চট্টগ্রাম সোমবার, ০৮ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

৬ নভেম্বর, ২০২০ | ২:০৫ অপরাহ্ণ

ইমরান বিন ছবুর 

প্রতারণার নতুন ফাঁদ নগরীতে

বিকি নাথ। নগরীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয়ের খরচ মেটাতে টিউশন খুঁজছিলেন। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের একটি গ্রুপে ‘টিচার প্রয়োজন’ একটি পোস্ট দেখেন বিকি নাথ। টিউশনটি বাসার পাশে হওয়ায় আগ্রহ বাড়ে বিকি নাথের। এরপর পোস্টদাতা (মিডিয়া) আনিশা ফারিয়ার সাথে মেসেঞ্জারে যোগাযোগ করেন এই শিক্ষার্থী। এক পর্যায়ে টিউশন কনফার্ম করলে গার্ডিয়ানের নাম্বার দেন আনিশা ফারিয়া। তবে শর্ত হচ্ছে টিউশন কনফার্ম হলে প্রথম মাসের বেতনের ৫০ শতাংশ দিতে হবে মিডিয়াকে। বিকি নাথ গার্ডিয়ানের সাথে কথা বলে ৬ হাজার টাকায় টিউশন কনফার্ম করেন। এরপর পূর্বশর্ত অনুযায়ী পোস্ট দাতাকে (মিডিয়া) বিকাশে দুই হাজার টাকা প্রদান করেন বিকি নাথ। শর্তের বাকি এক হাজার টাকা মাস শেষে টিউশনের বেতন পেলে দেবে। কিন্তু বিকাশের মাধ্যমে দুই হাজার টাকা প্রদানের পর ঘটে ভিন্ন ঘটনা।  সময় অনুযায়ী টিউশনে যাওয়ার জন্য বিকি নাথ গার্ডিয়ানকে ফোন করলে নাম্বার দুটি বন্ধ পাওয়া যায়। এরপর আনিশা ফারিয়ার (মিডিয়া) নাম্বারে ফোন করা হলে সেটিও বন্ধ পান ওই শিক্ষার্থী। বিকি নাথের বুঝতে আর বাকি রইলো না, তিনি প্রতারকের খপ্পরে পড়েছেন। এরপর তার সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনা ফেসবুকের জনপ্রিয় গ্রুপ ডেসপারেটলি সিকিং চিটাগাং (ডিএসসি) এ পোস্ট করেন। সেই পোস্টে একাধিক ভুক্তভোগী কমেন্টে তাদের অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেন। একইসাথে এই প্রতারকের ফাঁদে পা না দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন তারা।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে ভুক্তভোগী বিকি নাথ বলেন, ফেসবুকের একটি গ্রুপে টিউশনের খবর পেয়ে পোস্টদাতার সাথে যোগাযোগ করি। মিডিয়া ও গার্ডিয়ানের সাথে কথা বলে টিউশন কনফার্ম করার পর শর্ত অনুযায়ী দুই হাজার টাকা বিকাশে প্রেরণ করি। এরপর যোগাযোগ করতে চাইলে মিডিয়া ও  গার্ডিয়ানের নাম্বার বন্ধ পাই। ০১৮১০৪৫৬৮৪০ এই নাম্বারটি থেকে ফোন করে টিউশন দেয়ার কথা বলে আরো অনেকের থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। এছাড়া গার্ডিয়ানের নাম্বার হিসেবে ০১৮৩৯৫৯৬০৭৮ ও ০১৪০৮৬৬০৮৩০ এই দুটি নাম্বার থেকে কথা বলেছে। আর বিকাশের জন্য ০১৮২০৬৮৬০৪০ এই নাম্বার ব্যবহার করা হচ্ছে।”   সম্প্রতি টিউশন খুঁজতে গিয়ে প্রতারণার শিকার হয়েছেন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজে পড়ুয়া একাধিক শিক্ষার্থী। এদের মধ্যে প্রতারণার শিকার হওয়া আকলিমা আক্তার রিতু, শাওন, রিদুয়ান আশফিক চৌধুরী, উম্মে হাবিবা, সায়েমা এনি চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটে অভিযোগ করেছেন।

ভুক্তভোগী এসব শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রতারক কখনো নিজেকে জান্নাতুল ফেরদৌস, কখনো আনিশা ফারিয়া পরিচয় দেয়। তবে নাম ভিন্ন হলেও ব্যক্তি একজনই। ভুক্তভোগী সব শিক্ষার্থীকে একই নাম্বার থেকে ফোন করেছে এবং গার্ডিয়ান ও বিকাশের নাম্বার একই। মূলত সিটি টিউশন মিডিয়া (অনলি ফর চট্টগ্রাম) এই গ্রুপটি থেকে প্রতারণা করা হচ্ছে। ভুক্তভোগীরা এই প্রতারককে আইনের আওতায় আনতে গণমাধ্যমের মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাহায্য চেয়েছেন। 

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সিএমপি’র কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের এক কর্মকর্তা জানান, সম্প্রতি টিউশন দেয়ার কথা বলে শিক্ষার্থীর কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে আমরা তদন্ত করছি।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 261 People

সম্পর্কিত পোস্ট