চট্টগ্রাম শনিবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০২১

১৪ জানুয়ারি, ২০২১ | ২:৪৬ অপরাহ্ণ

মো. জহুরুল আলম, খাগড়াছড়ি

মাটিরাঙ্গা: ১০ ইটভাটায় পুড়ছে বনের কাঠ

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলার ১০ ইটভাটায় চলছে অবৈধভাবে কাঠ পোড়ানোর মহোৎসব। অধিকাংশ ইটভাটা ফসলি জমির ওপর স্থাপিত। ২০১৩ সালের এক অধ্যাদেশে ইটভাটায় কাঠ পোড়ানো নিষিদ্ধ করা হলেও এখানে কেউ তা মানছে না।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পরিবেশ আইন অনুযায়ী ইটভাটার চিমনিগুলো ইমারত আকারে থাকার কথা থাকলেও তা এখানে উপেক্ষিত। ইটভাটাগুলোর মধ্যে অনেক ইটভাটায় এখনো চিমনি আকারে (যা ড্রামশিট দিয়ে) তৈরি করে ইট পোড়ানো হচ্ছে। এতে কালো ধোঁয়ায় এখানকার পরিবেশ দিন দিন ধূষিত হয়ে উঠছে। স্থাপনকৃত ইটভাটা এলাকায় বসবাসকৃত স্থানীয় পরিবারগুলো সর্দি-কাশিসহ নানা জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। মাটিরাঙ্গার তবলছড়ি সড়কের ওয়াসু, গোমতি, বেলছড়ি, পানছড়ির ভগবান টিলা, খাগড়াছড়ির আলুটিলাসহ বিভিন্ন পাহাড়ি পথ দিয়ে চাঁদের গাড়ি (জিপ), ট্রাক্টর ও ট্রাকে করে সুরক্ষিত বনাঞ্চল থেকে অবাধে কাঠ মাটিরাঙ্গার ইটভাটায় নেওয়া হচ্ছে।

বন বিভাগের মাটিরাঙ্গার রেঞ্জ কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম পূর্বকোণ প্রতিনিধিকে জানান, আমরা সড়কের ওপর কাঠ পেলেই ধরতে পারি। তবে তবলছড়ি এলাকায় তাদের কোন চেক পোস্ট নেই দাবি করে এখনো পর্যন্ত এই মৌসুমে এক টুকরো কাঠও তারা আটক করতে পারেননি বলে জানান। তিনি আরো জানান, প্রশাসনের সাথে কথা বলে আমরা পদক্ষেপ নেব।

মাটিরাঙ্গার উপজেলা নির্বাহী অফিসার তুলা দেব জানান, এখানে ১০টির মতো ইটভাটা রয়েছে। অবৈধভাবে ফসলি জমিতে স্থাপিত ইটভাটায় কাঠ পোড়ানোর বিষয়ে বলেন, আমরা প্রশাসন থেকে সহসা ব্যবস্থা নেব। তিনি আরও জানান, এখনো পর্যন্ত ইটভাটায় কোন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়নি। তবে মাটিরাঙ্গায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে বনাঞ্চল থেকে ছোট ও মাঝারি সাইজের আম, কাঁঠাল, গামারিসহ বিভিন্ন প্রজাতির কাঠ কেটে উজাড় করে নানা পাহাড়ি পথে ইটভাটায় নিয়ে পোড়ানো হচ্ছে। ফসলি জমিতে ইটভাটা স্থাপন করায় এখানে ধান উৎপাদনও কমে যাচ্ছে। মাটি হিসেবে পাহাড় কেটে ইটভাটায় কাঁচা ইট তৈরি করে তা পোঁড়ানো হচ্ছে। কোন কোন ব্রিক ফিল্ডের লাইসেন্সের বৈধতা নিয়েও রয়েছে নানা প্রশ্ন। সম্প্রতি চট্টগ্রামে পরিবেশ অধিদপ্তর অবৈধ ইটভাটা গুঁড়িয়ে দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এখানেও এলাকাবাসী পরিবেশ অধিদপ্তরসহ স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 111 People

সম্পর্কিত পোস্ট