চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২১

৫ ডিসেম্বর, ২০২০ | ৩:৩০ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

ফেসবুক আইডি হ্যাক করে প্রতারণা, স্বামী-স্ত্রী গ্রেপ্তার

ফেসবুক আইডি হ্যাক করে টাকা আদায়ের মাধ্যমে প্রতারণার অভিযোগে হবিগঞ্জ থেকে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে সিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। এসময় তাদের কাছ থেকে দুইটি এন্ড্রয়েড মোবাইল সেট, ৬টি ভুয়া রেজিস্টার্ড সিম কার্ড উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া তাদের মোবাইলে অর্ধশত ফেসবুক আইডির লগইন এবং হ্যাকিং সংক্রান্ত তথ্য পাওয়া গেছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- আসাদুজ্জামান পলাশ (২১) ও তার স্ত্রী সাদিয়া সরকার (২১)।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুর দেড়টায় সিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান উপ-পুলিশ কমিশনার মো. হামিদুল আলম।

তিনি জানান, গত ২৬ নভেম্বর ভিকটিমের ছোট বোন তার হ্যাক হওয়া আইডি পুনরুদ্ধার করার জন্য বিভিন্ন সাইট খোঁজার পর একটি পেইজের সন্ধান পান। পরে ফেসবুক পেইজ ব্যবহারকারী নিজেকে তানজিলা আক্তার তুলি বলে পরিচয় দেয়। তুলি ভিকটিমের ফেসবুক মেসেঞ্জারে ফোন করে আইডি পুনরুদ্ধার করার জন্য টাকা দাবি করে। ভিকটিম একটি বিকাশ নাম্বারে দাবিকৃত টাকাও পাঠান।

২৮ নভেম্বর রাত ৩টায় ওই মহিলা ফেসবুক মেসেঞ্জার থেকে ভিকটিমকে ফোন করে বলে ফেসবুক ৫ মিনিট সময় দিয়েছে আইডি রিকভারি করতে। তবে এজন্য জয়েন্ট একাউন্ট লাগবে জানিয়ে একটি লিংক পাঠানো হয়। ওই লিংকে ভিকটিমের ব্যবহৃত ফেসবুক আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে লগইন করার জন্য বলে তানজিলা।
 
ভিকটিম ওই লিংকে ফেসবুক আইডি ও পাসওয়ার্ড দেওয়া মাত্রই ভিকটিমের ব্যবহৃত ফেসবুক আইডি লগ আউট হয়ে তার একাউন্টও হ্যাক হয়ে যায়। এরপর ভিকটিম অন্য একটি ফেসবুক আইডি থেকে তানজিলাকে মেসেঞ্জারে ফোন করলে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি জানায়, ভিকটিমের আইডি সে হ্যাক করেছে।

পরে ওই হ্যাকার ভিকটিমকে অশ্লীলভাবে মেসেঞ্জারে ভিডিও কল করার জন্য প্রস্তাব দেয়। হ্যাকারের প্রস্তাবে রাজি না হলে সে মেসেঞ্জারে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে হ্যাক হওয়া ফেসবুক থেকে ভিকটিমের স্বামী ও তার ব্যক্তিগত ছবি সংগ্রহ করে তা ইন্টারনেটে ভাইরাল করার হুমকি দেয়। এমনকি ভিকটিমের নামে পর্ণ ওয়েবসাইট খুলে তা ছড়িয়ে দেওয়ার কথা বলে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করে। টাকা না পেয়ে হ্যাকার হ্যাক করা আইডি থেকে ভিকটিমের বন্ধু ও আত্মীয়-স্বজনের কাছে ব্যক্তিগত ছবি এবং ভিডিও অশ্লীলভাবে এডিট করে প্রেরণ করে।  

এ ঘটনায় ভিকটিম ৩ ডিসেম্বর হালিশহর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করলে সিএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিট হবিগঞ্জের মাহমুদাবাদ থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে। সাইবার ক্রাইম টিমকে সহায়তা করে হবিগঞ্জ জেলার গোয়েন্দা বিভাগ।

কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. হামিদুল আলম বলেন, এই দম্পত্তি বিভিন্ন ফেসবুক আইডি রিকভার করে দেওয়ার নামে, ফেসবুক পেইজ বুস্ট, ফেসবুক আইডি ভেরিফাইড এবং পেইজের ফলোয়ার বাড়ানোর চটকদার বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে কৌশলে আইডি হ্যাক করে। পরে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য, ছবি, ভিডিও সংরক্ষণ করে পর্ণ সাইটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করত। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা বিষয়টি স্বীকারও করেছে।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 182 People

মন্তব্য দিন :

সম্পর্কিত পোস্ট