চট্টগ্রাম রবিবার, ৩১ মে, ২০২০

সুন্দরবন উপকূলে আঘাত হানতে পারে ‘আম্পান’, ১৫ ফুট জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা

২০ মে, ২০২০ | ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ

আবহাওয় ডেস্ক

সুন্দরবন উপকূলে আঘাত হানতে পারে ‘আম্পান’, ১৫ ফুট জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা

বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সুপার সাইক্লোন ‘আম্পান’ আজ বুধবার (২০ মে) সন্ধ্যা নাগাদ সুন্দরবন উপকূলে আঘাত হানতে পারে। এরপর এটি বুধবার বিকেল/সন্ধ্যার মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করতে পারে। এর প্রভাবে দক্ষিণ, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল ১০ থেকে ১৫ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে। ফলে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত এবং চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

এছাড়া উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোও এই ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সুপার সাইক্লোন আম্পান গতি বাড়িয়ে দ্রুততার সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের উপকূলের দিকে এগিয়ে আসছে। এটি উত্তর-পূর্ব থেকে তুলনামুলকভাবে গতি পরিবর্তন করে উত্তরমুখি হচ্ছে। এই ঘূর্ণিঝড় ১৮৫ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানতে পারে সুন্দরবন উপকূলে। ঘূর্ণিঝড়টি বুধবার সকাল ৬ টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৬৫ কিঃমিঃ দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৪৫ কিঃমিঃ দক্ষিণপশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৯০ কিঃমিঃ দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪১০ কিঃমিঃ দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ২২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটে সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ রয়েছে।

এদিকে কলকাতার সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, শেষবেলায় গতি বাড়িয়ে দ্রুতলয়ে বাংলার উপকূলের দিকে এগিয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় আম্পান। মঙ্গলবার (১৯ মে) রাত সাড়ে ৭টা নাগাদ এটি ছিল দীঘা থেকে ৩৯০ কিলোমিটার দূরে। শেষ ৬ ঘণ্টায় ২০ কিলোমিটার/ঘণ্টা গতিবেগে এগিয়েছে। এ সময় কিছুটা শক্তিক্ষয়ও করেছে আম্পান। তবে সুন্দরবনের কাছে উপকূলে ঢোকার সময় ঝড়ের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৮৫ কিলোমিটার হতে পারে।

পূর্বকোণ/পিআর

The Post Viewed By: 91 People

সম্পর্কিত পোস্ট