চট্টগ্রাম রবিবার, ০৭ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ | ১১:২২ অপরাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেক্স

জেলা উপজেলায় করোনার টিকাদান উৎসব

সারাদেশের ন্যায় আজ রবিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় করোনাভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা ও উপজেলা সংবাদদাতাদের পাঠানো টিকাদান কর্মসূচির খবর নিচে দেয়া হল- 

 

প্রথমদিন রাঙ্গুনিয়ায় করোনার টিকা নিলেন ৭০জন

 

রাঙ্গুনিয়া সংবাদদাতা জানান, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) টিকা কেন্দ্রের উদ্বোধন করা হয়েছে। প্রথমদিন উদ্বোধনের পর ৭০জন অক্সফোর্ড এস্ট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত ও সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার প্রস্তুতকৃত কোভিড-১৯ এর প্রতিষেধক টিকা গ্রহণ করেন।

সকালে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ টিকা কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান স্বজন কুমার তালুকদার, ইউএনও মো. মাসুদুর রহমান, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. রেহানুল ইসলাম।

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিকাদান কেন্দ্রে সকাল ১০টা ৩৫ মিনিটে প্রথম টিকা নেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের গত কমিটির স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ও চন্দ্রঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান ইদ্রিছ আজগর। এরপর উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি মান্নান তালুকদার, রাঙ্গুনিয়া প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জিগারুল ইসলাম জিগারসহ আরো ৭০জন করোনার প্রতিষেধক টিকা গ্রহণ করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. রেহানুল ইসলাম জানান, রাঙ্গুনিয়ায় প্রাথমিকভাবে ২০ হাজার ৩১৭ ডোজ ভ্যাকসিন পাওয়া গেছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১টি কেন্দ্রের মাধ্যমে নিবন্ধনকৃতদের এই টিকা প্রদান করা হচ্ছে।

তিনি জানান, অনলাইনে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে নিবন্ধন করে অগ্রাধিকার তালিকাভুক্তদের পর্যায়ক্রমে টিকা দেয়া হচ্ছে। প্রতি ১০ জনের জন্য একটি ভায়াল ব্যবহৃত হচ্ছে। প্রথমদিনে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিকা কেন্দ্রে ৭০জন টিকা নিয়েছেন। দ্রুত প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদে টিকা কেন্দ্র খোলা হবে। এজন্য স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করা হয়েছে

 

বান্দরবানে টিকাদান কর্মসূচি

 

বান্দরবান সংবাদদাতা জানান, বান্দরবানে করোনা ভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। বান্দরবানের সাতটি উপজেলাতেও এই কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়।

সকাল ১১টায় বান্দরবান সদর হাসপাতালে প্রথম করোনার টিকা গ্রহণ করেন পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা। এরপরই জেলা ও দায়রা জজ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীরা টিকা গ্রহণ করেন। অন্যদিকে সেনানিবাসে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল হক।

এদিকে যারা টিকা নিয়েছেন তাদের মধ্যে উৎফুল্ল ভাব দেখা গেলেও সাধারণ জনগণের অনেকের মাঝে এখনো টিকার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নিয়ে কিছুটা আতঙ্ক রয়েছে। যদিও চিকিৎসকরা বলছেন,যারা টিকা নিয়েছেন তাদের কারোরই সমস‍্যা দেখা যায়নি।

 

খাগড়াছড়িতে করোনার টিকা প্রদান শুরু

খাগড়াছড়ি সংবাদদাতা জানায়, সারাদেশের ন্যায় পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়িতেও আনুষ্ঠানিকভাবে করোনার ভ্যাকসিন প্রদান শুরু হয়েছে। দুপুরে খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের ৫ ফিল্ড এ্যাম্বুলেন্স হাসপাতালে সামরিক সদস্যদের করোনার টিকা প্রদান অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা।

এ সময় খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ আলী রেজা, সিভিল সার্জন ডা. নুপুর কান্তি দাশ অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন।

 

কাপ্তাইয়ে করোনা টিকা প্রদান শুরু

কাপ্তাই সংবাদদাতা জানান, অবশেষে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ আসলো কাপ্তাই উপজেলাবাসীর জন্য। সকাল ১০ টায় কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রথম করোনার টিকা নিলেন কাপ্তাই ৪১ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ। 

