিস প্রতিরোধে বাঁচবে জীবন’। বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া রোগীদের  মধ্যে প্রায় ৬০ ভাগ রোগীই আগে থেকে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ছিল। তাই সচেতনতার অংশ হিসেবে এবছরের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।  চট্টগ্রামে প্রতিদিনই ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। অনিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভ্যাসের কারণে এ রোগ থেকে রেহাই পাচ্ছে না শিশুরাও। যেভাবে রোগটি বাড়ছে সেইভাবে মানুষের মধ্যে বাড়ছে না সচেতনতা।

যদিও এ বিষয়ে তেমন কোন তথ্য-উপাত্ত না থাকলেও চট্টগ্রামের চিকিৎসকদের ধারণা, এ অঞ্চলে প্রতিদিন নতুন করে শনাক্ত হচ্ছেন গড়ে ১২৫ জন ও চট্টগ্রামে ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা চার লাখেরও বেশি। এমনটাই জানালেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডায়াবেটিস ও হরমোন রোগ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান ডা. ফারহানা আক্তার। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে প্রতি ১০ জন মানুষের মধ্যে ১জন ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। প্রতি ২ জনের মধ্যে ১ জন জানেনই না তার ডায়াবেটিস আছে। শারীরিক যেকোনো রোগ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ৫ জন রোগীর মধ্যে ৩ জনেরই ডায়াবেটিস ধরা পড়ে। যা অধিকাংশ রোগীই জানেন না।

এছাড়া ষাটভাগ রোগীরই প্রতিমাসে তিনদিন ডায়াবেটিস অনিয়ন্ত্রিত থাকে। ওষুধ খাওয়ার প্রবণতা সবচেয়ে কম গৃহিণীদের মাঝে। অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিসের হারও গৃহিণীদের মাঝে সবচেয়ে বেশি। এসব তথ্য নিয়ে আমরা একটি গবেষণা করেছি। আড়াই বছরের গবেষণায় প্রথম পর্যায়ের ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে যুক্তরাজ্যের টেইলর এন্ড ফ্রান্সিস গ্রুপ থেকে প্রকাশিত সুইডেনের উমিয়া ইউনিভার্সিটির যৌথ নিবন্ধ ‘গ্লোবাল হেল্ধসঢ়;থ একশন’ নামের একটি প্রকাশনায়। ডায়াবেটিস রোগের বিষয় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে আমরা বিভিন্ন সময়ে রোগীদের নিয়ে সচেতনতামূলক কর্মকা- পালন করছি। এ প্রোগ্রামগুলোতে রোগীদের ডায়াবেটিস শিক্ষার পাশাপাশি, ইনসুলিন নেয়ার সঠিক নিয়ম, গর্ভবতী মায়েদের ডায়াবেটিস বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক বিভিন্ন অনুষ্ঠান করি।

হাসিনা আক্তার লিপি আরো বলেন, ডায়াবেটিস সারাজীবনের রোগ। এরোগ থেকে পুরোপুরি মুক্তি না মিললেও কিন্তু ডাক্তারের পরামর্শ মেনে ওষুধ সেবন ও সঠিক পদ্ধতিতে খাদ্যাভ্যাস করা, নিয়মিত হাঁটাচলা করলে এ রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। শরীরের ওজন কমাতে হবে। মানুষের মধ্যে ভুল ধারণাগুলো দূর করতে হবে। একেবারে সব খাবার না খেয়ে অল্প করে দিনে পাঁচ-ছয়বার করে খাবার খাওয়া উচিৎ। এভাবে নিয়ম মেনে চলছে এ রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
  • 21
    Shares
The Post Viewed By: 301 People

সম্পর্কিত পোস্ট