চট্টগ্রাম সোমবার, ১২ এপ্রিল, ২০২১

সর্বশেষ:

৪ জানুয়ারি, ২০২১ | ২:২৮ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

ফেনী থেকে অপহরণ, চট্টগ্রামে আটকে রেখে শিশু ধর্ষণের অভিযোগ

অপহরণের ১৪ দিন পর ফেনীর ট্রাঙ্ক রোড থেকে ১১ বছরের এক কন্যাশিশুকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার (৩ জানুয়ারি) দুপুরে পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করে।

এদিকে রবিবার (৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় অপহরণের পর তাকে আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে আদালতে অভিযোগ করে উদ্ধার হওয়া শিশুটি। এ ঘটনায় রাকিব হোসেন (৩৫) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করে করাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

অপহরণ ও ধর্ষণের শিকার ওই শিশু ফেনী শহরের মধ্যম চাড়িপুরে ভাড়াবাড়িতে থাকতো।

ফেনী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন জানান, গত ১৮ ডিসেম্বর রাত ১১টার দিকে ফেনী পৌরসভার মধ্যম চাড়িপুর থেকে ১১ বছরের ওই শিশু নিখোঁজ হয়। ২০ ডিসেম্বর ওই শিশুর মা ফেনী মডেল থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি (জিডি) করেন।

পরে শিশুটি অপহরণকারীদের অজান্তে তাদের একজনের মুঠোফোন থেকে তার বাবার কাছে ফোন করে। ফোনকলের সূত্র ধরে শনিবার মধ্যরাতে চট্টগ্রাম থেকে অপহরণকারী দলের সদস্য শিশুটির প্রতিবেশী মো. রাকিব হোসেনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পরেরদিন রাকিবের দুই সহযোগী শিশুটিকে চট্টগ্রাম থেকে ফেনী শহরের ট্রাঙ্ক রোডে এনে ছেড়ে দেন। পরে পুলিশ সেখান থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে।

ওসি আরও জানান, সন্ধ্যায় শিশুটিকে ফেনীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসেনের আদালতে তুলে ২২ ধারায় তার জবানবন্দি গ্রহণ করা হয়। পরে সেদিনই শিশুটিকে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়।

আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে শিশুটি বলে, ১৮ ডিসেম্বর রাতে চেতনানাশক দিয়ে অচেতন করে প্রতিবেশী রাকিব হোসেন, মামুনসহ তিন যুবক তাকে গাড়িতে তুলে নিয়ে যান। অপহরণের পর প্রথমে তাকে ঢাকার কমলাপুর এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। ঢাকায় তিন দিন রাখার পর শিশুটিকে চট্টগ্রামে নিয়ে যান অপহরণকারীরা। এরপর চট্টগ্রামের নিউমার্কেট এলাকার একটি বাসায় আটকে রেখে রাকিব তাকে ধর্ষণ করেন। বৃহস্পতিবার রাকিব তার ফোন ঘরে ফেলে রেখে বাইরে গেলে শিশুটি তার বাবার কাছে ফোন করে অপহরণের বিষয়টি জানান।

এ ঘটনায় রাকিবকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে এবং বাকি আসামিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে ওসি জানান।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 465 People

সম্পর্কিত পোস্ট