চট্টগ্রাম শনিবার, ০৬ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ | ১২:১৯ অপরাহ্ণ

শিবুকান্তি দাশ, ঢাকা অফিস

মিরসরাই: বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে ৪৩৪৭ কোটি টাকা অনুমোদন

চার হাজার ৩৪৭ কোটি ২১ লাখ টাকা ব্যয়ে চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর (বিএসএমএসএন) উন্নয়ন প্রকল্পের চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরসহ ৮ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে গতকাল বুধবার অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।

জানা গেছে, বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে তাতে অন্তত ১৫ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১১ হাজার ৩২৪ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৫ হাজার ১৪০ কোটি ৩৯ লাখ টাকা, বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৬ হাজার ১৬৫ কোটি ৮২ লাখ টাকা এবং বাস্তবায়নকারী সংস্থা থেকে ১৮ কোটি ১২ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। এ সময় পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নানসহ একনেকের বাকি সদস্যরা ছিলেন রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে।

একনেক সভা জানায়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর প্রকল্পের মোট ব্যয়ের মধ্যে বিশ্বব্যাংক ৩ হাজার ৯৬৭ কোটি ৪৭ লাখ টাকা ঋণ দেবে, বাকি ৩৭৯ কোটি ৭৪ লাখ টাকা সরকারি খাত থেকে মেটানো হবে। পুরো পৃথিবীতে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব ঘটুক বা না ঘটুক, সবুজ শিল্প বিপ্লব ঘটতে যাচ্ছে বন্দর নগরী চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে। দুটি ব্লকে প্রায় এক হাজার একর জায়গাজুড়ে পরিবেশবান্ধব সবুজ কারখানা (গ্রিন ইন্ডাস্ট্রি) গড়ে তোলার মাধ্যমে এই বিপ্লব ঘটাতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ইকোনমিক জোন অথরিটি (বেজা)। এতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে যাচ্ছে দেশের বৃহত্তম শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপ।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরী (বিএসএমএসএন) নামের এই অর্থনৈতিক জোন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এটি দেশের শিল্প খাতের জন্য মডেল হিসেবে কাজ করবে। একই সঙ্গে এটিই হবে দেশের সবচেয়ে বড় ইকোনমিক জোন, যার মোট আয়তন ৩৩ হাজার একর। এতে কর্মসংস্থান হবে অন্তত ১৫ লাখ মানুষের। এ শিল্পনগরী ঘিরে আশপাশের এলাকাগুলোতেও গড়ে উঠছে বিভিন্ন শিল্প-কারখানা। বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরীর সঙ্গে যুক্ত হবে চট্টগ্রামে নির্মিতব্য বে-টার্মিনাল। এতে সহজ হবে পণ্য আমদানি-রপ্তানি। বিশেষ করে এই শিল্পনগরীতে উৎপাদিত পণ্য সরাসরি রপ্তানি হবে বে-টার্মিনাল দিয়ে। এখন পর্যন্ত এ শিল্পনগরীতে দেশের বিভিন্ন কোম্পানির পাশাপাশি বিদেশি বিনিয়োগকারী হিসেবে বিনিয়োগে এগিয়ে এসেছে জাপান, চীন, ভারত, যুক্তরাজ্য, সিঙ্গাপুর, কোরিয়া, মালয়েশিয়া ও অস্ট্রেলিয়া।

জানা গেছে, বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরীর সবুজ অংশে ৫০০ একর জায়গাজুড়ে নির্মিত হচ্ছে বসুন্ধরা শিল্পাঞ্চল।

বসুন্ধরা ইকোনমিক জোনেই প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে অন্তত ৪০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এ ছাড়া সবুজ শিল্পাঞ্চল অংশে এশিয়ান পেইন্ট, মডার্ন সিনটেক্সের শিল্প-কারখানার অবকাঠামোর নির্মাণযজ্ঞ চলছে দ্রুতগতিতে।

বেজা সূত্র জানায়, সবুজ শিল্পনগর নির্মাণের একটি পৃথক প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। এতে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ হবে। এর মধ্যে ৫০ কোটি ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা) দেবে বিশ্বব্যাংক। বেসরকারি বিনিয়োগ ও ডিজিটাল এন্টারপ্রেনারশিপ (প্রাইড) শীর্ষক এক প্রকল্পের আওতায় বিশ্বব্যাংক বিনিয়োগ করছে এই অর্থ। বেজা সূত্রে জানা যায়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে বেপজা অর্থনৈতিক অঞ্চল, বিজিএমইএ গার্মেন্টস পার্ক ও পিপিপি জোন এবং ৭২টি শিল্পপ্রতিষ্ঠানের অনুকূলে এ পর্যন্ত ৬ হাজার ৫০০ একর জমি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের প্রস্তাবিত বিনিয়োগের পরিমাণ প্রায় ২০ দশমিক ৪২ বিলিয়ন ডলার এবং সম্ভাব্য কর্মসংস্থান (বিজিএমইএ গার্মেন্টস পার্ক, বেপজা ও এসবিজি ইকোনমিক জোন) প্রায় ১০ লাখ।

জানা গেছে, এই শিল্পনগরীতে থাকবে নিজস্ব বিদ্যুৎ ব্যবস্থা। গড়ে তোলা হচ্ছে বর্জ্য শোধনাগার। এর অভ্যন্তরে তৈরি হচ্ছে ৩০ কিলোমিটার রাস্তা। বেজার তথ্য অনুযায়ী, গত নভেম্বর পর্যন্ত দেশি-বিদেশি মিলিয়ে অন্তত ১৯ বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ প্রস্তাব এসেছে এই শিল্পনগরীর অনুকূলে, যার ১০ বিলিয়ন ডলারই বিদেশি বিনিয়োগ।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
  • 46
    Shares
The Post Viewed By: 422 People

সম্পর্কিত পোস্ট