চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২০

সর্বশেষ:

শৌর্যের ঈদ

২৬ মে, ২০২০ | ১:৩২ অপরাহ্ণ

মো. মুশফিকুর রহমান

শৌর্যের ঈদ

এই বছরের ঈদ-উল-ফিতর আর কবি নজরুলের জন্মদিন একই তারিখেই হচ্ছে । ২৫ মে। ঈদ নিয়ে যত গান আছে, সকল গানের মধ্যে নজরুলের গানটিই সবচেয়ে বেশি মনকাড়া।

কবি নজরুলের ‘ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ’ এই গানটি না শুনলে ঈদের (ঈদুল ফিতরের) আমেজই যেন পাওয়া যায় না। নজরুলের এই গানটিকে কেউ কেউ ঈদের ‘জাতীয় সঙ্গীত’ বলে মন্তব্য করেন। শেষ রোজার ইফতারের পরপরই এই গান যখন বেজে উঠে তখন মনের ভেতর আনন্দের একটি দোল খেয়ে যায়। কবি নজরুলের এই ঈদ আগমনী গানের মধ্যে মানব জাতির জন্য একটি বার্তা রয়েছে । বাইশ লাইনের এই গানে অন্তর্নিহিত রয়েছে মানুষের মনের পশুত্বকে বিসর্জন দিয়ে মন উজাড় করে আসমানের তাগিদ মেনে নেওয়া। কবি এক কাতারে দাঁড়িয়ে ঈদের নামাজ আদায় করার মাধ্যমে মানুষে মানুষে ভেদাভেদ ভুলে যেতে বলেছেন।

করোনা মহামারি বলয়ে আবদ্ধ এবারের ঈদ আনন্দ। আমাদের দেখা এটাই প্রথম ঈদ, যে ঈদে কোলাকুলি করা থেকে বিরত থাকতে হচ্ছে। স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারাটাই হচ্ছে এবারের ঈদের মূল আনন্দ। আর আমরা যে নিরাপদ এ কথা তখনই বলা যাবে যদি আমরা নিরাপদ স্থানে অবস্থান করতে পারি। কিন্তু আমাদের অবস্থান কি সে রকম ছিল?

খবরে দেখেছি, মানুষ গ্রামের বাড়ি ছুটছে। বিত্তবানরা বরাবরই একটু অন্যরকম। তারা নিজ গাড়ি নিয়ে বেরিয়ে পড়েছিল। এমনও হতে পারে, যারা নাড়ির টানে বাড়ি গেছেন তাদের কেউ কেউ হয়তোবা শহর থেকে গ্রামে অদৃশ্য ঘাতক করোনাকে বয়ে নিয়ে গেছেন। কামনা করি, এমনটা যেন না হয়। লকডাউন মেনে দেশের স্বার্থে অন্তত আরও কিছুদিন ছুটাছুটি না করে নিরাপদে নিজস্থানে অবস্থান করাটাই  উত্তম ছিল।

জীবন অনেক বড়, তাই আবেগকে প্রশ্রয় না দিয়ে বাঁচার তাগিদ অনুভব করতে হবে। ইতিমধ্যেই এই রোগের প্রতিষেধক নিয়ে কিছু সুখবর আসতে শুরু করেছেন। বিশেষ করে অক্সফোর্ডের যে ভ্যাকসিন আমাদের মাঝে আশা জাগিয়েছে, সেটা হয়তো আমাদের প্রতীক্ষাকে দ্রুত সংক্ষিপ্ত করবে। এই প্রতিষেধকের গবেষণা দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপ অতিক্রমের প্রক্রিয়ায় আছে। এই ঈদে এটিও আমাদের বেঁচে থাকার মত আরেকটি আনন্দের সংবাদ।

টানা দু’মাসাধিক ঘরকূনে থাকার পর আমাদের আরো কিছুদিন ধৈর্যের পরীক্ষা দিতে হবে। এই পরীক্ষা হবে আমাদের দু’মাস নিথর হয়ে ঘরে বসে থাকার স্বার্থকতা। আমাদেরকে ধৈর্যধারন করার মতো সাহস দেখাতে হবে।

এবারের করোনাকালীন ঈদে কবি নজরুলের জন্মদিন আমাদেরকে কিছুটা সাহস যুগিয়েছে। তিনি তার একটি গানে বলেছিলেন , দাও শৌর্য, দাও ধৈর্য্য, হে উদার নাথ, দাও প্রাণ। দাও অমৃত মৃত জনে, দাও ভীত –চিত জনে, শক্তি অপরিমাণ। হে সর্বশক্তিমান।। দাও স্বাস্থ্য, দাও আয়ু, স্বচ্ছ আলো, মুক্ত বায়ু, দাও চিত্ত অনিরুদ্ধ, দাও শুদ্ধ জ্ঞান।’ কবির সুরে সুর মিলিয়ে আমারও বলি, এই ঈদ করোনার ভয়ে চুপসে যাওয়ার ঈদ নয়। বৈষম্যের ঈদ নয়। এই ঈদ হচ্ছে বেঁচে থাকা মানুষগুলোর শৌর্যের ঈদ ! ঈদ মোবারক।

পূর্বকোণ/ এস

The Post Viewed By: 192 People

সম্পর্কিত পোস্ট