চট্টগ্রাম সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

১২ ডিসেম্বর, ২০২০ | ১১:০৪ অপরাহ্ণ

মানিকছড়ি সংবাদদাতা

নির্যাতনের ৪ দিন পর গৃহবধূর মৃত্যু হাসপাতালে

বিয়ের এক বছর না যেতেই স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধূর প্রাণ গেল রামগড় সরকারি হাসপাতালে। আকলিমা আক্তার (২০) নামে এই গৃহবধূ গত চার দিন আগে হাসপাতালে ভর্তি হয়। আজ শনিবার (১২ ডিসেম্বর) দুপুর ১টায় হাসপাতালের সিটে কাতরাতে কাতরাতে মৃত্যুবরণ করেন আকলিমা।

নিহত আকলিমা খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলার কালাপান গ্যাসফিল গ্রামের মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেনের ২য় কন্যা।

বিজ্ঞাপন

নিহত গৃহবধূর বড় ভাই মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম পূর্বকোণকে জানান, ২০১৯ সালের শেষের দিকে চট্টগ্রামের ভুজপুর থানার বাগানবাজার ইউনিয়নের লালমাই গ্রামের মরহুম আবদুল লতিফের ছেলে আমজাদ হোসেনের (২৫ ) সাথে বিয়ে হয় আকলিমার।

আকলিমার স্বামী সাইফুল ইসলাম মাদকাসক্ত দাবি করে তার বড় ভাই আরও জানান, বিয়ের পর থেকেই আমার বোনকে নানা অযুহাতে অকাট্য ভাষায় গালমন্দ ও নির্যাতন করতো। অসহ্য নির্যাতনের কথা প্রায়ই আমাদের ফোন করে জানাতো আকলিমা। তার চাহিদা অনুযায়ী টাকা পয়সাও দিয়ে আসছে আমাদের পরিবার। টাকা পয়সা দিলে কিছুদিন নির্যাতন বন্ধ থাকতো। এভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের পরও আমরা আকলিমাকে ধৈর্য ধরে সংসার করার পরামর্শ দিতাম।

তিনি আরও জানান, গত বুধবার (৯ ডিসেম্বর) নেশাগ্রস্ত অবস্থায় আমজাদ এবং তার মা আকলিমাকে মারধর করে। তারপর জোরপূর্বক মুখে বিশ ঢেলে দিয়ে নিজে আত্মহত্যা করেছে বলে আমাদের ফোন দিয়ে জানায়। সে সময় আমার বোনের আর্তচিৎকারের কন্ঠ ফোনে শুনতে পাই। নির্যাতনের এক পর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে সবাই পালিয়ে যায়। পরে প্রতিবেশি ও আমজাদের বড় ভাই সাদ্দাম রামগড় সরকারি হাসপাতালে আকলিমাকে ভর্তি করে চলে যান। শারীরিক যন্ত্রণা নিয়ে ৪ দিন পর আজ দুপুরে মারা যান আকলিমা। আমজাদ বর্তমানে পলাতক রয়েছেন।

এই রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত ফটিকছড়ির ভুজপুর থানায় তাদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়।

রামগড় থানার এসআই আনোয়ার হোসেন জানান, পারিবারিক সমস্যার কারণে মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটতে পারে। এ বিষয়ে নিহতের পরিবারের লোকজন ভুজপুর থানায় মামলা করবে বলে আমাদের জানিয়েছেন।

 

পূর্বকোণ/এন.এইচ-ইসমাইল

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 161 People

সম্পর্কিত পোস্ট