চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

২৬ জানুয়ারি, ২০২০ | ৪:২৩ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সিটিভিতে বৈষম্যের শিকার চট্টগ্রামের শিল্পীরা

বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের অনুষ্ঠান নির্মাণে বা পরিকল্পনায় চট্টগ্রামের শিল্পী কলাকৌশলীরা অনুষ্ঠান করার কোনো সুযোগ পাচ্ছে না। তাদের সৃজনশীল প্রতিভা প্রদর্শনের কোন সুযোগই চট্টগ্রাম কেন্দ্র দিচ্ছে না। আবার দেখা যাচ্ছে যাদের গানের বিদ্যা নেই তারাই গানের অনুষ্ঠান করছে। যুক্ত করছে না কোন সঙ্গীত পরিচালক।

প্রযোজকরাই করছে গ্রন্থনা, আবার কন্ঠও দিচ্ছে তারা। বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের অনুষ্ঠানের মানোন্নয়ন ও শিল্পীদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের সুযোগের দাবিতে এক সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম শিল্পী সংসদের সভাপতি সহিদুর রহমান এ কথা বলেন। গতকাল বিকেলে প্রেস ক্লাবের এস রহমান হলে চট্টগ্রাম শিল্পী সংসদ এ সম্মেলন করেন। এসময় সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম শিল্পী সংসদের সভাপতি সহিদুর রহমান, সহ-সভাপতি ইকবাল হায়দার, সহ-সভাপতি হাসান জাহাঙ্গীর, সম্পাদক দিদারুল ইসলাম, নির্বাহী সম্পাদক শুভাগত চৌধুরী, কান্তা দে, অর্থ সম্পাদক অনুরীনা চৌধুরী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কমলগন্ধ দত্ত ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আর কে চক্রবর্তী।

সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম শিল্পী সংসদের সভাপতি সহিদুর রহমান লিখিত বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ টেলিভিশনের চট্টগ্রাম কেন্দ্রের শিল্পীরা নানাভাবে বৈষম্যের শিকার হচ্ছে। চট্টগ্রাম টেলিভিশন কেন্দ্রের যে ছয় ঘণ্টা অনুষ্ঠান সম্প্রচারের কথা ছিল এটি ২০১৯ সালের শেষের দিক থেকে আর মানা হচ্ছে না। কিন্তু চট্টগ্রাম টেলিভিশনে ছয় ঘণ্টা যেসব অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা হয় দেখা যায় সেসব অনুষ্ঠান ঢাকার শিল্পীদের নির্মিত। যদিও একটি অনুষ্ঠান চট্টগ্রামের শিল্পী দ্বারা করা হয়, তবে সেই অনুষ্ঠানকে বারবার পুনরায় প্রচার করে দর্শকদের ধোঁকা দিচ্ছে। এতে চট্টগ্রামের শিল্পীরা নতুন করে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে না। শিল্পীরা তাদের মেধা সঠিকভাবে প্রকাশ করতে পারছে না। আবার দেখা যায় শিল্পীদের কোনো প্রকার সম্মানি ছাড়াই অনুষ্ঠান করার প্রস্তাব দেন বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম জেনারেল ম্যানেজার নিতাই কুমার ভট্টাচার্য্য। অনেক ক্ষেত্রে অনুষ্ঠান শেষে শিল্পীদের সম্মানি দেয়নি, অনুষ্ঠান শেষে শিল্পীদের চেক বাতিল করেন বলেও অভিযোগ করেন। শুধু তাই নয় চট্টগ্রাম কেন্দ্রে আজ পর্যন্ত কোন যন্ত্র শিল্পীকে সঠিক প্রাপ্য সম্মানি দেয়া হয়নি। সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম শিল্পী সংসদের শিল্পীরা আরো প্রস্তাব করে, অনুষ্ঠানের পুনরায় প্রচার বন্ধ করতে হবে। এখানে এমন অনেক শিল্পী আছে যারা দীর্ঘদিন কাজ করেও ‘গ’ শ্রেণিতে পড়ে রয়েছেন। সেই শিল্পীরাও সমান শ্রেণির দাবিদার। চট্টগ্রাম কেন্দ্রে এমন অনেক পুরোনো শিল্পী আছে যারা এক সময় ভালো গান করতো। সেইসব শিল্পীদের গানের রেকর্ড বাজিয়ে তাদের অনুষ্ঠান অংশগ্রহণ করার সুযোগ করে দিতে হবে। এসময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সহিদুর রহমান বলেন, শিল্পীদের এমন করুণ অবস্থা জানিয়ে বেশ কয়েকবার তথ্য মন্ত্রীতে আমরা চিঠিও দিয়েছি। কিন্তু তিনি এ বিষয় এখনো খতিয়ে দেখেছেন বলে আমরা জানতে পারিনি। শুধু তাই নয় আমরা যারা এসব বিষয় প্রতিবাদ করি তাদেরকে অনেক অনুষ্ঠান থেকে বঞ্চিত করছে।
সম্মেলনে শিল্পীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিবেক দাশ, শংকর দেসহ অন্যরা।

The Post Viewed By: 128 People

সম্পর্কিত পোস্ট