চট্টগ্রাম সোমবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

৭ জানুয়ারি, ২০২১ | ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাদ্য তৈরি: ৬ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

নগরীর তিন থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৬ প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। বুধবার (৬ জানুয়ারি) নগরীর খুলশী, পাহাড়তলী ও আকবরশাহ থানা এলাকার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নকল চেরি, ময়লা ও তেলাপোকাযুক্ত ফিরনি, মেয়াদবিহীন কাটা ঔষধ ও মেয়াদোত্তীর্ণ দই-মিষ্টি রাখায় এ জরিমানা করা হয়। পরবর্তীতে মেয়াদোত্তীর্ণ এসব পণ্য ধ্বংস করা হয়।

পুলিশের এপিবিএন সদস্যদের সহযোগিতায় এ অভিযান পরিচালনা করেন দপ্তরের জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান। অভিযানে আরও উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ফয়েজ উল্যাহ্ ও সহকারী পরিচালক (মেট্রো) পাপীয়া সুলতানা লীজা।

মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান জানান, খুলশী থানার টেকনিক্যাল মোড়ের ফাতেমা ফার্মেসিকে মেয়াদবিহীন কাটাঔষধ সংরক্ষণ করায় চার হাজার টাকা জরিমানা করে মেয়াদবিহীন ঔষধ ধ্বংস করা হয়। পাশাপাশি গ্রিন বেকারিকে পণ্যের প্যাকেটে উৎপাদন, মেয়াদ, মূল্য উল্লেখ না করা ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাদ্য প্রক্রিয়া করায় ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করা হয়।

অন্যদিকে, আকবরশাহ থানার মাজার রোডের মালেক হোটেলকে হাইড্রোজ ব্যবহার করে জিলিপি তৈরি করায় ৬ হাজার এবং মেয়াদোত্তীর্ণ দই ও রসমালাই রাখায় মিয়াজী স্টোরকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ধ্বংস করা হয় মেয়াদোত্তীর্ণ দই ও রসমালাই। অলংকার মোড়ের ফুড স্টোরকে ৩৫ টাকার পানীয় পণ্য ৬৫ টাকায় বিক্রয় ও মেয়াদোত্তীর্ণ রসমালাইয়ের মেয়াদ তুলে বিক্রয় করায় ২০ হাজার এবং ময়লা-আবর্জনাপূর্ণ স্থানে খাদ্যদ্রব্য প্রস্তুত ও সংরক্ষণ, কিচেনে খোলা ডাস্টবিন রাখা, রঙ দেয়া করমচাকে চেরি হিসেবে ব্যবহার, ময়লা ও তেলাপোকাযুক্ত ফিরনি বিক্রয়ের জন্য সংরক্ষণ করায় অলংকার মোড়ের একটি রেস্টুরেন্টকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করার পাশাপাশি সতর্ক করা হয়। জনস্বার্থে এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

 

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 257 People

মন্তব্য দিন :

সম্পর্কিত পোস্ট