চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ | ১:১৩ অপরাহ্ণ

নাজিম মুহাম্মদ

ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন: শিশু আরিয়ানকে শ্বাসরোধে হত্যা

কোন দুর্ঘটনা নয়। ছয় বছরের শিশু আরিয়ানকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনার চারমাসের মাথায় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে। ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর দুপুরে নগরীর হালিশহর আবাসিক এলাকার ‘এ’ ব্লকের বাস স্ট্যান্ডের কাছে একটি  ডোবা  থেকে শিশু আরিয়ানের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর পুলিশ লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। সংগ্রহ করে ডিএনএ’র নমুনা। শিশু আরিয়ানের মৃতদেহ যেখানে পাওয়া গেছে তা নানার বাড়ি থেকে আনুমানিক আধা কিলোমিটার দূরে ডোবায়। ঘটনার চারমাস অতিবাহিত হয়েছে, তবে শিশুটি কিভাবে সেখানে গেলো কিংবা কিভাবে মারা গেলো তার হদিস মেলাতে পারেনি পুলিশ। থানা পুলিশ ছাড়াও সিআইডি, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। প্রয়োজনীয় আলামত সংগ্রহ করেছেন।

হালিশহর থানার পরিদর্শক (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান,শিশু আরিয়ানের মৃত্যুর বিষয়টি আমরা গুরুত্বসহকারে দেখছি। ঘটনার পর থেকে সম্ভাব্য সব বিষয় আমরা খতিয়ে দেখছি। কয়দিন আগে আরিয়ানের ময়নাতদন্ত  প্রতিবেদন আমাদের হাতে এসেছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শিশু আরিয়ানকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। ওসি বললেন, এ হত্যাকা-ের রহস্য বের করতে আন্তরিকভাবে চেষ্টা করছি।  ২০২০ সালের গত ২৭ অক্টোবর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে আরিয়ান কাউকে কিছু না বলে বাসা থেকে  বের হয়ে যায়। এরপর  থেকে তার আর কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। ওই দিন রাতেই আরিয়ানের মা মারজান বেগম নগরীর পাহাড়তলী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

এছাড়া এলাকাতে মাইকিং করা হয়েছিলো। পরদিন স্থানীয় লোকজন শাপলা আবাসিকের বিপরীতে হালিশহর থানার দারুল ফোরকান মাদ্রাসার পাশে নির্মাণাধীন একটি ভবনের ভেতরে জমে থাকা পানিতে একটি শিশুর লাশ ভাসতে দেখে। এরমধ্যে পাহাড়তলি থানায় যোগাযোগ করা হলে জানাযায়, সেখানে ছয় বছরের আরিয়ানের নিখোঁজ সংক্রান্ত জিডি করেছেন তার মা। শিশুটির পরনে একটি গেঞ্জি ও হাফ প্যান্ট ছিল। তা দেখে স্বজনরা আরিয়ানের লাশ শনাক্ত করেন।  লাশটি যে প্লটে পাওয়া গেছে সে প্লটে ভবন নির্মাণের জন্য পাইলিংয়ের কাজ করা হয়েছে। ভবন নির্মান বন্ধ থাকায় সেখানে পানি জমে কচুরি পানায় ভরে যায়। সেই পানিতে উল্টো হয়ে  ফুলে অনেকটা পঁচে যাওয়া শিশুটির লাশ ভাসছিলো।

আরিয়ান ঢাকার নাখালপাড়ার বাসিন্দা সাইফুল ইসলামের ছেলে। করোনার কারণে ঘটনার দুই মাস আগে সাইফুল তার পরিবার নিয়ে নগরীর পাহাড়তলী থানাধীন শাপলা আবাসিক এলাকায় শ্বশুর বাড়িতে ছিলেন। নিখোঁজের দুই দিন পর পরিত্যক্ত ডোবা থেকে ছয় বছর বয়সী মেহরাজ ইসলাম আরিয়ানের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

হালিশহর থানা পুলিশ তখন জানিয়েছিল, ঘটনার দিন দুপুরে হালিশহর ‘এ’ ব্লকে দারুল ফোরকান মাদ্রাসার পাশে নির্মাণাধীন ভবনের পানি ও কচুরিপানা জমে থাকা একটি ডোবায় এক শিশুর লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ডোবা থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে। এরপর খবর পেয়ে অরিয়ানের মা-বাবা এসে এটি তাদের সন্তানের মরদেহ বলে শনাক্ত করেন।

হালিশহর থানার ওসি জানান, কে-কীভাবে শিশুটিকে হত্যা করেছে এটি আমরা এখনও নিশ্চিত হতে পারিনি।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 351 People

সম্পর্কিত পোস্ট