চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০২১

সন্দ্বীপ চ্যানেলে সমুদ্র বন্দর স্থাপনে নৌ প্রতিমন্ত্রীর সহযোগিতা চাইলেন কাদের

২৮ নভেম্বর, ২০২০ | ৫:০৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সন্দ্বীপ চ্যানেলে সমুদ্র বন্দর স্থাপনে নৌ প্রতিমন্ত্রীর সহযোগিতা চাইলেন কাদের

সমুদ্রবন্দর স্থাপনের জন্য ফেনীর সোনাগাজী উপজেলা উপকূলবর্তী সন্দ্বীপ চ্যানেলের আওতাভুক্ত এলাকায় আধা-সরকারি পত্র (ডিও লেটার) দিয়েছেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। চিঠিতে মন্ত্রী জনস্বার্থে বঙ্গোপসাগর থেকে সন্দ্বীপ চ্যানেল দিয়ে কোম্পানীগঞ্জ-সোনাগাজী বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চলের কাছাকাছি সমুদ্রবন্দর নির্মাণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রীর সহযোগিতা চান।

নৌ-পরিবহন সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, নৌ-প্রতিমন্ত্রী বরাবর সেতুমন্ত্রী একটা ডিও লেটার দিয়েছেন। এটার বিস্তারিত বলতে পারছি না। তবে ওই তারা মনে করছেন অঞ্চলে সমুদ্রবন্দর হওয়া উচিত। চিঠিতে সে অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে। বিষয়টি প্রসেস করার পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া শুরু হবে।

বিআইডব্লিউটিএ’র নদী জরিপের তথ্যনুযায়ী, বঙ্গোপসাগর থেকে সন্দ্বীপ চ্যানেল দিয়ে কোম্পানীগঞ্জ-সোনাগাজীর বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চলের কাছে নদী দেড় হাজার মিটার থেকে ২ হাজার ৩০০ মিটার প্রস্থ, এখানে গভীরতা ৭-৮-১০-১২ মিটার। কোথাও কোথাও শীতকালে ১৪ মিটার পানি থাকে। এখানে নদী চওড়া হওয়ায় ৫০০-৬০০ মিটার লম্বা দুটি জাহাজ পাশাপাশি অনায়াসেই চলাচল করতে পারবে ও প্রতি বছর নদী ড্রেজিংও করতে হবে না।

বর্তমানে দেশে তিনটি সমুদ্রবন্দর রয়েছে। এর মধ্যে বড় দুটি সমুদ্রবন্দর চট্টগ্রাম ও মোংলা। সর্বশেষ পটুয়াখালীতে পায়রা বন্দর চালু হয়েছে। এছাড়া কক্সবাজারের মাতারবাড়ীতে গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণের কাজ চলমান রয়েছে। আরেকটি সমুদ্রবন্দর সোনাদিয়ায় নির্মাণের পরিকল্পনা থাকলেও তা শেষ পর্যন্ত বাতিল হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ফেনী ও লক্ষ্মীপুরসহ বৃহত্তর নোয়াখালী অঞ্চলের ব্যবসায়ীরা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে শিল্প-কারখানা নির্মাণ করলেও ওই অঞ্চলে এখনও তেমন শিল্পায়ন হয়নি। তবে বর্তমানে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দু’পাশে নতুন করে শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। এরই মধ্যে সরকার নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছে। এছাড়া জনপ্রতিনিধিরা জেলার সুবর্ণচর উপজেলায় আরেকটি অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দাবি জানিয়েছেন।

তারা বলেছেন, বৃহত্তর নোয়াখালীর ফেনী লক্ষ্মীপুর ও নোয়াখালী নিয়ে সরকারের বৃহৎ পরিকল্পনা রয়েছে। এখানে নতুন করে শিল্প-কারখানা স্থাপন করা হলে বিদেশি বিনিয়োগ আসবে। ব্রিটিশ আমলেও এ অঞ্চলে বামনী সমুদ্রবন্দর চালু ছিল। কিন্তু কালের বিবর্তনে তা হারিয়ে গেছে।

 

 

 

পূর্বকোণ/আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 119 People

মন্তব্য দিন :

সম্পর্কিত পোস্ট