চট্টগ্রাম রবিবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২১

৭ জানুয়ারি, ২০২১ | ১১:৫৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বায়েজিদে বিকাশের টাকা ও ওষুধ আনতে গিয়ে নিখোঁজ

কাউখালীতে নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

রাঙামাটির কাউখালী উপজেলার ঘাগড়া এলাকা থেকে অর্ধগলিত এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) দুপুরে কাউখালী থানা পুলিশের একটি টিম এই লাশ উদ্ধার করে।

হতভাগা ওই নারী রেহেনা পারভীন (৩৭) চট্টগ্রামের হাটহাজারীর ইছাপুর এলাকার প্রবাসী জনৈক সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী। তিনি নগরীর বায়েজিদ এলাকা থেকে নিখোঁজ হন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নিহতের ছেলে মাহমুদুল হাসান রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতাল মর্গে এসে তার মায়ের লাশ শনাক্ত করেন।

নিহতের ছেলে মাহমুদুল হাসান ও কাউখালী থানার অফিসার্স ইনচাজ (ওসি) মো. শহীদুল্লাহ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ঘাগড়াস্থ সিটিহাট পুলিশ ফাঁড়ি থেকে প্রায় ২০০ গজ পশ্চিমে হতভাগা রেহেনা পারভীনের লাশটি পাওয়া গেছে। এলাকাবাসী লাশটি দেখে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে এটি উদ্ধার করে।

জানা যায়, বিকাশের টাকা উত্তোলন ও মেয়ের ওষুধ আনতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়ার এক সপ্তাহ পর তার অর্ধগলিত লাশের সন্ধান পাওয়া যায়।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, রেহেনা পারভীনের স্বামী সিরাজুল ইসলাম দুবাইতে থাকেন। তাদের বাড়ি হাটহাজারী উপজেলার ইছাপুরে হলেও দু’ মেয়ে ও এক ছেলে নিয়ে রেহেনা পারভীন চট্টগ্রামের বায়েজিদ বোস্তামী থানাধীন আতুরার ডিপোর হাশেম বাজার এলাকায় মসজিদ সংলগ্ন ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। তাদের একটি ট্রাক ছিল। সে ট্রাকটি রাঙ্গুনিয়া উপজেলার ধামাইরহাট সোনারগাঁও রাস্তার মাতা এলাকার ট্রাক ড্রাইভার জনৈক আবুল হায়াতের (৪৮) নিকট বিক্রি করে দেয়। ওই ট্রাক বিক্রি বাবদ ৫০ হাজার টাকা বকেয়া থাকে। গত ২ জনুয়ারি বিকেলে সে টাকা আবুল হায়াত বিকাশের মাধ্যমে পাঠানোর কথা বলে পাশ্ববর্তী বাজারের একটি দোকানে যেতে বলেন। টাকা দিবে সে টাকা নেয়ার জন্য এবং অসুস্থ ছোট মেয়ের জন্য ওষুধ ক্রয় করার জন্য বাজারে গেলে তার আর বাসায় ফেরা হয়নি।

ছেলে মাহমুদুল হাসান জানিয়েছেন, তার মা রেহেনা পারভীন বাসায় ফিরে না আসলে ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। অপরদিকে তাদের ট্রাক ড্রাইভার জনৈক আবুল হায়াতের মোবাইলও বন্ধ পাওয়া যায়। মায়ের কোন সন্ধান না পেলে ২ জানুয়ারি রাতে বায়েজিদ বোস্তামী থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। বায়েজিদ থানায় যোগাযোগ করা হলে কর্তব্যরত ডিউটি অফিসার এসআই শম্পা ভৌমিক জিডির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তবে পুলিশের ধারণা ট্রাক ড্রাইভার জনৈক আবুল হায়াতই খুন করে লাশটি জঙ্গলে ফেলে গেছে।

বৃহস্পতিবার রাতে কাউখালী থানার তদন্তকারী অফিসার এসআই সালাম জানান, নিহতের লাশ ময়নাতদন্ত করে আগামীকাল শুক্রবার পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হবে এবং বায়েজিদ থানায় মামলার সার্বিক বিষয়ে সহযোগিতা করা হবে।

 

 

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 464 People

সম্পর্কিত পোস্ট