চট্টগ্রাম সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১

৩ জানুয়ারি, ২০২১ | ৫:১৪ অপরাহ্ণ

চবি সংবাদদাতা

দুই বছরেও হয়নি পরীক্ষা, আন্দোলনে চবি শিক্ষার্থীরা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইআর) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষের পরীক্ষা গ্রহণ করার দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে শিক্ষার্থীরা।

রবিবার (৩ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিসের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে তারা। পরে পরীক্ষার সমাধানের আশ্বাসে উপাচার্য বরাবর চার দফা দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করে তারা।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, বিভিন্ন কারণে আমাদের ২০১৯ সালের পরীক্ষা পিছিয়ে গত বছরের ২৫ মার্চ পরীক্ষার দিন ধার্য করে রুটিন প্রদান করা হয়। কিন্তু ১৭ তারিখ থেকেই করোনার কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে গেলে পরীক্ষা স্থগিত হয়ে যায়। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আমরা গত ১৮ অক্টোবর স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য রেজিস্ট্রার বরাবর স্মারকলিপি প্রেরণ করি।

স্মারকলিপিতে আরও বলা হয়, গত নভেম্বরে আমরা ইনস্টিটিউটের সাথে পরীক্ষার ব্যাপারে যোগাযোগ করলে ইন্সটিটিউট আমাদের জানায় ২০১৮-১৯ সেশনের পরীক্ষার ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। অথচ সংস্কৃত বিভাগ গত ২২ ডিসেম্বর ২০১৮-১৯ সেশনের শিক্ষার্থীদের প্রথম বর্ষের পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যেহেতু আমাদের পরীক্ষার রুটিন, প্রশ্নসহ যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন আছে, সেহেতু এখন পরীক্ষা না নেওয়াকে আমরা ইনস্টিটিউটের অবহেলা হিসাবেই দেখি। ইতিমধ্যে প্রথম বর্ষে আমরা ২৪ মাস পার করেছি।

স্মারকলিপিতে উল্লেখিত চারটি দাবি হচ্ছে, জানুয়ারীর ১০ তারিখের মধ্যে পরীক্ষার রুটিন দিতে হবে, পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর পর প্রয়োজনে অনলাইনে দ্বিতীয় বর্ষের ক্লাস শুরু করতে হবে, পরীক্ষা শেষ হওয়ার তিন মাসের মধ্যে পরীক্ষার রেজাল্ট দিতে হবে ও ইনস্টিটিউটের সেশনজট নিরসনে শিক্ষক নিয়োগ, ক্লাসরুম বৃদ্ধিসহ যাবতীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘ইতোমধ্যে প্রথম বর্ষে আমরা ২৪ মাস পার করেছি। এজন্য বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নেমেছি। এখন বিশ্ববিদ্যালয় ও আমাদের ইনস্টিটিউট বলছে তাদের পরীক্ষা নিতে সমস্যা নাই। প্রশাসন আমাদের থেকে দুই দিন সময় নিয়েছে। প্রশাসনের আশ্বাসে আমরা দুই দিনের জন্য অবস্থান কর্মসূচি থেকে সরে এসেছি।’

এ ব্যাপারে প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন,‌ ‌‘শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলেছি। আমরা তাদের ব্যাপারটা নিরসনের জন্য আন্তরিকভাবে চেষ্টা করছি।’

প্রসঙ্গত, বিভিন্ন কারণে আইই‌আরের ২০১৯ সালের পরীক্ষা পিছিয়ে গত বছরের ২৫ মার্চ পরীক্ষার দিন ধার্য করে রুটিন প্রদান করা হয়। কিন্তু ১৭ তারিখ থেকেই করোনার কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে গেলে পরীক্ষা স্থগিত হয়ে যায়। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে গত ১৮ অক্টোবর স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য রেজিস্ট্রার বরাবর স্মারকলিপি প্রেরণ করে শিক্ষার্থীরা।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 501 People

সম্পর্কিত পোস্ট