চট্টগ্রাম বুধবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

৩ জুন, ২০১৯ | ২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

আল-আমিন সিকদার

বিনা টিকিটে রেল ভ্রমণ গার্ড রুম ও ক্যান্টিনে

রেলপথে ঈদযাত্রা রেলের গার্ড রুমে জনপ্রতি ভ্রমণ মূল্য ৩০০ ও ক্যান্টিনে ২৫০ টাকা

ট্রেন ছাড়ার আগ মুহূর্তে স্টেশনে প্রবেশ করার প্রধান ফটকটি ছাড়া বাকি সব ফটকগুলো রাখা হয় বন্ধ অবস্থায়। যাতে বিনা টিকিটে কোন যাত্রী স্টেশনে প্রবেশ করতে না পারে। তবে ঈদ উপলক্ষে যাত্রীদের চাপ কমাতে প্রধান ফটকটির পাশাপাশি পুরাতন স্টেশনের গেইট দুটিও খোলা রাখা হয়। তবে সেখান থেকেও যাতে করে কোন যাত্রী বিনা টিকিটে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য প্রতিটি গেইটে দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায় রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের। তবে তাদের দায়িত্ব দেখে মনে হবে শিয়ালকে যেন মুরগী দেখে রাখার দায়িত্ব দিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

কারণ বিনা টিকিটের যাত্রীদের শুধু প্রবেশ করার সুযোগ দেয়া নয়, তাদেরকে নিজ গার্ড রুমে বসিয়ে যাত্রার ব্যবস্থাও করে দিতে দেখা যায় তাদের। গতকাল বিকাল ৫টায় স্টেশনে সরেজমিনে দেখা যায়, প্লাট ফর্মের দুই পাশে চট্টগ্রাম ছেড়ে যেতে অপেক্ষা করছে ঢাকাগামী সোনার বাংলা ও চাঁদপুরগামী মেঘনা এক্সপ্রেস। ট্রেন দুটিতে যাত্রা করতে স্টেশনের প্রধান প্রবেশ পথের পাশাপাশি ভিন্ন পথ দিয়ে প্লাট ফর্মে প্রবেশ করতে থাকে যাত্রীরা। তবে ভিন্ন পথ দিয়ে প্রবেশের ক্ষেত্রে গেটে থাকা রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের টিকিট দেখাতে হয় যাত্রীদের। তবে টিকিট দেখাতে ব্যর্থ হওয়া এমন বেশ কয়েকজন যাত্রীকে পুরাতন স্টেশন দিয়ে প্রবেশের সুযোগ দেয়ার পাশাপাশি তাদের ট্রেনে নিরাপদে ভ্রমণের ব্যবস্থা করে দিতেও দেখা যায় কয়েকজন রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের। মেঘনা এক্সপ্রেসের গার্ড রুমে ৩০০ টাকার বিনিময়ে টিকিট বিহীন এসব যাত্রীদের নিরাপদে ভ্রমণের সুযোগ করে দিতে দেখা যায় তাদের। এ সময় প্লাট ফর্মে থাকা আরো কয়েকজন টিকিট বিহীন যাত্রীকে গার্ড রুমে টাকার বিনিময়ে বসিয়ে দেয়ার প্রস্তাব দিতে দেখা যায় সাদ্দাম নামে রেলওয়ের এক নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যকে। গার্ড রুমের এ চিত্র ক্যামেরাবন্দি করতে গেলে প্রতিবেদকের মোবাইল ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে সাদ্দাম নামে নিরাপত্তা বাহিনীর ওই সদস্য। পরে প্রতিবেদকের সাথে থাকা অন্যান্য মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকরা প্রতিবাদ করলে নিরাপত্তা বাহিনীর ওই সদস্য চলন্ত ট্রেনে ওঠে চলে যায়।
রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আমান উল্লাহ পূর্বকোণকে বলেন, ‘গার্ড রুমে যাত্রী বসার কোনো নিয়ম নেই। তবুও গার্ড রুমে যাত্রী বসিয়ে এবং সাংবাদিকের সাথে অসৎ আচরণ করে সাদ্দাম নামে ওই সদস্য ভুল করেছেন। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।
শুধু নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরাই নয়, ট্রেনে থাকা ক্যান্টিনের বগিতে টিকিট বিহীন যাত্রীদের ২৫০ টাকার বিনিময়ে ভ্রমণের সুযোগ করে দিতে দেখা যায় ক্যান্টিনে কর্মরত সদস্যদের। তবে স্টেশনে কর্মরত টিটি এবং ট্রেনটির একজন ‘এটেনডেন্ট’ এ বিষয়টি দেখেও কেন কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না জানতে চাইলে রাসেল নামে ওই এটেনডেন্ট পূর্বকোণকে বলেন, ‘ক্যান্টিনের বগিটি ইজারা দেয়া হয়েছে। ওখানে ওনারা কি করে, না করে, ওগুলো আমাদের দেখার বিষয় না।’
স্টেশন ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ পূর্বকোণকে বলেন, গার্ড রুম এবং ক্যান্টিনে যারা ভ্রমণ করেছে তা অবৈধ। আমি এখনই ট্রেনটিতে থাকা দায়িত্বরত টিটিকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলে দিচ্ছি। এছাড়া গতকাল আন্তঃনগর ট্রেনে করে সাড়ে চার হাজার মানুষ চট্টগ্রাম ছেড়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 384 People

মন্তব্য দিন :

সম্পর্কিত পোস্ট