চট্টগ্রাম শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

২২ জানুয়ারি, ২০২১ | ৬:২৪ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

আর কোথাও যেন সহিংসতা না হয়: সুজন

নির্বাচন আসলে উত্তাপ থাকেই । তবে এ উত্তাপ যেন আত্মঘাতী না হয়। এর রেশ যাতে গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান, ব্যবস্থাপনা, সংস্কৃতিকে ক্ষতিগ্রস্ত না করে। ইচ্ছে করলে আমরা মিছিল মিটিং ছাড়াও নির্বাচন করতে পারি। এখন মিডিয়ার যুগ। ফেসবুকের যুগ। ম্যাসেজ পাঠাতে পারেন। আমি মনে করি, যতটুকু হয়ে গেছে, আর কোথাও যেন সহিংসতা না হয়। সবাই প্রশাসনকে সাহায্য করুন। নির্বাচনের পর সবাই যেন একসঙ্গে আনন্দমুখর পরিবেশে কাজ করতে পারি। আজ শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ( চসিক) প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন এসব কথা বলেন।

এ সময় খোরশেদ আলম সুজন চসিক নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী জিতলেও রাষ্ট্রক্ষমতায় যেতে পারবে না মন্তব্য করে  বিএনপির সচেতনদের চট্টগ্রামের স্বার্থে নৌকায় ভোট দিতে আহ্বান জানান। এটা সবচেয়ে বুদ্ধিমানের কাজ হবে । কারণ হিসেবে  সুজন বলেন, এ নির্বাচনে সবাই অংশগ্রহণ করছে। চট্টগ্রাম ইতিহাসের এক গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়ের সামনে এসে দাঁড়িয়েছে। আগামী ৫-১০ বছরের মধ্যে এ চট্টগ্রাম হবে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার শ্রেষ্ঠ যোগাযোগ কেন্দ্র। এটা উপলব্ধি করতে পেরেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল তৈরি করছেন। মাতারবাড়ীতে সমুদ্রবন্দর হয়ে গেছে। সেখানে আলাদা জগত গড়ে উঠেছে। মিরসরাই স্পেশাল ইকোনমিক জোনে সারা পৃথিবীর ইনভেস্টররা ছুটে আসছেন। এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর প্রথম নির্বাচনী ইশতেহারে ২৮ দফার অন্যতম ছিল- পতেঙ্গা থেকে ফেনী হাইওয়ে পর্যন্ত বাইপাস করা। মহিউদ্দিন চৌধুরী আজ বেঁচে নেই। কিন্তু সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করছেন নেত্রী। একের পর এক এক্সপ্রেস ওয়ে হচ্ছে। চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত মেরিন ড্রাইভ হচ্ছে। এসব কাজ  এগিয়ে নিতে শেখ হাসিনা যাকে প্রার্থী দিয়েছেন আমাদের তাকেই চিন্তায় আনতে হবে। চট্টগ্রামের উন্নয়নের স্বার্থে দলমত নির্বিশেষে নৌকার প্রার্থীকে জয়ী করতে হবে

মতবিনিময় সভায় সুজন বলেন,  এবার আমি  নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারছি না। যেহেতু আমার একটি দায়িত্ব আছে। এই কষ্ট, খাঁচার পাখির মত, বন্দিদশার কষ্ট। সবাই মিছিল করছে, মিটিং করছে আমি দেখছি।

পূর্বকোণ / আরআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 318 People

সম্পর্কিত পোস্ট