চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

হার দিয়ে শুরু টাইগারদের

২৪ জানুয়ারি, ২০২০ | ৬:৫৪ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

হার দিয়ে শুরু টাইগারদের

হার দিয়েই তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ শুরু বাংলাদেশের। টাইগারদের ৫ উইকেটে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছে পাকিস্তান। বাংলাদেশ টস জিতে আগে ব্যাট করে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৪১ রান সংগ্রহ করে । জবাবে ১৯.৩ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় স্বাগতিকরা।

এর আগে ব্যাটিংয়ে নেমে শুভ সূচনা করেন বাংলাদেশ দলের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও মোহম্মদ নাঈম। ৮ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৫০ রান সংগ্রহ করে তারা। দলীয় ৭১ রানে তামিম ইকবাল রান আউটে কাটা পড়েন। আউট হওয়ার আগে তিনি ৩৪ বলে ৩৯ রান করেন। দলীয় ৯৮ রানে তামিমের মতোই রান আউটে কাটা পড়েন লিটন কুমার দাস। নিজের বোলিংয়ে ফিল্ডিং করে দারুণ থ্রো করেন শাদাব খান। বল সরাসরি আঘাত করে স্ট্যাম্পে।  ১৩ বলে ১২ রান করেন আউট হন লিটন। লিটনের পর দ্রুত ফিরে গেছেন মোহাম্মদ নাঈম। লেগ স্পিনার শাদাব খানের গুগলি উড়িয়ে মারতে গিয়ে লং অনে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন নাঈম। ৪১ বলে ৪৩ রান করেন তিনি। তার আউটের সময় বাংলাদেশের রান ৩ উইকেটে ৯৮।

এর পর অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে জুটি গড়েন আফিফ হোসেন। দ্রুত রান তোলার তাড়ায় এলোমেলো শট খেলছিলেন আফিফ। শেষমেশ বোল্ড হয়ে ৯ রানে সাজঘরে ফেরেন আফিফ। সৌম্য সরকার উইকেটে এসেই বাউন্ডারি ভাল কিছু করার ইঙ্গিত দিয়েছিল। কিন্ত তিনি নিজের ইনিংসকে বড় করতে পারেনি। বাঁহাতি পেসার শাহীন শাহ আফ্রিদির স্লোয়ার ডেলিভারিতে বোল্ড হন সৌম্য। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১৯ রানে অপরাজিত থাকেন।

জয়ের জন্য ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারেই উইকেট হারায় পাকিস্তান। শফিউল ইসলামের প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলটি বাবর আজমের ব্যাট ছুয়ে উইকেট কিপার লিটন দাসের গ্লাভসে জমা হয়। ফিল্ডারদের জোড়ালো আবেদনে আঙ্গুল তুলে দেন আম্পায়ার। কিন্তু আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে রিভিউ নিলেও আর ফেরা হয়নি বাবর আজমের। শফিউল ইসলামের পর বাংলাদেশ দলকে সাফল্য এনে দেন মোস্তাফিজুর রহমান। মুস্তাফিজের স্লোয়ার শর্ট বলে ভুল শট খেলে আউট হন মোহাম্মদ হাফিজ। তার আউটের সময় পাকিস্তানের রান ছিল ২ উইকেটে ৩৫।

তৃতীয় সাফল্য এনে দেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় উইকেট পান শফিউল ইসলাম। বাবর আজমের পর তার শিকার ইফতিখার আহমেদ। ডানহাতি ব্যাটসম্যান শফিউলের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন ১৬ রানে। আল-আমিনের শর্ট বল পুল করতে গিয়ে বোল্ড হন ইমাদ ওয়াসিম। শোয়েব মালিক ৫৮ রানে অপরাজিত থাকেন। এই জয়ের মধ্যদিয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল তারা।

পূর্বকোণ/টিএফ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 176 People

সম্পর্কিত পোস্ট