চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২০

১ মে, ২০১৯ | ২:২৫ পূর্বাহ্ণ

ইমরান বিন ছবুর

৩১ মে ও ১৪ জুন

দুই ধাপে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা

আগামী ৩১ মে ও ১৪ জুন তারিখে চট্টগ্রাম জেলার প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। দুই ধাপে এই পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য আবেদন করেছে ৯৮ হাজার ৯৭০ জন পরীক্ষার্থী। ৩১ মে পরীক্ষায় চট্টগ্রামের ১২টি থানা ও উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করবে ৪৯ হাজার ৯৮২ জন পরীক্ষার্থী। ১৪ জুন ৮টি উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করবে ৪৯ হাজার ১৮৮ জন। ৩১ মে ও ১৪ জুন সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষার (সম্ভাব্য) তারিখ প্রকাশ করে চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসকে চিঠি দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। পরীক্ষার প্রস্তুতি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আগামী ২ মে বুয়েটে সভা অনুষ্ঠিত হবে বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নাসরিন সুলতানা। চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানায়, ৩১ মে চট্টগ্রামের ১২টি থানা ও উপজেলায় প্রথম ধাপের লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে ৪৯ হাজার ৭৮২ জন। এরমধ্যে, ডবলমুরিং থানায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২ হাজার ৭৫৪ জন। পাহাড়তলী থানায় ৩ হাজার ৫৯০ জন, বন্দর থানায় ২ হাজার ৩২৫ জন, পাঁচলাইশ থানায় ৩ হাজার ৭৬ জন, চান্দগাঁও থানায় ২ হাজার ৮৫৭ জন ও কোতোয়ালী থানায় ৩ হাজার ৫৭ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। এছাড়া, বাঁশখালী উপজেলায় পরীক্ষার্থী রয়েছে ৭ হাজার ২৬২ জন, রাউজান উপজেলায় ৬ হাজার ২৭৬ জন, সন্দ্বীপ উপজেলায় ৩ হাজার ৯২৯ জন, ফটিকছড়ি উপজেলায় ৫ হাজার ৬৯৪ জন, আনোয়ারা উপজেলায় ৪ হাজার ৭৯৯ জন এবং লোহাগাড়া উপজেলায় পরীক্ষার্থী রয়েেেছ ৪ হাজার ১৬৩ জন। এছাড়া, দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষায় ৮টি উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করবে ৪৯ হাজার ১৮৮ জন। এরমধ্যে পটিয়া

উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করবে ৯ হাজার ৯৯৪ জন, বোয়ালখালী উপজেলা থেকে ৪ হাজার ৮০২ জন, চন্দনাইশ থেকে ৪ হাজার ৭৪৮ জন, হাটহাজারী থেকে অংশগ্রহণ করবে ৬ হাজার ২৪৫ জন। এছাড়া, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করবে ৫ হাজার ৫ জন, মিরসরাই থেকে ৭ হাজার ৩১ জন, সীতাকু- থেকে ৪ হাজার ৯৭৮ জন এবং সাতকানিয়া উপজেলা থেকে ৬ হাজার ৩৮৫ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে।
এসম্পর্কে চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নাসরিন সুলতানা বলেন, ৩১ মে ও ১৪ জুন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষার (সম্ভাব্য) তারিখ প্রকাশ করে আমাদেরকে একটি চিঠি দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। সবকিছু ঠিক থাকলে নির্দিষ্ট সময়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষার প্রস্তুতির বিষয়ে আগামী ২ মে বুয়েটে একটি সভা অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা-২০১৮’ এর লিখিত পরীক্ষা শীঘ্রই অনুষ্ঠিত হবে জানিয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর আমাদের একটি চিঠি দিয়েছিল।
তিনি আরো বলেন, ওই চিঠিতে জেলা সদরের মধ্যে অবস্থিত কেন্দ্র সমূহের নাম জানতে চেয়েছে। এছাড়া, কেন্দ্রের কক্ষ সংখ্যা, কক্ষ নম্বর ও ধারণ ক্ষমতা এবং প্রতিটি কক্ষ নম্বরের বিপরীতে কলাম ও সারি সংখ্যা কত তাও জানাতে বলা হয়েছে। পরীক্ষার্থীর সংখ্যা, কেন্দ্রসমূহের ধারণক্ষমতা ও ব্যবস্থাপনা দক্ষতা অনুযায়ী পরীক্ষা একবারে নেয়া যাবে কিনা সে সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে, যা আমরা নির্দিষ্ট সময়ে পাঠিয়ে দিয়েছি।
উল্লেখ্য, ১০ এপ্রিল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের যুগ্ম সচিব খান মো. নুরুল আমিনের স্বাক্ষরিত একটি চিঠি চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে উল্লেখ ছিল, ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮’ এর লিখিত পরীক্ষা খুব শীঘ্রই অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া চিঠিতে জেলা সদরের মধ্যে অবস্থিত কেন্দ্র সমূহের নাম, কেন্দ্রের কক্ষ সংখ্যা, কক্ষ নম্বর ও ধারণ ক্ষমতা প্রতিবেদন আকারে পাঠাতে বলা হয়েছে। প্রতিটি কক্ষ নম্বরের বিপরীতে কলাম ও সারি সংখ্যা, পরীক্ষার্থীর সংখ্যা, কেন্দ্রসমূহের ধারণক্ষমতা ও ব্যবস্থাপনা দক্ষতা অনুযায়ী পরীক্ষা একবারে নেয়া যাবে কিনা সে সম্পর্কে একটি প্রতিবেদনও সরবরাহ করতে বলা হয়েছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 649 People

সম্পর্কিত পোস্ট