চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

৮ জানুয়ারি, ২০২১ | ৫:২৯ অপরাহ্ণ

ইফতেখারুল ইসলাম

একান্ত সাক্ষাৎকারে এম রেজাউল করিম চৌধুরী

চট্টগ্রামকে বিশ্বমানের নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই

উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে স্বাধীনতার প্রতীক নৌকায় ভোট চান আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরী। দৈনিক পূর্বকোণের সাথে একান্ত সাক্ষাতকারে এই বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা বন্দর নগরীকে নিয়ে তার স্বপ্নের নগর গড়ার পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেছেন। বলেছেন, নির্বাচিত হলে চট্টগ্রামকে বিশ্বমানের নগরী হিসেবে গড়ে তোলার সর্বাত্মক চেষ্টা করবেন।

এক প্রশ্নের জবাবে রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, কিশোর অপরাধ একটি সামাজিক ব্যাধি হিসেবে দেখা দিয়েছে। সন্ত্রাসী, মাদকব্যবসায়ী এবং কিছু কিছু রাজনৈতিক নেতাও কিশোরদের অপরাধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তিনি মেয়র নির্বাচিত হলে কিশোর অপরাধ বন্ধে সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে সচেতনতা সৃষ্টি এবং কিশোরদের নিরাপদ ভবিষ্যত গড়ার বিষয়ে জোরালো পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন তিনি।

আরেক সামাজিক মাদক এবং সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তার কঠোর অবস্থানের কথা উল্লেখ করে বলেন, মাদক এবং সন্ত্রাস হল সমাজের ক্যান্সার। প্রশাসনকে সাথে নিয়ে এই শহরকে এই ব্যাধি থেকে মুক্ত করা হবে। জলাবদ্ধতা নিরসনের কাজ চলছে উল্লেখ করে বলেন, এটাকে ধরে রাখতে হবে। এই কাজকে আরো এগিয়ে নিতে হবে। প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর খাল যাতে কোনভাবেই ভরাট না হয় সে বিষয়ে তিনি সজাগ থাকবেন।

বর্তমান প্রশাসক এবং সাবেক মেয়রও পরিচ্ছন্নতা সেবার মান বৃদ্ধির চেষ্টা করেছেন। তবুও এই খাত নিয়ে মানুষের কিছুটা অসন্তোষ আছে। সেই অসন্তোষ দূর করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।

জনস্বাস্থ্য প্রসঙ্গে মেয়র প্রার্থী রেজাউল বলেন, ৪১ ওয়ার্ডে ৪১টি স্বাস্থ্য কেন্দ্র করার পরিকল্পনা তার হয়েছে। এছাড়া প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে বিনোদন কেন্দ্র, পার্ক, মাঠ করার পরিকল্পনা আছে। তবে জায়গার অভাবে হয়তো প্রতিটি ওয়ার্ডে তা গড়ে তোলা সম্ভব নাও হতে পারে। তবে যেখানে জায়গা পাবেন সেখানেই পার্ক, মাঠ গড়ে তুলবেন। এছাড়া সাংস্কৃতিক কমপ্লেক্স করার পরিকল্পনাও তার রয়েছে। সর্বোপরি সিটি কর্পোরেশনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে শিক্ষার মানকে বাড়াতে সচেষ্ট থাকবেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, চট্টগ্রাম হল একটি পর্যটন নগরী। মেয়র নির্বাচিত হলে এর সৌন্দর্য আর বিনষ্ট হতে দেবেন না তিনি। সবশ্রেণির মানুষের মতামতকে অগ্রাধিকরা দিয়ে পরিকল্পিত নগরী গড়ার জন্য সম্মিলিত প্রয়াস গ্রহণ করবেন। এককভাবে কোন সিদ্ধান্ত সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন বলে উল্লেখ করেন।

কাউন্সিলর পদে বিদ্রোহী প্রার্থী প্রসঙ্গে বলেন, তাদের নিয়ে আলোচনা চলছে। মহানগর আওয়ামী লীগও একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারা কঠোরভাবে বিষয়টি হ্যান্ডেল করছে। তবে এবিষয়ে তার কোন এখতিয়ার নেই উল্লেখ করে বলেন, তিনি আশা করেন দল একটি সুচিন্তিত সিদ্ধান্ত নেবে।

নির্বাচন নিয়ে বিএনপি’র সমালোচনা প্রসঙ্গে বলেন, বিএনপি কখনো পজিটিভ কথা বলেনি। পদ্মা সেতু নিয়ে তারা কত কথা বলেছে। কিন্তু সেটি বাস্তবায়ন হয়ে যাচ্ছে। চট্টগ্রামে ফ্লাইওভার হবে তারা বিশ্বাস করেনি। কিন্তু হয়েছে। পজিটিভ কোন কথা তাদের মুখ দিয়ে বের হয় না। সার্কিট হাউজে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ করছে কোন ধরনের তথ্য প্রমাণ ছাড়াই। দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের এধরনের কথা বলা থেকে বিরত থাকা উচিত। কোন একজন সাধারণ সদস্য হয়তো অযাচিত কথা বলতে পারেন। দায়িত্বে থেকে এধরনের কথা আশা করা যায় না। নির্বাচন সুষ্ঠু না হওয়ার কোন কারণ তিনি দেখছেননা উল্লেখ করে বলেন, বিএনপি প্রার্থীর প্রচার বিএনপি করছে। আমাদের প্রচার আমরা করছি। বিএনপি একসময় ইভিএমে’র বিরোধীতা করেছে। ইভিএমে কারচুপি করার কোন সুযোগ আছে বলে আমার মনে হয়না।

নগরবাসীর প্রতি তার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি প্রসঙ্গে বলেন, তিনি নির্বাচিত হলে এই শহরকে পরিবেশ বান্ধব, নিরাপদ, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত, আধুনিক নান্দনিক, বিশ্বমানের বসবাসযোগ্য, সাংস্কৃতিক বান্ধব নগরী হিসেবে সাজাতে চান। এইবারেই প্রথম মেয়রকে দলীয় প্রতীক এবং স্বাধীনতার প্রতীক দিয়েছে। গত এক যুগে জননেত্রী শেখ হাসিনা করোনাকালেও দেশের অর্থনীতিকে অনেকদূর এগিয়ে নিয়েছেন। আমাদের দেশে অর্থনৈতিক সংকট নেই।

তাছাড়া গত ছয়মাস তিনি ঘরে বসে ছিলেন না উল্লেখ করে বলেন, তিনি এই সময়ে প্রতি ঘরে ঘরে গেছেন। মানুষের কাছে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। তাদের বিপদের সময় পাশে দাঁড়িয়েছেন। কথা বলেছেন। মতামত জানতে পেরেছেন। সমস্যা, অসুবিধা ইত্যাদির কথা জানতে পেরেছেন। সরকারের উন্নয়ন কর্মকা- জনগণ ইতিবাচকভাবেই গ্রহণ করেছে।

চট্টগ্রামের উন্নয়নের গতিকে বেগবান করার জন্য তারা নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করবে। তিনি নির্বাচিত হলে, বিগত মেয়রের আমলের ভাল প্রকল্পগুলোকে আমি গুরুত্বের সাথে অব্যাহত রাখবেন বলে উল্লেখ করেন।

 

 

 

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 178 People

মন্তব্য দিন :

সম্পর্কিত পোস্ট