চট্টগ্রাম শনিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২০

৩০ এপ্রিল, ২০১৯ | ২:৫৭ পূর্বাহ্ণ

ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন দু’টি লাশ উদ্ধার, আটক ৩

রাজধানীতে জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের ১৪ ঘণ্টা অভিযান

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বসিলা মেট্রো হাউজিংয়ের এক জঙ্গি আস্তানার ভেতর থেকে ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন দু’টি মরদেহ উদ্ধার করা করেছে র‌্যাব। এলিট ফোর্স র‌্যাব-২ এর অধিনায়ক (সিও) লেফটেন্ট্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ গতকাল জানান, দুই জঙ্গির মরদেহ নিয়ে যাওয়ার মধ্য দিয়ে ১৪ ঘণ্টার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হলো। এদিকে, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই বাসার কেয়ারটেকার সোহাগ, তার স্ত্রী মৌসুমী ও বাসার কাছের একটি মসজিদের ইমাম ইউসুফকে আটক করে র‌্যাব। তাদেরকে জিঞ্জাসাবাদ করা হচ্ছে। র‌্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট আস্তানার অবিস্ফোরিত আইইডি (ইমপ্রোভাইজড এক্সপ্লোাসিভ ডিভাইস) নিষ্ক্রীয় করেছে। সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিট ঘটনাস্থল থেকে বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করে।-বাসস
র‌্যাব-২ এর পুলিশ সুপার (এসপি) মহিউদ্দিন ফারুকী বলেন, মরদেহ দু’টি ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। আপাতত জঙ্গি আস্তানার ওই বাড়িটি ঘিরে রাখা হয়েছে।
র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে এক প্রেসব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের জানান, বসিলায় ‘জঙ্গি আস্তানা’য় বিস্ফোরণে সেখানে দুইজনের মরদেহ ছিন্নভিন্ন হয়ে পড়ে আছে। র‌্যাবের আইনও গণমাধ্যম শাখার মূখপাত্র কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান সাংবাদিকদের জানান, আস্তানার ভেতরে কেউ জীবিত নেই। অবিস্ফোরিত অবস্থায় ইমপ্রোভাইজড এক্সপ্লোাসিভ ডিভাইস (আইইডি) গুলো ওই বাড়ির ভেতরে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে। সেজন্য বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে কাজ করছে। অবিস্ফোরিত আইইডিগুলো নিষ্কিয় করা হয়েছে।
র‌্যাব-২ সুত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভোর সাড়ে ৩টার দিকে ওই বাড়িটি ঘিরে ফেলে র‌্যাব সদস্যরা। এরপর ওই বাড়িটিতে র‌্যাব অভিযান চালায়। শুরুতেই ওই বাসার একটি কক্ষ থেকে বিস্ফোরণ ঘটায় জঙ্গিরা। এরপর ভেতর থেকে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়লে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। ওই বাসার কেয়ারটেকার সোহাগ জানান, সন্দেহভাজন দুই যুবক দেড় মাস আগে বাসাটি ভাড়া নেয়। তারা বাসা ভাড়া নেওয়ার সময় কোনো নাম-ঠিকানা জমা দেয়নি।
র‌্যাবের ডিজি বলেন, সুনির্দিষ্ট গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালায়। প্রথমে র‌্যাব সদস্যরা তাদের (জঙ্গি) দরজায় নক করলেও খোলেনি। এরপর বাসার ভেতর থেকে র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়া হয়। র‌্যাবও আত্মরক্ষার্থে প্রায় ১৫০ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। এর মধ্যেই ভেতর থেকে ব্যাপক বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।
এই জঙ্গিরা কোনো সংগঠনের কি-না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, তারা কোন সংগঠনের প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত নই। তাদের পরিচয়ও এখনো জানা যায়নি, এ বিষয়ে পরে জানানো হবে। জঙ্গিবিরোধী অভিযানটি র‌্যাবের ধারাবাহিক কার্যক্রমের অংশ উল্লেখ করে বাহিনীর প্রধান বলেন, দেশে জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণ না হওয়া পর্যন্ত এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।
যারা জঙ্গিবাদের দিকে ঝুঁকে পড়েছে তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়ে র‌্যাব ডিজি বলেন, কেউ জঙ্গিবাদের আহ্বান জানালে বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গে আমাদের জানাবেন। বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ও স্পেশাল ফোর্স ভেতরে যাওয়ার খানিকক্ষণ বাদে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান জানিয়েছিলেন, অবিস্ফোরিত অবস্থায় ইমপ্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি) ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে। ২টি বিদেশি পিস্তল ও ৪টি অবিস্ফোরিত আইইডি (ইমপ্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস) উদ্ধার করা হয়েছে।
মোহাম্মদপুর বসিলায় সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের অভিযানের মধ্যে বিস্ফোরণে নিহত দুই যুবক ভ্যানচালক পরিচয়ে টিনশেড ওই বাসা ভাড়া নিয়েছিলেন। বাড়ির মালিক ওয়াহাব র‌্যাবকে বলেছেন, ‘সুজন ও সুমন’ নাম ব্যবহার করে মাস দেড়েক আগে তারা ওই বাসা ভাড়া নেয়। বাসায় ওঠে এপ্রিলের ১ তারিখ। তবে তারা নিয়মিত ওই বাসায় থাকতেন না। র‌্যাব কর্মকর্তারা বলছেন, নিহত দুই যুবকের নাম ও তাদের পরিচয় নিশ্চিত করতে কিছুটা সময় লাগবে তাদের।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 374 People

সম্পর্কিত পোস্ট