চট্টগ্রাম বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১

সর্বশেষ:

৩০ মে, ২০১৯ | ৩:১১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা , হাটহাজারী

বাবুনগরীর প্রশ্ন

শুধু মাদরাসায় কেন উগ্রবাদ বিরোধী রচনা প্রতিযোগিতা?

হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন, গণমাধ্যমে প্রচারিত এমন একটা খবর আমাদের নজরে এসেছে, যাতে বলা হয়েছে- ‘মাদরাসা শিক্ষার্থীদের জন্য উগ্রবাদবিরোধী রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট’। কিন্তু এই প্রতিযোগিতা থেকে দেশের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়সহ সাধারণ শিক্ষার ছাত্র-ছাত্রীদেরকে বাদ রাখা হয়েছে। পুলিশের এমন এক তরফা উদ্যোগে দেশের আলেম সমাজ ও লাখ লাখ মাদরাসা শিক্ষার্থীসহ সাধারণ জনতার মনে গভীর উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। গতকাল বুধবার এক বিবৃতিতে হেফাজত মহাসচিব আরো বলেন, গত ২৫ মে ডিএমপির মিডিয়া ও পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের প্রচারিত বিবৃতিতে স্পষ্ট বলা হয়েছে যে, ‘এ উদ্দেশ্যে মাদরাসা শিক্ষার্থীদের মধ্যে সহিংস উগ্রবাদবিরোধী সচেতনতা সৃষ্টির জন্য ‘সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধে ইসলামী শিক্ষা’ শীর্ষক রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে’।
তিনি বলেন, আমাদের প্রশ্ন, পুলিশ স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন সচেতনতা তৈরির প্রয়োজন মনে করল না কেন? অথচ গুলশানের হলি আর্টিজানের ভয়াবহ সন্ত্রাসী ঘটনাসহ এ পর্যন্ত বাংলাদেশে যেসব উগ্রবাদি ঘটনা সংঘটিত হয়েছে, তার কোনটির সাথেই মাদ্রাসা ছাত্রদের সংশ্লিষ্টতা দেখা যায়নি।
আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ ডিএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, অবিলম্বে মাদ্রাসা শিক্ষা, আলেম-উলামা ও ইসলামী শিক্ষার প্রতি নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টিকারী এ প্রতিযোগিতা বন্ধ করুন। এই প্রতিযোগিতা বহাল থাকলে দেশের আলেম সমাজ ও জনগণের মনে পুলিশের ভূমিকা সম্পর্কে যেমন সংশয় জাগবে, তেমনি ভাবমূর্তিকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে।
তিনি বলেন, শিক্ষার্থী তরুণ-কিশোরদের মধ্যে সহিংস উগ্রবাদ বিরোধী সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রতিযোগিতার প্রয়োজন মনে করা হলে, এতে স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটির সাথে প্রয়োজনে মাদ্রাসার ছাত্রদেরকেও শামিল করুন। তাতে কারোরই আপত্তি থাকবে না।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 454 People

সম্পর্কিত পোস্ট