চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২১

সর্বশেষ:

১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ৬:১৪ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

কোভিড হাসপাতাল বন্ধের সিদ্ধান্ত জনগণকে ঝুঁকিতে ফেলবে : জিএম কাদের

কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলো বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে—এমন তথ্য তুলে ধরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদ উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের বলেছেন, করোনার প্রভাব এখনও দেশে বিদ্যমান। কবে পরিত্রাণ পাওয়া যাবে এখনও সেটা নিশ্চিত নয়। করোনাভাইরাস চিকিৎসার হাসপাতাল বন্ধ করলে জনগণকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়া হবে।’ তিনি সরকারকে এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার দাবী করেন। বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) সংসদে অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

দেশে করোনা আক্রান্তের হিসাব তুলে ধরে জিএম কাদের বলেন, ‘করোনা পরীক্ষার সংখ্যা বৃদ্ধি পেলে এ রোগে আক্রান্তের সংখ্যা এমনকি মৃতের সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে বলে বিশেষজ্ঞ মহল মনে করছেন। এক কথায় করোনা রোগের প্রাদুর্ভাব কমেছে বা কমতে শুরু করেছে এমন কোনও লক্ষণ বাস্তবে লক্ষ করছি না। এই অবস্থায় সাধারণ মানুষের চিকিৎসার একমাত্র ভরসা সরকারি হাসপাতাল। এরই মাঝে হঠাৎ করে ঘোষণা দিয়ে কিছু সরকারি হাসপাতাল-যেগুলো কোভিড রোগী চিকিৎসা করতো, সেগুলো ননকোভিড চিকিৎসা করার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছে। এতে করে বেসরকারি হাসপাতলে ব্যয়বহুল চিকিৎসা নিতে রোগীরা বাধ্য হচ্ছে। চিকিৎসা ব্যবস্থার অপ্রতুলতার কারণে সেখানেও অনেকে চিকিৎসা পাচ্ছে না। সিটের জন্য অনেকে এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতালে ছুটে বেড়াচ্ছেন।’

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, ‘বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু ছাড়া গত্যান্তর থাকছে না। এটাই বাস্তবতা। কোভিড হাসপাতাল বন্ধ করে, ননকোভিডে রূপান্তর করার এই সিদ্ধান্ত রোগী, বিশেষ করে সাধারণ মানুষকে ঝুঁকির মুখে ফেলবে। আমরা চাই, সরকারি সব হাসপাতালে করোনা রোগীর চিকিৎসার ব্যবস্থা নেওয়া হোক। যেখানে নেই সেখানে নতুনভাবে সৃষ্টি করা হোক। জানি না করোনা কতদিন থাকবে।’

স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতি সরকারের অর্জন ম্লান করে দিচ্ছে উল্লেখ করে জিএম কাদের বলেন, ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনিয়ম, দুর্নীতির কথা প্রতিদিন খবরে আসছে, আলোচিত হচ্ছে। কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে কিনা জনগণ জানছে না। দুর্নীতির জন্য সরকারের অর্জন ম্লান হয়ে যাচ্ছে। আমরা বিশ্বাস করি, প্রধানমন্ত্রী ব্যবস্থা নেবেন।’

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 485 People

সম্পর্কিত পোস্ট