চট্টগ্রাম শনিবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

৩ ডিসেম্বর, ২০২০ | ৫:৩৬ অপরাহ্ণ

সৌমিত্র চক্রবর্তী, সীতাকুণ্ড

কাউন্সিলরে দলীয় মনোনয়ন না দেওয়ার আহ্বান প্রার্থীদের

সীতাকুণ্ডে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র ও কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন দাখিল করা ৮৭ প্রার্থীর যাচাই বাছাইশেষে বৈধ প্রার্থীর তালিকা  প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশন । এদিকে সীতাকু-ে এসে পৌঁছেছে ২১৪টি ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম)। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, সীতাকুণ্ডে পৌরসভা নির্বাচনে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে ইতিমধ্যে ৮৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এসব প্রার্থীদের মধ্যে ৩ জন দাখিল করেছেন মেয়র পদে। অন্যদের মধ্যে ৭১ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ১৩ জন সংরক্ষিত মহিলা আসনে।

আজ (বৃহস্পতিবার) এসব প্রার্থীদের জমা দেওয়া তথ্যের নথিপত্র যাচাই বাছাই করবেন নির্বাচন অফিসার। যাচাই বাছাইশেষে যাদের প্রয়োজনীয় নথি সঠিক থাকবে তাদের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হবে। এদিকে বিভিন্ন প্রার্থীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, মেয়র পদে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি একক প্রার্থী ঘোষণা করায় তারা অনেকটা নিশ্চিত হলেও যাচাই বাছাইয়ের চেয়েও পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে বেশি উদ্বিগ্ন হয়ে আছেন আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থীরা। কারণ, প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে ৮-১০ বা তার চেয়েও বেশি আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। দলের নেতাকর্মীরা এসব প্রার্থীর মধ্যে বেশিরভাগ প্রার্থীকে সরিয়ে দিয়ে কাউন্সিলর পদেও একক প্রার্থী দিতে পারেন এমন আশংকায় করছেন সংশ্লিষ্টরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছিুক বেশ কয়েকজন প্রার্থী এই অভিযোগ তুলে বলেন, মেয়র পদে একক প্রার্থী দেওয়া হয়েছে। এতেই নির্বাচনের আমেজ অনেকটা ম্লান হয়ে গেছে। কাউন্সিলর পদেও একক প্রার্থী দিলে প্রার্থী সংখ্যা একেবারেই কমে আসবে এবং তাতে নির্বাচনের আমেজ কমে যাবে। তাই কাউন্সিলর পদটি দলীয়ভাবে মনোনয়ন না দিয়ে উন্মুক্ত রাখলে জনগণও পৌর নির্বাচনের আমেজ পাবে। নির্বাচন সুন্দর হবে। এদিকে প্রার্থীদের টেনশনের মধ্যেই দিনরাত নির্বাচন নিয়ে কাজ করে চলেছে উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিস।

সীতাকুণ্ড পৌরসভা নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন কর্র্মকর্তা বুলবুল আহমেদ জানান, আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত যাচাই বাছাই করা হবে। মূলত ঋণখেলাপি, পৌরসভার পাওনা পরিশোধ করা, সাজাপ্রাপ্ত আসামি, হলফনামা না থাকা বা ভুল থাকা ও ট্যাক্স খেলাপির বিষয়গুলোকে বিবেচনায় নিয়ে মনোনয়ন যাচাইশেষে সন্ধ্যায় বৈধ প্রার্থীর তালিকা প্রকাশ করা হবে। এদিকে প্রার্থী তালিকা চূড়ান্তকরণের কাজের পাশাপাশি নির্বাচনী সরঞ্জামও আনা শুরু হয়েছে। বুধবার মোট ২১৪টি ইভিএম মেশিন আনা হয়েছে এখানে। আরো আনা হয়েছে ৫০টি মোবাইল ট্যাব। নির্বাচন কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ আরো জানান, এখানে ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোট কক্ষ ৯৬টি। তবুও ইভিএম ত্রুটির ঝুঁকি এড়াতে মোট ২১৪টি ইভিএম আনা হয়েছে। যাতে ভোটগ্রহণ কোনভাবে ব্যাহত না হয়।

সীতাকুণ্ডে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন রায় বলেন, এখন পর্যন্ত পৌর নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী প্রার্থীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করছি আমরা। সময়ের সাথে এ উদ্দীপনা আরো বৃদ্ধি পাবে। আমরা সরকারের নির্দেশনা মেনে আসন্ন নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও সুন্দর করতে প্রস্তুতি চালিয়ে যাচ্ছি।

পূর্বকোণ/এন.এইচ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 147 People

সম্পর্কিত পোস্ট