চট্টগ্রাম শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারি, ২০২১

২ জুন, ২০১৯ | ২:৫৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা , চন্দনাইশ

অপহরণের ৫ দিন পর শিশু রিয়াদের লাশ উদ্ধার, আটক ৩

চন্দনাইশের পশ্চিম ধোপাছড়ি থেকে ৯ বছরের শিশু মো. রিয়াদকে অপহরণের ৫দিন পর গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত মিয়ানমারের নাগরিক রহিম মোল্লা ও সন্দেহজনক অপর ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
জানা যায়, গত ২৮ মে পশ্চিম ধোপাছড়ির মো. জাকরিয়ার ৯ বছরের শিশু মো. রিয়াদ সকালে বেরিয়ে পার্শ্ববর্তী সড়কে গেলে মিয়ানমারের নাগরিক অলি মিয়ার ছেলে রহিম মোল্লা (৩০) রিয়াদকে চকলেট দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়। বিকেল পর্যন্ত জাকরিয়া বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজির পর ১টি মোবাইল ফোন থেকে রিয়াদকে পেতে হলে ১ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে ১টি বিকাশ নাম্বার দেয়। পরে জাকরিয়া নিরুপায় হয়ে তার ছেলেকে উদ্ধারের জন্য থানা পুলিশের আশ্রয় নেন। জাকরিয়া ধোপাছড়ি বাজারের একজন শুঁটকি ব্যবসায়ী। এ
ব্যাপারে জাকরিয়া বাদি হয়ে রহিম মোল্লাকে আসামি করে গত ৩০মে চন্দনাইশ থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন। মামলার সূত্র ধরে মোবাইল ট্রেকিংয়ের মাধ্যমে পুলিশ কক্সবাজারের রামুর পাহাড়ি এলাকা থেকে গত ৩০ মে বিকেলে রহিম মোল্লাকে আটক করে। রহিম মোল্লার পুলিশকে দেয়া তথ্য অনুযায়ী রিয়াদকে সে তার মামা মিয়ানমারের নাগরিক ওসমানের নিকট হস্তান্তর করে। সে রামু ঈদঘর এলাকায় রয়েছে। পুলিশ উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প, রামু, চকরিয়া, টেকনাফ, কক্সবাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় ওসমানকে খোঁজেও পায়নি। তবে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রহিম মোল্লার সৎ খালার সাথে দেখা হয়। সে জানায়, রহিম মোল্লার পিতা-মাতা-বোন ক্যাম্পের কোথায় থাকে বলতে পারবে না। তবে, রহিম মোল্লার সৎ মামা ওসমান কক্সবাজারে রয়েছে। পুলিশ ৩০ মে রাতে তার দেয়া ঠিকানায় ওসমানের মা-বোনকে পেলেও ওসমানকে পায়নি। থানা অফিসার ইনচার্জ কেশব চক্রবর্ত্তী বলেছেন, অপহরণের সংবাদ পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিক অপহরণকারীকে আটক করার জন্য উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প, রামু, চকরিয়া, টেকনাফ, কক্সবাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় ওসমানকে খোঁজতে অভিযান চালায়। রামু থেকে অপহরণকারী রহিম মোল্লাকে আটক করা হয়। তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত সন্দেহভাজন মিসয়ানমারের নাগরিক আমান উল্লাহ ও বাঁচা মিয়াকে আটক করা হয়েছে। গতকাল ১ জুন রহিম মোল্লার দেয়া তথ্য অনুযায়ী ধোপাছড়ি পুলিশ ফাঁড়ির পিছনে পরান জুরানীর আগায় বেট্টা সওদাগরের ফিশারির পাশ থেকে গলিত অবস্থায় রিয়াদের লাশ উদ্ধার করা হয়। প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত রহিম মোল্লাকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 263 People

সম্পর্কিত পোস্ট