চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০৪ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

১৫ জানুয়ারি, ২০২১ | ১০:১৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বৃহত্তর বাকলিয়ায় গণসংযোকালে পথসভায় রেজাউল করিম

‘বাকলিয়ার উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দিন’

চসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়রপ্রার্থী রেজাউল করিমের প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে উপস্থিত নেতৃবৃন্দের সাথে নির্বাচন পরিস্থিতি নিয়ে বিশদ আলোচনা করেছেন দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন। শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) সকালে তিনি এ আলোচনা সভা করেন।

পরে তিনি নগরীর জমিয়াতুল ফালাহ জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করার পর মুসল্লিদের সাথে কুশল বিনিময় করেন ও নৌকা প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করেন। এ সময় মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম, প্রচার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ সিদ্দিক আহম্মদ উপস্থিত ছিলেন। পরে দুপুরে মেয়রপ্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরীর সমর্থনে বাকলিয়ার পূর্ব ও দক্ষিণ বাকলিয়ায় গণসংযোগ করেন।

গণসংযোগে আহমদ হোসেন বলেন, চট্টগ্রামের মাটি বীর সন্তানদের মাটি। সারা বাংলাদেশের মানুষ চট্টগ্রামকে বীর চট্টলা হিসেবে জানে। স্বাধীন সোনার বাংলার স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির জনকের কন্যা বীর চট্টগ্রামের একজন বীর সন্তান, মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিমকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা ও একজন মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মান জানিয়ে স্বাধীনতা ও উন্নয়নের প্রতীক নৌকায় ভোট দিয়ে মেয়র নির্বাচিত করা সকলের নৈতিক দায়িত্ব।

এ সময় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন ও নৌকা প্রতীকের মেয়রপ্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, মেয়র নির্বাচিত হলে হোল্ডিং ট্যাক্স না বাড়িয়েই উন্নয়ন পরিকল্পনা সাজাব ও আধুনিক সেবা নিশ্চিত করব। বাকলিয়াবাসীকে অতীতে বিএনপি মিথ্যে স্বপ্ন দেখিয়ে ভোট নিয়ে গিয়েছিল। আবার তারা এটাকে তাদের ভোটব্যাংক বলেও দাবি করত। কিন্তু বাকলিয়ার উন্নয়নে তারা কিছুই করেনি। বাকলিয়ার মানুষ আর ধোকাবাজির ফাঁদে পড়বে না। কারণ বাকলিয়াবাসী জানে, একমাত্র আওয়ামী লীগই এই এলাকার উন্নয়নে কাজ করেছে। নৌকায় ভোট দিয়ে কেউ ঠকেনি। বৃহত্তর বাকলিয়াকে পরিকল্পিত ও স্বয়ংসম্পূর্ণ করে আকর্ষণীয় নান্দনিক রূপে সাজানোর সুযোগ রয়েছে, এটি আওয়ামী লীগই দেখিয়েছে। বাকলিয়ার উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে বাকলিয়াবাসী এবার নৌকায় ভোট দিবেন বলে আমি বিশ্বাস করি।

বাকলিয়াসহ নগরীর কিছু এলাকায় মাদক ও জুয়া আরেকটি ভয়াবহ সমস্যা। মদখোর, সুদখোর, জুয়াড়ি এসবের বিরুদ্ধে আমার আজীবনের সংগ্রাম। মেয়র হলে মাদক, সন্ত্রাস, দুর্নীতি কঠোর হাতে দমন করা হবে। আধুনিক হাসপাতাল, স্কুল, কলেজ, খেলার মাঠ, পার্ক ও সুস্থ সংস্কৃতি চর্চা কেন্দ্র, কর্ণফুলী তীরবর্তী পর্যটন স্পট নিয়ে বাকলিয়া হতে পারে শহরের ভেতর নতুন আরেক শহর। প্রাচ্যের রাণী খ্যাত আমাদের চট্টগ্রাম আমরাই করব সমুন্নত।

বক্তব্যে সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, জলামগ্নতা এ এলাকার একটি চরম সমস্যা। জননেত্রী শেখ হাসিনার চট্টগ্রামের প্রতি আন্তরিকতায় চলমান রিভার ড্রাইভ রোডসহ ও জলাবদ্ধতা নিরসনে চলমান মেগাপ্রকল্প সম্পন্ন হলে এ সমস্যার একটা সুরাহা হবে। সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত খাল খনন, সম্প্রসারণ ও সংস্কার এবং নগরীর ড্রেনেজ ব্যবস্থায় চলমান কাজগুলো সম্পন্ন হলে মশকের প্রজনন ক্ষেত্র অনেকটাই ধ্বংস হবে, মশার উৎপাত কমে আসবে। চট্টগ্রামের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে ভোটারদের নৌকায় ভোট দিয়ে রেজাউল করিমকে মেয়র নির্বাচিত করার আহ্বান জানান।

গণসযোগে মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা আলহাজ শফর আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, প্রচার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক, ক্রীড়া সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী, কার্যনির্বাহী সদস্য আহমদ ইলিয়াস, কার্যনিবাহী সদস্য বেলাল আহমদ, থানা আওয়ামী লীগের হাজী সিদ্দিক আলম, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ কাউন্সিলর হারুনুর রশিদ, ১৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আমিন নুরু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইফতেখার আলম জাহেদ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা আহমদ হোসেন, ১৭ নম্বর ওয়ার্ড পশ্চিম বাকলিয়া কাউন্সিলরপ্রার্থী মোহাম্মদ শহিদুল আলম, ১৮ নম্বর পূর্ব বাকলিয়া ওয়র্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ, ১৯ নম্বর দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ড কাউন্সিলরপ্রার্থী মো. নূরুল আলম, ১৭, ১৮ ও ১৯ নম্বর ওয়র্ডের সংরক্ষিত কাউন্সিলরপ্রার্থী শাহীন আকতার রোজীসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ ও অন্যান্য অঙ্গসহযোগী সংগঠনের অসংখ্য নেতাকর্মী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

পূর্বকোণ/আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 240 People

সম্পর্কিত পোস্ট