চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

২৪ নভেম্বর, ২০২০ | ২:০১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্ক্র্যাপ ঘোষণায় বন্দরে এল কনক্রিট ব্লক

সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে ৫৩৬ টন স্ক্র্যাপ আনার ঘোষণা দিয়েছিল কুমিল্লা বুড়িচংয়ের ময়নামতি বাজারের সিন্দুরিয়া পাড়ার সাকুরা স্টিল লিমিটেড। কিন্তু স্ক্র্যাপ না এসে এসেছে ১১৫ টন কনক্রিট ব্লক।  চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস কর্তৃপক্ষ ওই চালানের ২০টি কনটেইনার আটক করেছে।

কাস্টম হাউস সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লার বুড়িচংয়ের ময়নামতি বাজারের সিন্দুরিয়া পাড়ার সাকুরা স্টিল লিমিটেডের নামে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে ৫৩৬ টন স্ক্র্যাপ আমদানির জন্য রুপালী ব্যাংকের দিলকুশা শাখায় একটি ঋণপত্র (এলসি) খোলা হয়। এলসিতে পণ্যের মূল্য ধরা হয় ১ লাখ ৭১ হাজার ৫৭৪ মার্কিন ডলার যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১ কোটি ৪৫ লাখ টাকা।  

এলসির আওতায় গত ২১ এপ্রিল দুবাইর জাবেল আলি বন্দর থেকে এমভি স্মাইলি লেডি জাহাজ যোগে ইস্পাত শিল্পের কাঁচামাল হিসেবে স্ক্র্যাপ ঘোষণায় ২০টি কনটেইনার চট্টগ্রাম বন্দরে আসে। শিল্পের কাঁচামাল হওয়ায় দ্রুত খালাসের লক্ষ্যে কনটেইনারগুলো সিসিটিসিএল ডিপোতে (বেসরকারি অফডক) পাঠানো হয়।

পণ্য খালাসের লক্ষ্যে আমদানিকারক দীর্ঘদিন কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় এবং কাস্টম হাউস কর্তৃপক্ষের কাছেও কোনো ডকুমেন্ট দাখিল না করায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের অডিট, ইনভেস্টিগেশন এন্ড রিসার্চ (এআইআর)টিম কনটেইনারগুলো পরীক্ষার উদ্যোগ নেয়। কনটেইনার খুলে ৫৩৬ টন স্ক্র্যাপের পরিবর্তে বাণিজ্যিকভাবে মূল্যহীন কিংবা স্বল্পমূল্যের ১১৫ টন কনক্রিট ব্লক পাওয়া যায়। 

এআইআর শাখার সহকারী কমিশনার রেজাউল হিল্লোল পূর্বকোণকে জানান,  এ চালানে ১ কোটি ৪৫ লাখ টাকা পাচারের প্রচেষ্টা ছিল কিনা অথবা রপ্তানিকারক এ দেশীয় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে প্রতারণা করেছে কিনা তা অনুসন্ধান করবে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের এন্টি মানিলন্ডারিং ইউনিট।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 139 People

সম্পর্কিত পোস্ট