চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২০

১৮ অক্টোবর, ২০২০ | ১২:৩১ অপরাহ্ণ

ফারুক ইসলাম

পার্থ প্রতিম দাশ : অভিনয় যার নেশা

প্রত্যেক মানুষের কিছু স্বপ্ন থাকে, যা বাস্তবায়নের জন্য আমৃত্যু মানুষ চেষ্টা করে যান। কিছু স্বপ্ন শতভাগ বাস্তবায়িত হলেও, কিছু স্বপ্ন অপূর্ণ রেখেই মানুষ পৃথিবী থেকে বিদায় নেন। তেমনি একজন স্বপ্নবাজ মানুষের কথা তুলে ধরছি আজ। তাঁর ধ্যান-ধারণা জুড়েই রয়েছে অভিনয়। অভিনয়টাকে মনে-প্রাণে ভালোবেসে কাজ করে যাচ্ছেন অবিরাম। তিনি হলেন চট্টগ্রামের প্রতিভাবান নাট্যকর্মী পার্থ প্রতিম দাশ গুপ্ত। পেশায় একজন শিক্ষক হলেও নাটকে অভিনয় করাটা তার কাছে নেশা। শিক্ষকতার পাশাপাশি অবসর সময়ে কাজ করেন বিভিন্ন সংগঠনের সাথে। রাউজান থানার কোয়েপাড়া গ্রামে এই নাট্যকর্মীর জন্ম।

কিশোর বয়স থেকেই অভিনয়ের প্রতি বিভোর পার্থ প্রতিম দাশ গুপ্ত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম.এ (প্রিলি) করেছেন বাংলা সাহিত্যে। নাটকে তার হাতেখড়ি আশুতোষ ধরের ‘পরিণতি’ নাটক দিয়েই। এরপর জীবন নদীর তীরে, রক্তাক্ত রাজপথ, অনুসন্ধান, দেশদ্রোহী মাতব্বর, ইজ্জত আলী, প্যাটের বিষ, এখন দুঃসময়, মায়ের চোখে জল, কুলি, নয়ন সুন্দরী, শ্মশ্বানে হলো ফুল শয্যা, এক লাইলী দুই মজনু, নীড় হারা পাখি, বাবার বিয়ে, ফাঁস, সাগর সেঁচা মানিক, বিশ্বাসঘাতক, আসামি পলাতক, স্বর্গের পরের স্টেশন, ভাঙছে শুধু ভাঙছে, হিজল তলীর শ্বেত দলিরসহ ত্রিশটির বেশি মঞ্চ নাটকে এই পর্যন্ত অভিনয় করেছেন তিনি। সবকটি নাটকে নায়কের চরিত্রে অভিনয় করা পার্থ প্রতিম দাশ গুপ্ত কাজ করেছেন অনেক গুণী নাট্য পরিচালকের সাথে। যাদের সাথে কাজ করতে গিয়ে শিখেছেন অনেক কিছুই। আশুতোষ ধর, শিশির দাশ গুপ্ত, সাহাবুদ্দিন মজুমদার, সমীর কানুনগো, শিবব্রত সেনগুপ্ত, চিত্ত দত্ত, পংকজ পাল এবং পংকজ বৈদ্য সুজনের মতো গুণী নাট্য পরিচালকদের হাত ধরেই নাট্যজগতে তাঁর বিচরণ। অনেক গুণী লেখকের রচিত নাটকে অভিনয় করতে গিয়ে বুঝেছেন অভিনয় ব্যাপারটা সাধনার। চাইলেই সহজে দক্ষ অভিনেতা হওয়া যায় না। অভিনয়টা জীবনব্যাপী প্রক্রিয়ার মতো। তিনি কাজ করতে গিয়ে প্রতিনিয়ত শিখছেন নতুন নতুন কলা কৌশল।

তাঁর অভিনীত নাটকগুলোর রচয়িতারাও সুপরিচিত। যাঁদের লেখা নাটকে অভিনয় করেছেন তাঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, আবদুল্লাহ আল মামুন, রনজন দেবনাথ, স্বপন চট্টোপাধ্যায়, মানিক বন্দোপাধ্যায়, শৈলেশ গুহ নিয়োগী, ভৈরব নাথ গঙ্গোপাধ্যায়, রাজদূত ও দুলাল মল্লিক। রাউজানে জন্ম হলেও অভিনয় আর সমাজসেবার ব্রতে তিনি নগরীর গোসাইলডাঙ্গা এলাকায় বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক

 

সংগঠনের সাথে দীর্ঘদিন জড়িত থেকে কাজ করে যাচ্ছেন। শুধু অভিনয় নয়, গুণী এই শিল্পীর রয়েছে বহুমুখী প্রতিভা। অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি স্কাউটিং কার্যক্রমে নিবিড়ভাবে জড়িত। বর্তমানে চট্টগ্রাম জেলা স্কাউটস’র ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসাবে কাজ করছেন অত্যন্ত দক্ষতার সাথে। ১৯৯৭ সাল থেকে কাব স্কাউট দল পরিচালনাসহ বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলার প্রোগ্রাম ও প্রশিক্ষণে সহায়তা করে যাচ্ছেন প্রায় ২০ বছর ধরে।

২০১৭ সালে গাজীপুরের মৌচাক জাতীয় প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে বাংলাদেশ স্কাউটস’র সর্বোচ্চ প্রশিক্ষণ লিডার ট্রেনার কোর্স সম্পন্ন করেছেন। সুস্থ, সুন্দর জীবনযাপন ও জনসেবায় স্কাউটিং কার্যক্রমকে ছড়িয়ে দিতে দিনরাত কাজ করে যাওয়া পার্থ প্রতিম দাশ নাটকে অভিনয়ের পাশাপাশি নাট্য নির্দেশকের কাজও করেন। তাঁর নির্দেশনায় মঞ্চস্থ নাটক হলো দেশদ্রোহী মাতব্বর।

পার্থ দাশের অন্যান্য শখের কাজ হলো অংকন, গান শোনা, ফুলের বাগান করা, বইপড়া ইত্যাদি। শিক্ষক দম্পতি সীতা চৌধুরী ও অমলেন্দু দাশের সন্তান পার্থ প্রতিম দাশ গুপ্তের ভবিষ্যৎ স্বপ্ন একজন প্রতিষ্ঠিত অভিনেতা এবং নাট্য পরিচালক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়া। সেসাথে নিজের সততা, আদর্শ ও আন্তরিকতা দিয়ে শিক্ষকতা পেশায় দায়িত্ব পালন করে যাওয়া। তিনি মনে করেন, জীবনে প্রবল ইচ্ছে আর পরিশ্রম থাকলে কোন কাজই কঠিন নয়, বরং কঠোর অধ্যবসায়ের মাধ্যমে সফল হওয়াটা সময়ের ব্যাপার মাত্র। শিল্পী, শিক্ষক ও প্রশিক্ষক পার্থ প্রতিম দাশ গুপ্ত তাঁর কর্ম দক্ষতায় অনেকদূর এগিয়ে যাবেন এটাই প্রত্যাশা।

লেখক- শিক্ষক ও প্রাবন্ধিক
পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 107 People

সম্পর্কিত পোস্ট