এ সময় কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুল হক, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাসুদ আহমেদ চৌধুরী, চন্দ্রঘোনা খ্রিস্টিয়ান মিশন হাসপাতালের পরিচালক ডা. প্রবীর খিয়াং, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, কাপ্তাই প্রেস ক্লাব সভাপতি কবির হোসেন, উপজেলা স্যানেটারি পরিদর্শক মো. ইলিয়াছসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

প্রথমদিন সর্বমোট ৫৯ জনকে টিকা প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে ১১ জন মহিলা এবং ৪৮ জন পুরুষ। প্রথম ধাপে ৬০০ জনকে করোনার টিকা প্রদান করা হবে বলে তিনি জানান উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাসুদ আহমেদ চৌধুরী।

 

নাইক্ষ্যংছড়িতে করোনার টিকাদান

 

নাইক্ষ্যংছড়ি সংবাদদাতা জানান, সারাদেশের ন্যায় পার্বত্য জেলা বান্দবানের নাইক্ষংছড়িতে করোনা ভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সকাল ১০টায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে করোনা টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন কচি।

নাইক্ষ্যংছড়িতে প্রথম টিকা গ্রহণ করেন নাইক্ষ্যংছড়ি স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আবু জাফর মো. ছলিম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো, শফি উল্লাহ, থানা ইনচার্জ মো, আলমগীর হোসেন, প্রেসক্লাব সভাপতি শামীম ইকবাল চৌধুরী, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম কাজল, দপ্তর সম্পাদক জয়নাল আবেদীন টুক্কু প্রমুখ।

 

রাউজানে টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন

রাইজান সংবাদদাতা জানান, অক্সফোর্ড এসট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত ও সেরাম ইনিস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার প্রস্তুতকৃত কভিট’র প্রতিষেধক ভ্যাকসিন কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে চট্টগ্রামের রাউজানে।

দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভ্যকসিন গ্রহণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী।

প্রথমদিনে ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মী, সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ, পুলিশসহ ১০ জন ঠিকা গ্রহণ করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবির সোহাগের সভাপতিত্বে ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা নুরুল আলম দীনের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম এহেছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুর মোহাম্মদ, রাউজান থানার ওসি আবদুল্লাহ আল হারুণ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম, পৌর মেয়র জমির উদ্দীন পারভেজ, কাজী মোহাম্মদ ইকবাল, শাহা আলম চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক বশির উদ্দিন খান, ইউপি চেয়ারম্যান বিএম জসিম উদ্দীন হিরু, কাউন্সিলর জানে আলম জনি, আলমগীর আলী, এডভোকেট দিলীপ কুমার চৌধুরী।

 

উখিয়ায় ৩০ জনের টিকা গ্রহণ

উখিয়া সংবাদদাতা জানান, করোনা ভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচির প্রথম দিনেই উখিয়ায় টিকা নিলেন ৩০ জন। সকালে টিকাদান কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী  কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন আহমদ।

উপজেলায় প্রথম টিকা নেন ইউএনও কার্যালয়ের কর্মচারী সুজন কান্তি ধর। পরে একে একে উপজেলার ৩০জন করোনা টিকা গ্রহণ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার রঞ্জন বড়ুয়া রাজন ও করোনাভাইরাস ইউনিটের ফোকাল পার্সন ডাক্তার এহেচান উল্লাহ সিকদারসহ আরও অনেকে।

 

সীতাকুণ্ডে টিকাদান উদ্বোধন করলেন এমপি দিদার

সীতাকুণ্ড সংবাদদাতা জানান, চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে কোভিড-১৯ এর টিকাদান কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে। বেলা ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম-৪ সীতাকুণ্ড আসনের এমপি আলহাজ্ব দিদারুল আলম।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণে কর্মকর্তা ডা. নুর উদ্দিন রাশেদের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন রায়, সীতাকুণ্ড সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশরাফুল করিম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল বাকের ভূঁইয়া, পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা বদিউল আলম, ওসি মো. আবুল কালাম আজাদ, প্রেসক্লাবের সভাপতি সৌমিত্র চক্রবর্তী।

