চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২১

২২ মে, ২০১৯ | ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চলবে ২৬ মে পর্যন্ত

প্রতিদিন মিলবে রেলের ১২ হাজার আগাম টিকিট

ঈদ উপলক্ষে আজ থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু করবে রেল কর্তৃপক্ষ। আজ সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত রেল স্টেশনে অগ্রিম টিকেট দিবে কাউন্টারগুলো। এই অগ্রিম টিকিট বিক্রি চলবে আগামী ২৬ মে পর্যন্ত। আর প্রতিদিন এপস্ ও কাউন্টার যোগে ১২ হাজার টিকিট সংগ্রহ করতে পারবে যাত্রীরা। তবে এপস্ এ শুধুমাত্র আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট থাকবে এবং সেখান থেকে ৫০ শতাংশ টিকিট সংগ্রহ করা যাবে বলে জানিয়েছেন রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা মো. আনসার আলী।
প্রথম দিন ২২মে দেয়া হবে ৩১ মে’র অগ্রিম টিকেট, এরপর যথাক্রমে ২৩, ২৪, ২৫ ও ২৬ মে দেয়া হবে ১, ২, ৩ ও ৪ জুনের অগ্রিম টিকেট। এছাড়া ২৯ মে থেকে ২জুন পর্যন্ত দেয়া হবে ৭ থেকে ১১ জুনের ট্রেনের অগ্রিম ফিরতি টিকেট। যা এপস্ এর পাশাপাশি স্টেশন থেকে সংগ্রহ করতে পারবে যাত্রীরা।
বাণিজ্যিক কর্মকর্তা মো. আনসার আলী পূর্বকোণকে বলেন, ‘প্রতিদিন এপস্ ও কাউন্টার যোগে ১২ হাজার টিকেট সংগ্রহ করতে পারে যাত্রীরা। তবে এপস্ শুধুমাত্র আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট থাকবে। আর এপস্ থেকে ৫০ শতাংশ টিকিট সংগ্রহ করা যাবে। এছাড়া টিকেট শেষ হয়ে গেলেও যাত্রার দিন ‘স্ট্যান্ডিং’ টিকেট সংগ্রহ করতে পরবে যাত্রীরা। তবে একজন যাত্রী সর্বোচ্চ একটি এনআইডি দিয়ে ৪টি টিকেট সংগ্রহ করতে পারবে বলে জানান তিনি।
তিনি আরো বলেন, প্রতিবছরের মত এবারো ঈদ উপলক্ষ্যে বাড়তি কোচের ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। তাই চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুরগামী ২টি স্পোশাল ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশাপাশি থাকবে মেইল ট্রেন ও লোকাল ট্রেনগুলোও।
রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিন ঢাকাগামী সুবর্ণ এক্সপ্রেস ট্রেনের সর্বমোট ১০০৯টি সিটের অগ্রিম টিকেট ক্রয় করতে পারবে যাত্রীরা। এভাবে যথাক্রমে ঢাকাগামী মহানগর গোধূলী ট্রেনের ৮৫৭টি, তূর্ণা নিশিতা ট্রেনের ৭৪৬টি, সোনার বাংলা ট্রেনের ৬৯৯টি, মহানগর এক্সপ্রেসের ৮১১টি, নোয়াখালী থেকে ঢাকাগামী উপকূল ট্রেনের ৯৩৭টি, চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহগামী বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের ৮৭১টি, চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুরগামী মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনের ৯৫৮টি, চট্টগ্রাম থেকে সিলেটগামী উদয়ন এক্সপ্রেস ও পাহাড়িকা এক্সপ্রেসের ৬৮০টি করে ১৩৬০টি টিকেট অগ্রিম ক্রয় করতে পারবে যাত্রীরা।
ঈদের অগ্রিম টিকেট বিক্রির সময় স্টেশনে তিন স্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে বলে পূর্বকোণকে জানান রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজ ভূইয়া। তিনি বলেন, কালোবাজারি বন্ধে স্টেশনে পোশাকের পাশাপাশি সাদা পোশাকে স্টেশনে দায়িত্ব পালন করবে পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ ও গোয়েন্দা বিভাগের সদস্যরা। তাছাড়া নিরাপত্তা নিশ্চিতে রেলওয়ে থানা পুলিশের পাশাপাশি এপিবিএনের সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবে। ইতিমধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এ নিরাপত্তা ঈদের আগের দিন পর্যন্ত জোরদার থাকবে বলে জানান তিনি।
পরিবহন বিভাগ সূত্রে জানা যায়, সুবর্ণ এক্সপ্রেস প্রতিদিন সকাল সাতটায়, মহানগর এক্সপ্রেস ১২টা ৩০ মিনিটে, গোধূলী বিকেল ৩টায়, সোনার বাংলা বিকেল ৫টায়, ঢাকা মেইল এক্সপ্রেস রাত সাড়ে ১০টায়, তূর্ণা নিশিতা রাত ১১টায়, বিজয় এক্সপ্রেস সকাল সোয়া ৭টায়, পাহাড়িকা এক্সপ্রেস সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে, উদয়ন এক্সপ্রেস রাত ৯টা ৪৫ মিনিটে ও মেঘনা এক্সপ্রেস বিকাল সোয়া ৫টায় চট্টগ্রাম ছেড়ে যাবে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 249 People

সম্পর্কিত পোস্ট