চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

২৮ এপ্রিল, ২০১৯ | ১:১৯ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

‘বোলারদের ওপর নির্ভর করছে বাংলাদেশের সাফল্য’

তরুণদের তারকা বানাবে বিশ^কাপ : আশরাফুল

২০১৫ সালের বিশ্বকাপের পর আফগানিস্তান, শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা এমনকি ভারতের বিপক্ষেও জয়ের সুখস্মৃতি রয়েছে বাংলাদেশের। বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর মধ্যে কেবল অস্ট্রেলিয়াকেই নিকট অতীতে মাটিতে নামাতে পারেনি টাইগাররা। তবু বাস্তবতা বেশ কঠিন। বিশেষ করে আইসিসি ইভেন্টে বড় দলগুলোকে হারানো আরও বেশি কঠিন। তাই মোটামুটি হিসেব করেই এগুতে হয় এসব টুর্নামেন্টে। জাতীয় দলের পক্ষ থেকে এখনো পর্যন্ত তেমন হিসেব তথা কাদের বিপক্ষে জয়ের লক্ষ্য- তা জানা না গেলেও, ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল জানিয়ে দিলেন কাদের হারানো সম্ভব বিশ্বকাপে। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের বিসিবি লাউঞ্জে বসে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ সম্ভাবনার ব্যাপারে বিস্তারিত কথা বলেন আশরাফুল। সেখানেই তিনি জানান সেমিফাইনাল খেলতে হলে নিউজিল্যান্ড কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেও দরকার পড়বে জয়। আশরাফুলের ভাষ্যে, ‘বিশ্বকাপে যদি সেমিফাইনাল খেলতে হয় তাহলে সবাই আমরা ধরে নিচ্ছি যে শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান, পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারাতেই হবে। এরপর নিউজিল্যান্ড এবং সাউথ আফ্রিকা থেকে একটা টিমের বিপক্ষে হয়তো বা আমাদের জিততে হবে। আশরাফুল মনে করছেন দলের তারকা ব্যাটসম্যানরা যে ফর্মে আছে তাতে এ বিশ্বকাপে নিয়মিতই ৩০০ করার সামর্থ্য আছে বাংলাদেশের। তিনি বলেন, ‘আমরা আগে ৩০০ করিনি। কিন্তু আমাদের সামর্থ্য আছে। তামিম, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ অনেক অভিজ্ঞ। তামিম লাস্ট চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অসাধারণ খেলেছে, মুশফিকও দারুণ খেলেছে। এদের সঙ্গে লিটন, সাব্বির, সৌম্য ওরাও আসছে।
শুধু ব্যাটিং দলকে সাফল্য এনে দিতে পারবে না বলে জানান আশরাফুল। আসরে বাংলাদেশের সাফল্য নির্ভর করবে বোলারদের ওপর। ইংলিশ কন্ডিশনে উইকেট যেমনই হোক না কেন ভালো বোলিং করতে না পারলে ম্যাচ জেতা কঠিন হবে। অন্য দলগুলোর পেসারদের চেয়ে বাংলাদেশের পেসাররা গতিতে কিছুটা পিছিয়ে আছে মনে করছেন সাবেক এই অধিনায়ক।
তিনি বললেন, ‘আমাদের বোলারদের যে গতি, এই জায়গায় মনে হয় আমরা একটু পিছিয়ে থাকবো। আমাদের বেশির ভাগ পেসারের গতি ঘণ্টায় ১৩০-১৩৫ কিলোমিটার, কেবল রুবেল ১৪০ এ বোলিং করতে পারে। আমাদের জন্য ভালো ব্যাপার হলো মাশরাফি অধিনায়ক। ভালো অধিনায়ক থাকলে এসব ছোটখাটো জিনিস কাটিয়ে ওঠা যায়। নতুন খেলোয়াড়রা বিশ্বকাপে ভয়-ডরহীন ক্রিকেট খেলে দলকে সহায়তা করবেন বিশ্বাস আশরাফুলের।
এই বিশ্বকাপ দেশের কয়েক জন ক্রিকেটারকে নতুন করে চেনাবে আশাবাদী তিনি, ‘বিশ্বকাপ খেলোয়াড়দের তারকা বানায়। ওখানে ভালো খেলতে পারলে দেশের সঙ্গে নিজের সুনামও হয়। ৭ জন প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছে, তারা এরই মধ্যে বাংলাদেশের সুপারস্টার। এখন শুধু আরেকটা ধাপ, যেখানে পুরো বিশ্ব বাংলাদেশের এই ক্রিকেটারদের অনুসরণ করবে। এদের জন্য শুভ কামনা রইল।’

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 380 People

সম্পর্কিত পোস্ট