চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি, ২০২১

২২ ডিসেম্বর, ২০২০ | ১১:৪৪ অপরাহ্ণ

বোয়ালখালী সংবাদদাতা

পীরের ছেলের কাছ থেকে পাওনা টাকা আনতে গিয়ে নিখোঁজ প্রবাসী

রাউজানের উরকিরচর মিয়া ফকিরের বাড়ির মাহাবুব শাহ ফকিরের ছেলে তৈয়ব আলী তার বাবার মুরিদ বোয়ালখালীর কধুরখীল ইউনিয়নের বাচা মিয়া কন্ট্রাক্টরের বাড়ির প্রবাসী নজরুল ইসলামের কাছ থেকে টাকা ধার নেয় এক বছর আগে। বিশেষ প্রয়োজন দেখিয়ে নেয়া এ ধারের পরিমাণ ২২ লক্ষ টাকা। কথা ছিল স্বল্পসময়ে পরিশোধ করবেন তিনি।

পীরের ছেলে বলে কথা, টাকা ধার দিতে এতটুকু কার্পণ্য করেননি নজরুল। তবে এক বছর পেরিয়ে গেলেও তার কোনো কূল কিনারা হয়নি। অনেকবার ধর্ণা দিয়েও উসুল করা যায়নি এ টাকা। সর্বশেষ গত ১৬ ডিসেম্বর ছিল টাকা পরিশোধের তারিখ। যথারীতি বিদেশ ফেরত নজরুল ইসলাম যান রাউজানে পীরের বাড়িতে। তবে রবিবার পর্যন্ত তিনি আর ফেরত আসেননি।

বিজ্ঞাপন

এর মাঝে রয়েছে নজরুল ইসলাম ও পীরের ছেলে তৈয়ব আলীর মোবাইল বন্ধ। তাতে সন্দেহ হলে নজরুল ইসলামের হদিস বের করতে মাঠে নামে তার স্বজনরা। গত রবিবার নিখোঁজের ছেলে বাদি হয়ে থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নিখোঁজের ছেলে মো. মিনহাজুল ইসলাম বলেন, পীরের ছেলে তৈয়ব আলী ও তার ৫ মুরিদের নামে বোয়ালখালী থানায় রবিবার মামলা হয়েছে। তিনি বলেন, ২২ লাখ টাকা ধামাচাপা দিতে বাবাকে অপহরণ করা হয়েছে। এ কাজে তৈয়ব আলীই অন্যতম হোতা।

এ ব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মো. আবুল কালাম জানান, মামলা নেয়া হয়েছে। পুলিশ বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নিয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছে। এরমধ্যে হাটহাজারীর দক্ষিণ মাদার্শার আমান উল্লাহ মিয়াজির বাড়ির মাওলানা মুন্সী মিয়ার পুত্র আবদুস সালাম (৫০) ও চরণদ্বীপ এলাকার মোনাফ সওদাগরের বাড়ির মনসুর আলমের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌসকে (৩৫) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তদন্ত অব্যাহত আছে।

 

 

 

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 155 People

মন্তব্য দিন :

সম্পর্কিত পোস্ট