চট্টগ্রাম সোমবার, ১০ আগস্ট, ২০২০

সর্বশেষ:

১০ হাজার ৭৮৯ জন রাজাকারের প্রথম তালিকা প্রকাশ

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ৫:৪০ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

১০ হাজার ৭৮৯ জন রাজাকারের প্রথম তালিকা প্রকাশ

বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে বিরোধিতাকারী ১০ হাজার ৭৮৯ জন আল-বদর,আল-শামস ও রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। রবিবার দুপুর ১২টার কিছুক্ষণ আগে এ তালিকা প্রকাশ করেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

এই তালিকা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে (https://molwa.gov.bd/) পাওয়া যাবে। যাচাই-বাছাই করে ধাপে ধাপে আরও তালিকা প্রকাশ করা হবে।

আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘যাঁরা ৭১ সালে রাজাকার, আলবদর, আলশামস বা স্বাধীনতাবিরোধী হিসেবে পাকিস্তান সরকার কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছিলেন এবং যেসব পুরোনো নথি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সংরক্ষিত ছিল, সেটুকু প্রকাশ করা হয়েছে। এ ছাড়া যেসব দালিলিক প্রমাণ পাওয়া যাবে, শুধু সেটুকু প্রকাশ করা হবে। কোনো তালিকা শতভাগ নিশ্চিত না হয়ে প্রকাশ করা হবে না। অন্যায়ভাবে কেউ তালিকাভুক্ত হবে না।’

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ‘জেলা প্রশাসকদের কাছ থেকে রেকর্ডরুমের পুরোনো নথি চাওয়া হয়েছে। তাঁদের কোনো তালিকা প্রস্তুত করতে বলা হয়নি। শুধু রেকর্ডরুমে থাকা নথি পাঠাতে বলা হয়েছে। তবে, এ ক্ষেত্রে আশানুরূপ সাড়া পাওয়া যায়নি।’ আগামী জানুয়ারি মাসের মধ্যে যেসব রেকর্ড পাওয়া যাবে, সেগুলো মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর আহ্বান জানান মন্ত্রী।

আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘৭১ সালে যত গেজেট হয়েছিল, সেগুলো উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। ১৯৭১ সালে একটি তথাকথিত উপনির্বাচন হয়েছিল। সে নির্বাচনে কারা বিজয়ী হয়েছেন, নির্বাচন কমিশনের কাছে সে তালিকা চাওয়া হয়েছে। কমিশন এখনো সেটি সরবরাহ করতে পারেনি।’

এক প্রশ্নের জবাবে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, জাতি যদি প্রত্যাশা করে এবং সরকার যদি মনে করে, তবে এ তালিকা গেজেট করা হবে।

এদিকে, আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত রাজাকারের তলিকায় থাকা কারো বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল (আইসিটি) খুন, ধর্ষণ ও লুটপাটের অপরাধের প্রমাণ পেলে নিশ্চয়ই তাকে বিচারের আওতায় আনা হবে। আজ বিকালে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের করিডোরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত ১০ হাজার ৭৮৯ জন রাজাকারের তালিকা প্রকাশিত হওয়া এবং এদের শাস্তির বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে আইন মন্ত্রী বলেন, প্রকাশিত এই তালিকা আমি পাইনি। তবে, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল যদি তাদের অপরাধ গুরুতর মনে করে অর্থাৎ হত্যা, ধর্ষণ বা লুটপাটের প্রমাণ পায় তবে নিশ্চয়ই তাদের আইনের মুখোমুখি হতে হবে।

তালিকা দেখতে ক্লিক razakar-list (1)করুন

পূর্বকোণ/টিএফ

The Post Viewed By: 244 People

সম্পর্কিত পোস্ট