চট্টগ্রাম সোমবার, ০১ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ | ১:৩৩ অপরাহ্ণ

মোহাম্মদ আলী

চট্টগ্রাম ওয়াসা: বেড়েছে প্রকল্প বাড়েনি জনবল

চট্টগ্রাম ওয়াসার উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (ডিএমডি) পদ রয়েছে তিনটি। এর মধ্যে উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক (প্রশাসন) পদে দায়িত্ব পালন করছেন তাহেরা ফেরদৌস। অপর দুইটি পদ ডিএমডি (অর্থ) ও (ইঞ্জিনিয়ার) দীর্ঘদিন ধরে শূন্য। ডিএমডি (প্রশাসন) তাহেরা ফেরদৌস নিজের দায়িত্বের পাশাপাশি অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন ডিএমডি (অর্থ) পদেও। ডিএমডি (ইঞ্জিনিয়ার) পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন ওয়াসার চিফ ইঞ্জিনিয়ার মাকসুদ আলম।

২০২০ সালের ২৫ জুন থেকে তিনি এ দায়িত্ব পালন করছেন। মাকসুদ আলমের অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন এখানে শেষ নয়, তিনি কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প-২ এর প্রকল্প পরিচালকও। চট্টগ্রাম ওয়াসা কাজের এ চিত্র শুধু আলোচ্য দুই কর্মকর্তার ক্ষেত্রে নয়, সংস্থাটির বিপুল সংখ্যক কর্মকর্তার দীর্ঘদিনের চিত্র এটি। সরকারি এ সেবা সংস্থার অধিকাংশ কর্মকর্তাকে নিজের কাজের পাশাপাশি অতিরিক্ত দুই থেকে ৪টি পদে দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। পদ অনুযায়ী লোকবল না থাকা, জনবল নিয়োগে বিলম্ব এবং সংস্থার একাধিক নতুন নতুন প্রকল্প বাস্তবায়নের ফলে এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।

অতিরিক্ত কাজের চাপের কারণে কোন কোন কর্মকর্তাকে সাপ্তাহিক ছুটি শুক্র ও শনিবারও দায়িত্ব পালন করতে হয়। কাজের ভারে তারা রীতিমত চ্যাপ্টা। এমনকি প্রয়োজনীয় ছুটি ভোগ করা থেকে তারা বঞ্চিত হচ্ছেন। ওয়াসার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (পরিকল্পনা ও নির্মাণ) মোহাম্মদ আরিফুল ইসলামকে অতিরিক্ত আরো একটি দায়িত্ব পালন করতে হয়। তিনি ওয়াসার গুরুত্বপূর্ণ স্যুয়ারেজ প্রকল্পের পরিচালক। দীর্ঘদিন ধরে তাঁকে বিশাল এ প্রকল্পের অতিরিক্ত দায়িত্ব সামলাতে হচ্ছে। অপর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (মড সার্কেল) মুহম্মদ মাহবুবুল আলমও অতিরিক্ত দুইটি পদে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ভান্ডালজুড়ি পানি সরবরাহ প্রকল্পের পরিচালক ও উপ প্রধান (উন্নয়ন) পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন। তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (ট্রিটমেন্ট এন্ড প্রোডাক্টশন) মোহাম্মদ নুরুল আমিন দীর্ঘদিন ধরে

নিজের দায়িত্বের বাইরে কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প-২ এর উপ-প্রকল্প পরিচালক ও মিরসরাই ইকোনমিক জোনে পানি সরবরাহ প্রকল্প পরিচালকের মতো গুরুত্বপূর্ণ আরো দুইটি দায়িত্ব পালন করতে হয়। ওয়াসার উপ-সচিবের পদটি দীর্ঘদিন ধরে শূন্য। উপ-সচিব জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী ২০১৯ সালের ১৪ জুলাই অবসরে গেলে এ পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন সহকারী সচিব মুহাম্মদ নাজিম উদ্দীন। নির্বাহী প্রকৌশলী (নির্মাণ বিভাগ-২) রেজাউর আহসান চৌধুরীকে অতিরিক্ত আরো দুইটি প্রকল্পে নির্বাহী প্রকৌশলীর দায়িত্ব পালন করতে হয়। এ দুইটি প্রকল্প হচ্ছে কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প-২ এবং ওয়াশ ইমপ্রুবমেন্ট প্রজেক্ট।

ওয়াসার অপর নির্বাহী প্রকৌশলী নজরুল ইসলামকে শেখ হাসিনা পানি শোধনাগারের পাশাপাশি অতিরিক্ত আরো দুইটি প্রকল্পে দায়িত্ব পালন করতে হয়। প্রকল্প দুইটি হচ্ছে, কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প-২ এবং ভান্ডালজুড়ি পানি সরবরাহ প্রকল্প। শুধু তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও নির্বাহী প্রকৌশলীদের অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করতে হয় তা নয়, উপ সহকারী ও সহকারী প্রকৌশলীদেরও নিজের দায়িত্বের পাশাপাশি অতিরিক্ত দায়িত্ব কাজ করতে হয়। সহকারী প্রকৌশলী মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিনকে অতিরিক্ত আরো চারটি দায়িত্ব পালন করতে হয়। পদগুলো হচ্ছে, ক্রয় কর্মকর্তা, যানবাহন কর্মকর্তা, সহকারী প্রকৌশলী (স্যুয়ারেজ প্রকল্প) এবং ওয়াশ ইমপ্রুবমেন্ট প্রজেক্ট। এই শূন্যতার কারণে ওয়াসায় প্রতিদিনের কর্মকা-ে অতিরিক্ত চাপ নিতে হচ্ছে কর্মকর্তাদের। অনেকের ঘুম হারাম হয়ে গেছে।

লোকবল শূন্যতা প্রসঙ্গে ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘ওয়াসায় এখন অনেকগুলো প্রকল্পের কাজ চলছে। কিন্তু আমরা আগের অর্গানোগ্রাম অনুযায়ী কাজ করছি। এতে কাজের চাপ অনেকটা বেড়ে গেছে। এ অবস্থায় নতুন অর্গানোগ্রাম অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে লোকবল নিয়োগ করা হবে। এছাড়া বদলিজনিত কিছু পদ শূন্য থাকায় পুনরায় ওই পদে লোক দিতে মন্ত্রণালয়কে অবহিত করা হয়েছে।’

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 197 People

সম্পর্কিত পোস্ট