চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

৩০ এপ্রিল, ২০১৯ | ২:১৪ পূর্বাহ্ণ

গোলটেবিল বৈঠকে বিশেষজ্ঞরা

দুর্যোগ মোকাবেলায় কমিউনিটি রেডিও-কে আরো সক্রিয় হতে হবে

কমিউনিটি রেডিওর দুর্যোগ বিষয়ক প্রচারণা সফল করতে জনসম্পৃক্ততা বাড়ানো, নিয়মিত নজরদারি ও মূল্যায়ন, বছরজুড়ে সঠিক তথ্য প্রচার ও স্থানীয় ভাষায় সংবাদ সম্প্রচার প্রয়োজন। উপকূলীয় প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে দুর্যোগ মোকাবেলায় তথ্যসরবরাহ সহ নানাবিধ সেবা দিতে গড়ে ওঠা কমিউনিটি রেডিও’কে আরও বেশি সহায়ক ভূমিকা পালন করতে হবে।
বাংলাদেশে দুর্যোগ প্রচারণায় কমিউনিটি রেডিও’র সক্ষমতা মূল্যায়ন বিষয়ক এক গোল টেবিল বৈঠকে বিশেষজ্ঞর্ াএ মতামত প্রদান করেন।
ফোরাম ফর ডেভেলপমেন্ট এন্ড জার্নালিজম স্টাডিজের উদ্যোগে গতকাল সোমবার সকালে পোর্টসিটি ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সম্মেলন কক্ষে এ গোল টেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। জাপানের হোসো বুঙ্কা ফাউন্ডেশনের সহায়তায় পরিচালিত গবেষণার অংশ হিসেবে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সহিদ উল্যাহ। বৈঠক সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন প্রথম আলোর চট্টগ্রামের যুগ্ম সম্পাদক ওমর কায়সার।
মূল প্রবন্ধে বাংলাদেশের কমিউনিটি রেডিওর সাফল্য ও দুর্বলতা তুলে ধরে এর সক্ষমতা আরও বাড়াতে একটি সহায়িকা (ম্যানুয়াল) তৈরির জন্য উপস্থিত বিশেষজ্ঞদের মতামত চাওয়া হয়।
বিশেষজ্ঞরা ঘূর্ণিঝড় পূর্ব, ঘূর্ণিঝড় চলাকালীন ও ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী করণীয় বিষয়ে জনগনকে সচেতন করে তুলতে সহায়িকায় তিন স্তরে আলাদাভাবে তথ্য সরবরাহের পরামর্শ দেন।এছাড়া লিঙ্গ ও বয়সভেদে শ্রোতাদের জন্য যুৎসই অনুষ্ঠান তৈরির কথাও তারা বলেন।
বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে সিনিয়র সাংবাদিক সিভয়েস২৪.কম’র সম্পাদক এম নাসিরুল হক, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল বিভাগের অধ্যাপক ড. অলক পাল ও অধ্যাপক ড. ইদ্রিস আলম, বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মহাপরিচালক নিতাই কুমার দাস, আবহাওয়া অধিদপ্তরের উপপরিচালক ড. শহিদুল ইসলাম, বাংলাদেশ বেতার চট্টগ্রাম কেন্দ্রের আঞ্চলিক নিয়ন্ত্রক (বার্তা) গোপাল চন্দ্র দেব ও অনুষ্ঠান প্রযোজক তাবাস্সুম হক, রেডিও নাফ’র অনুষ্ঠান প্রযোজক হারুনুর রশিদ, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা, চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান সমির কান্তি বড়–য়া, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রওশন আক্তার , পোর্ট সিটি ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি-র সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের প্রধান দিলরুবা আক্তার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠকে বক্তারা গান, কবিতা, নাটিকা, কুইজ অনুষ্ঠান, স্লোগানসহ বিনোদনের নানা মাধ্যমে দুর্যোগ সংক্রান্ত তথ্য যুক্ত করে তা প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর কাছে পৌঁছে দেয়ার বিকল্প নেই বলে মতামত দেন। এছাড়া ঘূর্ণিঝড় বিষয়ক সতর্ক সংকেত সাধারণ জনগনের বোধগম্য ভাষায় প্রচারের দাবিও জানান তারা।-বিজ্ঞপ্তি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 489 People

সম্পর্কিত পোস্ট