চট্টগ্রাম সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে বাংলাদেশ কোচ-খেলোয়াড়দের
শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে বাংলাদেশ কোচ-খেলোয়াড়দের

২ নভেম্বর, ২০১৯ | ৩:১৮ পূর্বাহ্ণ

হুমায়ুন কবির কিরণ

দিল্লিতে কাল প্রথম টি-টোয়েন্টিতে নামছে টাইগাররা

শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে বাংলাদেশ কোচ-খেলোয়াড়দের

স্বাস্থ্যের ঝুঁকি নিয়েই আগামীকাল (রবিবার) ভারত সফরে প্রথম ম্যাচে নামছে বাংলাদেশ দল। দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রতিটি ম্যাচই মাঠে গড়াবে সন্ধ্যা ৭.৩০টায়। যেহেতু রাতের বেলায় খেলায় খেলা হবে এবং উপমহাদেশে শীতকাল প্রায় আসন্ন, এ কারণে আয়োজকরা আশা করছেন বিকালের পর ধুলোর অত্যাচার হয়তো কিছুটা কমবে। সিরিজের পরের দুটি ম্যাচ রাজকোট ও নাগপুরে। সেখানে বায়ুদূষণের সমস্যা খুব একটা নেই। এদিকে গতকাল নয়াদিল্লিতে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। তবে রাজনৈতিক কারণে নয়, জনস্বাস্থ্যের ঝুঁকিতে। দেশটির সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশ মেনেই তা করেছে পরিবেশ কর্তৃপক্ষ। ছাত্রছাত্রীদের জন্য বিশেষ মাস্ক বিতরণ করার সময় দিল্লিকে গ্যাস চেম্বারের সঙ্গে তুলনা করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। দিল্লির ভয়াবহ দূষণের কারণে ক্রমেই চিন্তা বাড়ছে বাংলাদেশ-ভারতের ক্রিকেট ম্যাচ ঘিরে। ২০১৭ তে সেখানে দূষণের মাত্রা

বেড়ে যাওয়ায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ চলাকালীন অসুস্থ বোধ করেন শ্রীলঙ্কার কয়েকজন ক্রিকেটার। তারা মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে যান। পরে মাঠে ফেরেন মুখে মাস্ক নিয়ে। এমন পরিস্থিতিতেই আগামীকাল অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ-ভারত সিরিজের প্রথম টি- টোয়েন্টির লড়াই। যার আগে দূষণ নিয়ে চিন্তায় আয়োজকরাও। বুধবার ভারতে পৌঁছার পর বৃহস্পতিবার দিল্লির মাঠে অনুশীলনে নামে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। সেখানে দলের উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান লিটন দাসকে দেখা যায় মুখে মাস্ক জড়িয়ে অনুশীলন করতে। যদিও অন্যরা সেদিন মাস্ক ছাড়াই ছিলেন। গতকাল অবশ্য দলের সাপোর্ট সদস্য থেকে শুরু করে কয়েকজন ক্রিকেটারও মাস্ক পরেই অনুশীলন করেন। হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো অবশ্য সমস্যাটিকে গুরুতর মানতে রাজী নন। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে ডমিঙ্গো বলেন, আমার চোখ জ্বলছিল এবং পরিষ্কার বাতাসের অভাবে শ্বাস নিতেও অসুবিধা হচ্ছে। তবে আমাদের কাছে এটা বড় কোনো ধাক্কা নয়। ছেলেরা এটা নিয়েই মাঠে খেলতে চায়, আমরা এই ব্যাপারে খুব বেশি অভিযোগও করছি না। অনেকেরই সমস্যা দেখার পরে বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট অবশ্য আরও মাস্কের ব্যবস্থা করার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে। চোখ জ্বলা, শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যাগুলোই অনুশীলনে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের একমাত্র উদ্বেগ ছিল না। এমনকি ধোঁয়ার কারণে অনুশীলনের সময় তাদের বল দেখতেও সমস্যা হচ্ছিল। ফিল্ডিং ড্রিল

চলাকালীন উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম একাধিকবার আকাশের দিকে ইঙ্গিত করে বলছিলেন, তিনি বল ধরতে পারবেন না। ‘হ্যাঁ, বল দেখতে অবশ্যই সমস্যা হয়েছিল, তবে আমি মনে করি কাল আলোর নিচে (রাতে ম্যাচ) এটি ঠিক হওয়া উচিত’ মন্তব্য লিটন দাসের। এসব সমস্যা থাকার পরও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি বলেছেন, সূচি অনুযায়ী ম্যাচটি দিল্লিতেই হবে। বেশ কয়েকটি পরিবেশবাদী সংস্থা বিসিসিআইয়ের কাছে চিঠি লিখে ম্যাচের ভেন্যু পরিবর্তনের আবেদন জানালেও নিজেদের সিদ্ধান্তে অটল বোর্ডটি। রোটেশনের নিয়ম মেনে এই ম্যাচ পেয়েছে দিল্লি, কিন্তু দূষণের এমন মাত্রাছাড়া অবস্থায় ম্যাচের ভবিষ্যৎ কী তা নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে দেশটির ক্রীড়াঙ্গনে। ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের আওতাভুক্ত পরিবেশ দূষণ (প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ) কর্তৃপক্ষ ১০ সদস্যের দূষণ-বিরোধী টাস্কফোর্স গঠন করেছে। টাস্কফোর্সের সুপারিশে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত দিল্লি-এনসিআর এলাকায় নির্মাণকাজের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি আতশবাজি পোড়ানোর উপরও নিষেধাজ্ঞা জারি আছে। যে সংস্থাগুলো প্রাকৃতিক গ্যাসের ব্যবহার করে না সেগুলি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। শীতকালে দিল্লি ও তার আশপাশের এলাকায় বাজি ফাটানো যাবে না বলেও নির্দেশ দিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
The Post Viewed By: 338 People

সম্পর্কিত পোস্ট