চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০১ অক্টোবর, ২০২০

সর্বশেষ:

অস্ট্রেলিয়ান নারীদের বিশ্বজয়

৯ মার্চ, ২০২০ | ২:১৭ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

অস্ট্রেলিয়ান নারীদের বিশ্বজয়

মেয়েদের ক্রিকেটে নতুন মাইলফলকের দিনে অস্ট্রেলিয়াও নিজেদের রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়ল। এমসিজির উৎসবমুখর গ্যালারিকে সাক্ষী করেই রেকর্ড পঞ্চম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ উঁচিয়ে ধরল স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া। প্রথমবার ফাইনালে খেলা ভারতকে কোনও সুযোগ না দিয়েই শিরোপা ধরে রাখার মিশনে সফল তারা। গ্রুপ পর্বেও এই দুই দল মুখোমুখি হয়েছিল। টস জিতে ব্যাটিং নিয়ে দুই ওপেনারের ব্যাটে সম্ভাব্য সবচেয়ে ভালো শুরুই পায় অজিরা। পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই হিলি এবং বেথ মুনির ব্যাট কথা বলেছে। তবে গতকাল প্রথম বল থেকেই খাপখোলা তলোয়ার হয়ে উঠেছিল এই দু’জনের ব্যাট। তবে প্রথম চার ওভারের মাঝে ক্যাচ ফেলে এই দু’জনকে জীবন দিয়ে নিজেদের বিপদ নিজেরাই বাড়িয়েছে ভারত। প্রথম ওভারে কাভারে শেফালি ভার্মা ছাড়েন হিলির ক্যাচ, এরপর নিজের বোলিংয়ে মুনির ফিরতি ক্যাচ ফেলেন রাজেশ্বরী গায়েকোয়ার। ইনিংসের প্রথম বলে চার মেরে ইনিংস শুরু করা হিলি জীবন পেয়ে সেটিকে কাজে লাগান দারুণভাবে। ভারতীয় বোলারদের নাস্তানাবুদ করে একের পর এক চার-ছয়ে এমসিজির গ্যালারিকে উৎসবের উপলক্ষ্য তৈরি করে দেন। ১১ তম ওভারে শিখা পা-েকে টানা তিন বলে সীমানার বাইরে পাঠিয়ে ছক্কার হ্যাটট্রিক করেন হিলি। মাত্র ৩০ বলে ফিফটি করা হিলির ইনিংস থামে এর পরের ওভারে। ৭ চার এবং ৫ ছয়ে ৩৯ বলে ৭৫ রান করে রাধা যাদবের বলে আরেকটি ছয় মারতে গিয়ে ইনিংস শেষ হয় তার। শেষ ২৫ রান করতে মাত্র ৯ বল খরচ করেছেন তিনি। তার আগেই অবশ্য ঝড়ো ব্যাটিংয়ে রেকর্ড বুকে নাম উঠে গেছে এই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনারের, ছেলে বা মেয়েদের যেকোনো বিশ্ব আসরের ফাইনালে তার চেয়ে কম বল খেলে ফিফটির দেখা পায়নি আর কেউ। সঙ্গে দ্বিতীয় অস্ট্রেলিয়ান হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে ২ হাজার রানও পূর্ণ হয়ে যায় তার। শুরু থেকে এক প্রান্ত থেকে দাঁড়িয়ে হিলির ধ্বংসযজ্ঞ উপভোগ করছিলেন আসরে সর্বোচ্চ রান করা বেথ মুনি। হিলি ফিরে যাওয়ার নিজের প্রান্ত আগলে রেখে ৪১ বল থেকে ফিফটি তুলে নেন তিনি।

এরপর খেলতে শুরু করেন হাত খুলে, আর ১৩ বল খেলে রানের খাতায় যোগ করেছেন আরও ২৮ রান। অপর প্রান্তে অন্যরা আসা-যাওয়া করলেও মুনি ঠিকই অপরাজিত ছিলেন, ৫৪ বল খেলে ৭৮ রান করে, অস্ট্রেলিয়াকে বিশ্বকাপ ফাইনালে রেকর্ড সংগ্রহ এনে দিয়ে। অস্ট্রেলিয়ার অতিমানবীয় হয়ে ওঠার দিনে ভারতকে শুরু থেকেই নড়বড়ে মনে হচ্ছিল। কোনও ম্যাচ না হেরে ফাইনালে এসেছিলেন স্মৃতি মানধানারা, অথচ গতকাল সেই অপরাজেয় রুপের লেশমাত্রও দেখা গেল না তাদের খেলায়। প্রথমবার ফাইনাল খেলার চাপে রীতিমত ভেঙে পড়লেন তারা। প্রাণহীন ফিল্ডিংয়ে শুরুতে অস্ট্রেলিয়াকে বড় লক্ষ্য তৈরির সুযোগ করে দিয়েছেন ভারতীয়রা। এরপর সেই লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে গোত্তা খেয়েছেন বারবার। ইনিংসের তৃতীয় বলেই টুর্নামেন্টে নিয়মিত ওপেনার শেফালিকে হারিয়ে শুরু। এরপর শুধুই আসা যাওয়ার মিছিল চলতে থাকে ভারতীয় শিবিরে। মাঝে দীপ্তি শর্মা ৩৫ বলে ৩৩ রানের ইনিংস খেলে শুধু হারের ব্যবধান কিছুটা কমাতে সক্ষম হয়েছেন এই যা। মেগান শুট ৪ উইকেট নিয়ে আসল কাজটা করেছেন। তবে শেষ পর্যন্ত দিনের নায়ক হিলি আর মুনিই, ভারত যে ম্যাচটা হেরে গেছে ওখানেই।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 59 People

সম্পর্কিত পোস্ট