অনুষ্ঠানের শেষে টিকা কার্যক্রম উদ্বোধন করতে গিয়ে কোভিড ১৯ এর টিকা গ্রহণ করেন এমপি দিদারুল আলম। এরপর যথাক্রমে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল বাকের ভূঁইয়া, পৌর মেয়র আলহাজ্ব বদিউল আলম, সাংবাদিক এম. সেকান্দার হোসাইন, কৃষ্ণ চন্দ্র দাস, পৌর কাউন্সিলর হারাধন চৌধুরী বাবু, ফজলে এলাহী পায়েলসহ পূর্বে রেজিস্ট্রেশনকৃত ৩৯ জন মানুষ করোনার টিকা গ্রহণ করেন।

 

বাঁশখালীতে টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন

বাঁশখালী সংবাদদাতা জানান, বাঁশখালী উপজেলায় কোভিড-১৯ করোনার টিকা প্রদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। সকালে বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা টিকাদান কার্যক্রমের আনু্ষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বাঁশখালীর সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাঁশখালী উপজেলা চেয়ারম্যান চৌধুরী মোহাম্মদ গালীব সাদলি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার, অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সফিউল কবির, বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প. প. কর্মকর্তা ডা. মো. শফিকুর রহমান মজুমদার, ডা. আব্দুর রহিম, ডা. শাহিদ চৌধুরী, ডা. সওগাত উল ইসলাম,  ডা. শ্যামলী দাশ, চেয়ারম্যান রশিদ আহমদ চৌধুরী, চেয়ারম্যান অধ্যাপক তাজুল ইসলাম,এডভোকেট তোফাইল বিন হোছাইন, মোহাম্মদ হামিদ উল্লাহ, মাওলানা আক্তার হোসেন, হাসপাতালের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা প্রমুখ।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তাৎক্ষনিকভাবে কোভিড-১৯ টিকা (ভ্যাকসিন) গ্রহণ করেন ডা. আসিফুল হক, ডা. হিরক পাল, ল্যাব টেকনেশিয়ান পরিতোষ বড়ুয়া, শিক্ষক বিমল রুদ্র, এ্ম্বুলেন্স চালক মোহাম্মদ আলমগীরসহ  ৩০ জন।

বাঁশখালীতে ৫০৪ জন করোনা টিকা গ্রহণের আবেদন করেন। তৎমধ্যে রবিবার ১’শ জনকে টিকা প্রদানের লক্ষ্য নির্ধারণ করে কার্যক্রম চালাচ্ছে বলে নিশ্চিত করছেন উপজেলা স্বাস্থ্য প. প. কর্মকর্তা শফিকুর রহমান মজুমদার।

 

হাটহাজারীতে টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন

হাটহাজারী সংবাদদাতা জানান, হাটহাজারীতে করোনা ভ্যাকসিন কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ (এম.পি)। বেলা এগারটায় উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে অস্থায়ী ঠিকাদান কেন্দ্রে এ কর্মসূচির উদ্ধোধন করেন তিনি।

প্রথম দিনে হাটহাজারীতে টিকা গ্রহণ করেন ১৫০জন। উদ্বোধনের সময় প্রথম টিকা গ্রহণ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা বাবু গোবিন্দ প্রসাদ মহাজন। এরপর পর্যায়ক্রমে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার সোহানা বিল্লা, ডা. মাহতাব উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তার বেগম মুক্তা, মুক্তিযোদ্ধা কমাণ্ডার নুরুল আলম, মুক্তিযোদ্ধা ও সহ চিকিৎসক, নার্স, আইনশৃঙ্খ লারক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ আরও অনেকে টিকা গ্রহণ করেন। তবে হাটহাজারী থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার আনিস উদ্বোধন করলেও টিকা নেন নি।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু সৈয়দ মো. ইমতিয়াজ হোসাইন, ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল আলম বাসেক, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তার বেগম মুক্তা, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল আলম, ফতেপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এডভোকেট মোহাম্মদ শামীম, সাংসদের একান্ত সহকারী সৈয়দ মঞ্জুরুল আলম, চেয়ারম্যান সরোয়ার মোর্শেদ তালুকদার, মো. মুজিবুর রহমান, সালাউদ্দিন চৌধুরী প্রমুখ।

পূর্বকোণ/মামুন

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 206 People

সম্পর্কিত পোস্ট