চট্টগ্রাম বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

সর্বশেষ:

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ৬:৩৯ পূর্বাহ্ণ

সৌমিত্র চক্রবর্তী হ সীতাকু-

শ্বশুরবাড়ি যাওয়া হলো না তুশার

অনেক স্বপ্ন নিয়ে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলো তুশা। কিন্তু এখনো শ^শুর বাড়িতে যাওয়া হয়নি। অল্পদিনের মধ্যেই যাবার কথা। কিন্তু তা আর হলো না। প্রেমিকের মায়ের যৌতুক দাবির কাছে হার মেনে শেষে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে সব স্বপ্ন বিসর্জন দিলেন এই তরুণী। এ ঘটনায় প্রেমিক ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। নিহত জান্নাতুল ফেরদৌস তুশা (১৮) সীতাকু- উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের অস্থায়ী বাসিন্দা মো. রফিকের মেয়ে।

জানা যায়, তুশার সাথে উপজেলার শীতলপুরের লালবাগ এলাকার জাফর ইকবালের ছেলে ইমতিয়াজ হোসেন শিবলুর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিলো। এই সম্পর্ককে স্থায়ী রূপ দিতে কয়েকমাস আগে কোর্ট ম্যারেজের মাধ্যমে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তারা। কিন্তু শিবলুর পরিবার এ বিয়ে মানতে চায়নি। শেষে বিশাল যৌতুকের শর্তে বিয়ে মানতে রাজি হন প্রেমিক শিবলুর মা। এ নিয়ে প্রেমিকের সাথে মতানৈক্য তৈরি হতে থাকে তুশার।

দুইদিন আগে প্রেমিক শিবলু ফোন করে তুশাকে বলে আমার মায়ের চাওয়া দাবিগুলো যদি পূরণ করতে না পার তাহলে তোমাকে ডিভোর্স দেওয়া হবে। তুশা শিবলুকে জানায় তাদের পক্ষে এত যৌতুক দেওয়া সম্ভব নয়।

গত বৃহস্পতিবার বিকেলে তাদের দুই জনের মধ্যে মোবাইলে বেশ তর্ক-বিতর্ক হয়। এর এক পর্যায়ে তালাকের কথা শুনে অভিমানে সন্ধ্যায় গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে তুশা।

সীতাকু- থানার ওসি মো. ফিরোজ হোসেন মোল্লা বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে আমরা খবর পাই যে তুশা আত্মহত্যা করেছে। রাতেই আমরা লাশ উদ্ধার করেছি। এ ঘটনায় প্রেমিক শিবলু ও তার মা মাজেদাসহ পরিবারের বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে মেয়েটির বাবা মো. রফিক।

The Post Viewed By: 101 People

সম্পর্কিত পোস্ট