চট্টগ্রাম শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

পটিয়াকে বিধস্ত করে শীর্ষে বাকলিয়া

১৫ মার্চ, ২০২০ | ৪:৩০ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক

বঙ্গবন্ধু ১ম বিভাগ ফুটবলে প্রথম জয় পেল কর্ণফুলী

পটিয়াকে বিধস্ত করে শীর্ষে বাকলিয়া

খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাকে লাল কার্ড

বঙ্গবন্ধু প্রথম বিভাগ ফুটবল লিগে অবশেষে জয়ের মুখ দেখলো কর্ণফুলী ক্লাব। গতকাল শনিবার চট্টগ্রাম এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত খেলায় তারা ১-০ গোলে শক্তিশালী ও শিরোপা প্রত্যাশী শতদল ক্লাবকে হারিয়ে দিয়েছে। এদিকে গতকাল ছিল এ মওশুমে শতদল ক্লাবের প্রথম পরাজয়। একই মাঠে অনুষ্ঠিত দিনের প্রথম খেলায় বাকলিয়া একাদশ ১-০ গোলে পটিয়া উপজেলা ক্রীড়া সংস্থাকে পরাজিত করেছে। এ জয়ের ফলে ৩ খেলায় ৩ জয় ও ১ ড্রতে ১০ পয়েন্টে আপাতত এককভাবে তালিকার শীর্ষে অবস্থান করছে বাকলিয়া একাদশ। অন্যদিকে ৪ খেলায় ৪ পয়েন্টে রয়েছে পটিয়া উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা। অন্যদিকে গতকালের প্রথম পরাজয়ে শতদল ক্লাব ৪ খেলায় ৭ পয়েন্টেই রয়ে গেল। ২টি খেলার উল্লেখযোগ্য দিক ছিল বাকলিয়া একাদশের সুমন ও পটিয়া উপজেলার শুভ এবং শতদল ক্লাবের কর্মকর্তা বাবুকে লাল কার্ড প্রদর্শন। সুমন ও শুভ একটি ফাউলকে কেন্দ্র করে মারামারিতে লিপ্ত হলে রেফারি ফরহাদ হোসেন দু-জনকেই খেলার ১৫ মিনিটেই লালকার্ড দেখিয়ে বহিস্কার করেন। এর ফলে দু-দলকে বাকি ৭৫ মিনিট ১০ জন নিয়ে খেলতে হয়েছে। এছাড়া চতুর্থ রেফারির দিকে মারমুখি ভঙ্গিতে এগিয়ে যাওয়া এবং বিনাঅনুমতিতে মাঠে প্রবেশ করার কারণে বাবুকে লাল কার্ড দেখিয়েছেন ফিফা রেফারি মাহামুদুল হাসান মামুন। খেলার ৭৬ মিনিটে শতদল ও কর্ণফুলীর খেলোয়াড়রা একটি ফাউলকে কেন্দ্র করে উত্তেজনায় জড়িয়ে পড়েন। একজনের দিকে আরেকজন মারমুখি ভঙ্গিতে এগিয়েও যান। এ সময় মাঠের বাইরে থেকে বাবুসহ আরো একজন কর্মকর্তা মাঠে ঢোকার চেষ্টা করেন। এ সময় রেফারি তাদের বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে বাবু রেফারিকে মারতে উদ্যত হন। তবে তিনি আঘাত করেননি। কিন্তু রেফারিদের গালিগালাজ দেন। তবে মাঠে দারুণ ফুটবল খেলেছিলো শতদল ক্লাব। নেহাৎ ভাগ্যদোষে তাদের পরাজয়ের গ্লানি নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে। সারা খেলায় অন্তত: ৪টি নিশ্চিত সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি দলের অধিনায়ক লিখনসহ শাকিল’রা। গোলটাও খেলেয়ে একেবারে বাজে ভাবে। ডিফেন্স ও কিপারের মারাত্মক ভুল বোঝাবুঝিতে খেলার একমাত্র গোলটি করেন কর্ণফুলী ক্লাবের সৈনিক। দ্বিতীয়ার্ধের ২৭ মিনিটে এই ভুল থেকে পুরোপুরি ফায়দা লুটে নেন কর্ণফুলী ক্লাবের সৈনিক। তিনি বলটি শারীরিক দক্ষতায় কেড়ে নিয়ে বিপদসীমানায় ঢুকে দেখে শুনে মাটিঘেষা শটে বল জালে জড়ান (১-০)। এতেই তিনি ম্যাচ সেরা বনে যান। খেলা শেষে তাকে পুরস্কার প্রদান করেন সাবেক কৃতি ফুটবলার ও সিজেকেএস কাউন্সিলর মো. ফারুকুজ্জামান। পটিয়া ও বাকলিয়ার ম্যাচে দু-দলই জয়ের নেশায় ব্যস্ত ছিল। কিন্তু সেরকম কিছুই করতে পারছিলোনা। এভাবে খেলাও ছিল প্রায় শেষের দিকে। কিন্তু কে জানতে, তখনো অনেক চমক অপেক্ষা করছিলো। সেই চমকটা দেখালো বদলী ফুটবলার মেহেদি হাসান। বা দিকে থেকে সতীর্থের বাড়ানো বলে সহজেই তিনি পা ছুইয়ে বল জালে জড়ান (১-০)। এতে ম্যাচ সেরা হয়েছেন জয়ী দলেল ডিফেন্ডার হৃদয়। খেলা শেষে তাকে পুরস্কার প্রদান করে বর্ষীয়ান সিজেকেএস কাউন্সিলর ও সাবেক ফুটবলার ডেরিক রেনডল্ফ। আজকের খেলা: নওজোয়ান ক্লাব ও কল্লোল সংঘ (বিকেল ৩টা) এবং রাইজিং স্টার বনাম কমরেড ক্লাব (বিকেল ৫টা)।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 71 People

সম্পর্কিত পোস্ট