চট্টগ্রাম রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

সর্বশেষ:

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ | ৫:২৫ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

রোহিঙ্গাকে পাসপোর্টে সহযোগিতা করে কারাগারে গেলেন ইউপি সদস্য

নোয়াখালীতে জন্ম নিবন্ধন ও নাগরিক সনদ দিয়ে তিন রোহিঙ্গা যুবকের পাসপোর্ট গ্রহণের ঘটনার মামলায় আবদুল হাকিম (৪৩) নামে এক ইউপি সদস্যকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। তিনি সেনবাগ উপজেলার ৪ নম্বর কাদরা ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য।

মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) নোয়াখালীর বিচারিক আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

পাসপোর্টগ্রহণকারী তিন রোহিঙ্গা যুবক হলেন- কক্সবাজার জেলার উখিয়ার হাকিমপাড়া শরণার্থী শিবিরের মোহাম্মদ ইউসুফ, মোহাম্মদ মুছা ও মোহাম্মদ আবদুল আজিজ।

২০১৮ সালের ২৪ ডিসেম্বর সেনবাগের কাদরা ইউনিয়ন পরিষদের জন্ম নিবন্ধন, নাগরিক সনদপত্র দিয়ে ওয়ার্ডের নজরপুর ও নিজ সেনবাগ গ্রামের ঠিকানা ব্যবহার করে নোয়াখালী আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে পাসপোর্ট সংগ্রহ করে ওই তিন যুবক।

এরপর ওই তিন রোহিঙ্গা যুবক চট্টগ্রামের আকবর শাহ থানা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হলে ঘটনাটি নিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি হয়। পরে আকবর শাহ থানার এসআই আশাদুল ইসলাম বাদী হয়ে একটি মামলা করে। ওই মামলায় আদালত জিআর মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। গ্রেপ্তারি পরোয়ানার ভিত্তিতে সেনবাগ থানা পুলিশ আবদুল হাকিমকে গ্রেপ্তার করে নোয়াখালী বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করে।

৪ নম্বর কাদরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ কামরুজ্জান বলেন, আটক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আবদুল হাকিম তার আত্মীয় সাবের হোসেনের যোগসাজশে ৩ রোহিঙ্গাকে জন্ম নিবন্ধন সনদ ও নাগরিকত্ব সনদ প্রদানে সহযোগিতা করেন। এ ঘটনায় ২০১৯ সালে অভিযুক্ত ইউপি সদস্যসহ ওই সিন্ডিকেটের কয়েকজনকে আসামি করে চট্টগ্রাম আকবর শাহ থানায় একটি মামলা হয়েছে। মামলার আলোকে সেনবাগ থানা পুলিশ তাকে আটক করে।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল বাতেন মৃধা জানান, গভীর রাতে তাকে উপজেলার কাদরা ইউনিয়নের ৩নম্বর ওয়ার্ডের নিজ বসতবাড়ি থেকে আটক করে পুলিশ। পরে তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
  • 49
    Shares
The Post Viewed By: 179 People

সম্পর্কিত পোস্ট