চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২০

১ নভেম্বর, ২০২০ | ১০:১৬ অপরাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

দেশে ১০ বছরে খুন হয়েছে ২’শ মা-বাবা

সারাদেশে বেড়েছে মাদকের ভয়াবহতা। দু-একটি বিশেষ ক্ষেত্র ছাড়া, দেশের বেশিরভাগ অপরাধের গোড়া মাদকের ঘরে। বর্তমানে পুরুষদের তাল মিয়ে বাড়ছে শিশু ও নারীদের মধ্যে মাদকাসক্তের সংখ্যা। বিশেষ করে ছেলেদের মতো মেয়েরাও অবলীলায় গ্রহণ করছে ইয়াবা। দেশে বর্তমানে প্রায় ৭০ থেকে ৭৫ লাখ মাদকাসক্ত রয়েছে। মাদকের পেছনে প্রতিবছর নষ্ট হচ্ছে প্রায় ৬০ হাজার কোটি টাকা। বিগত ১০ বছরে মাদকাসক্তির কারণে প্রাণ হারিয়েছে ২’শ জন মা-বাবা বলে শিশু অধিকার বিষয়ক সংসদীয় ককাস এবং সমাজকল্যাণ ও উন্নয়ন সংস্থা (স্কাস) এর এক প্রতিবেদনে জানান হয়েছে।

জানা যায়, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতা, গডফাদার, বড় ভাইয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় নামে বেনামে গ্যাং তৈরির পেছনেও রয়েছে মাদক আগ্রসন। মাদকের কারণে উচ্ছনে যাচ্ছে বহু মেধাবী শিক্ষার্থী। ভাঙছে সমাজ, সংসার ও পরিবার। মাদকের টাকা জোগাড় করতে মা কিংবা বাবার গলায় ছুরি ধরছে সন্তান। খোদ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের হিসাবে দেশে মাদকাসক্তের সংখ্যা প্রায় ৭০ লাখ। এর তিনভাগের দুই ভাগই তরুণ। একসময় ফেনিসিডিল, হিরোইনের মতো মাদক বেশি থাকলেও, এখন তার জায়গা দখল করেছে ইয়াবা। কারণ এটি সহজেই বহন করা যায়। রবিবার (১ নভেম্বর) সংসদ ভবনের মিডিয়া সেন্টারে অনুষ্ঠিত ‘মাদক নিয়ন্ত্রণে ডোপ টেস্ট- এই মুহূর্তে করণীয়’ শীর্ষক মিট দ্য প্রেসে এ তথ্য জানানো হয়।

শিশু অধিকার বিষয়ক সংসদীয় কমিটি এবং সমাজকল্যাণ ও উন্নয়ন সংস্থা (স্কাস) এটির আয়োজন করে। একাত্তর টিভির বার্তা সম্পাদক পলাশ আহসান ও পার্লামেন্টনিউজবিডি.কমের সম্পাদক সাকিলা পারভীন মূল প্রবন্ধটি পাঠ করেন। এটি সঞ্চালনা করেন সিনিয়র সাংবাদিক নিখিল ভদ্র। প্রতিবেদনে জানান হয়েছে, দেশে ২৪ ধরনের মাদক ব্যবহৃত বা সেবন করা হয়। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দেশে এখন পর্যন্ত ২৪ ধরনের মাদক উদ্ধার হয়েছে। দুই প্রতিবেশী দেশের সীমান্ত এলাকা থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করে এসব। মাদকের প্রবেশপথ হিসেবে বাংলাদেশের সীমান্ত সংলগ্ন ৩২টি জেলাকে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনা করে সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর (ডিএনসি)।

পূর্বকোণ / আরআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 102 People

সম্পর্কিত পোস্ট