চট্টগ্রাম বুধবার, ০২ ডিসেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

সীতাকুণ্ডে সড়ক দুর্ঘটনায় নিরাপত্তাকর্মী নিহত

৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ৭:৪৮ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

আগস্টেই ৩০২টি সড়ক দুর্ঘটনায় ঝরেছে ৩৭৯ প্রাণ

দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল। গত আগস্ট মাসেও দেশে ৩০২টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৩৭৯ জন নিহত ও ৩৬৮ জন  আহত হয়েছেন । ৭টি জাতীয় দৈনিক, ৫টি অনলাইন নিউজ পোর্টাল এবং ইলেক্ট্রনিক গণমাধ্যমের তথ্যের ভিত্তিতে পরিসংখ্যান-ভিত্তিক এ প্রতিবেদন তৈরি করেছে রোড সেফটি ফাউন্ডেশন।

দুর্ঘটনায় ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সী কর্মক্ষম মানুষ নিহত হয়েছেন ২৭৩ জন, অর্থাৎ ৭২%। আঞ্চলিক ও গ্রামীণ সড়কের তুলনায় জাতীয় মহাসড়কে দুর্ঘটনার হার ক্রমেই বাড়ছে।

নিহতের মধ্যে নারী ৬৬, শিশু ৩২। গড় হিসাবে প্রতিদিন সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা ১০টি। এ ছাড়া প্রতিদিন সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন গড়ে ৩৮ জন। এককভাবে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় বেশি প্রাণহানি ঘটেছে। ১২১ টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ১২৯ জন, যা মোট নিহতের ৩৪.০৩ শতাংশ।মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার হার ৪০.০৬ শতাংশ। দুর্ঘটনায় ৮১ জন পথচারী নিহত হয়েছেন, যা মোট নিহতের ২১.৩৭ শতাংশ। যানবাহনের চালক ও সহকারী নিহত হয়েছেন ৪৭ জন, অর্থাৎ ১২.৪০ শতাংশ। এই সময়ে ১৩ টি নৌ-দুর্ঘটনায় ৪৭ জন নিহত, ৩২ জন আহত ও ৬ জন নিখোঁজ রয়েছেন। ৬টি পৃথক রেল দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ৬ জন।

দুর্ঘটনায় বাস যাত্রী ১৬, ট্রাক যাত্রী ৮, পিকআপ যাত্রী ১৫, কাভার্ডভ্যান যাত্রী ৩, মাইক্রোবাস যাত্রী ১৩, প্রাইভেটকার যাত্রী ১৭, ট্রলি যাত্রী ৩, লরি যাত্রী ১, ট্রাক্টর যাত্রী ২, জীপ যাত্রী ১, সিএনজি যাত্রী ১০, ইজিবাইক-অটোরিকশা যাত্রী ৪৬, নসিমন-ভটভটি-আলমসাধু-মাহিন্দ্র যাত্রী ২১, রিকশা যাত্রী ৬, লেগুনা যাত্রী ৩ এবং বাই-সাইকেল আরোহী ৪ জন নিহত হয়েছেন।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায়, নিহতদের মধ্যে শিক্ষক ১১ জন, চিত্রশিল্পী ১ জন, পর্বতারোহী ১ জন, পুলিশ সদস্য ১ জন, গ্রাম পুলিশ ১ জন, বিমান বাহিনীর কর্মচারী ১ জন, পল্লী বিদ্যুতে চাকরিজীবি ১ জন, স্কুল প্রহরী ১ জন, এনজিও কর্মকর্তা-কর্মচারী ১৩ জন, ঔষধ ও অন্যান্য পণ্যসামগ্রী বিক্রয় প্রতিনিধি ৯ জন, রাজমিস্ত্রী-কাঠমিস্ত্রী ২ জন, মিল শ্রমিক ২ জন, পোশাক শ্রমিক ৮ জন, মাছ-সবজি ও গরু ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন ধরনের স্থানীয় পর্যায়ের ব্যবসায়ী ২৯ জন, স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা ২ জন এবং শিক্ষার্থী ৫৮ জন (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ জন ও ঢাকা কলেজের ১ জনসহ)। ফরিদপুর সদর উপজেলার এসিল্যান্ড ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজ কর্মএলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে বর্তমানে ঢাকায় চিকিৎসাধীন।

রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ বলছে, দুর্ঘটনাগুলোর মধ্যে ১১৩ টি (৩৭.৪১%) জাতীয় মহাসড়কে, ৯৮ টি (৩২.৪৫%) আঞ্চলিক সড়কে, ৫৩ টি (১৭.৫৪%) গ্রামীণ সড়কে এবং ৩৮টি (১২.৫৮%)শহরের সড়কে সংঘটিত হয়েছে।

দুর্ঘটনাসমূহের ৭৬ টি (২৫.১৬%) মুখোমুখি সংঘর্ষ, ৮৭ টি (২৮.৮০%) নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে, ৮৩ টি (২৭.৪৮%) পথচারীকে চাপা/ধাক্কা দেয়া, ৪৪ টি (১৪.৫৬%) যানবাহনের পেছনে আঘাত করা এবং ১২ টি (৩.৯৭%) অন্যান্য কারণে ঘটেছে।

দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে দায়ী- ট্রাক-কাভার্ডভ্যান-পিকআপ ২০.৮৯ শতাংশ, ট্রাক্টর-ট্রলি-লরি ৩.৯১ শতাংশ, মাইক্রোবাস-প্রাইভেটকার-এ্যাম্বুলেন্স-জীপ ৬.৫২ শতাংশ, যাত্রীবাহী বাস ১৪.১৭ শতাংশ, মোটরসাইকেল ২৩.৬৯ শতাংশ, থ্রি-হুইলার (ইজিবাইক-সিএনজি-অটোরিকশা-লেগুনা) ১৬.৬০ শতাংশ, নসিমন-পাখিভ্যান-অটোভ্যান-ভটভটি-আলমসাধু-মাহিন্দ্র ১০.৬৩ শতাংশ, রিকশা, বাই-সাইকেল ২.৭৯ শতাংশ এবং অন্যান্য (ড্রাম ট্রাক, রোড রোলার, লাটা হাম্বার, কনস্ট্রাকশন মিকচার মেশিন) ০.৭৪ শতাংশ।

দুর্ঘটনায় আক্রান্ত যানবাহনের সংখ্যা ৫৩৬ টি। (ট্রাক ৭২, বাস ৭৬, কাভার্ডভ্যান ১৬, পিকআপ ২৪, লরি ৭, ট্রলি ৬, ট্রাক্টর ৮, মাইক্রোবাস ১২, প্রাইভেটকার ১৭, এ্যাম্বুলেন্স ৪, জীপ ২, ড্রাম ট্রাক ১, রোড রোলার ১, লাটা হাম্বার ১, কনস্ট্রাকশন মিকচার মেশিন ১, মোটরসাইকেল ১২৭, বাই-সাইকেল ৪, নসিমন-পাখিভ্যান-অটোভ্যান ২৫, ভটভটি-আলমসাধু-মাহিন্দ্র ৩২, ইজিবাইক-সিএনজি-অটোরিকশা-লেগুনা ৮৯ এবং রিকশা ১১টি।

সময় বিশ্লেষণে দেখা যায়, দুর্ঘটনাসমূহ ঘটেছে ভোরে ৪.৩০%, সকালে ৩০.১৩%, দুপুরে ২২.১৮%, বিকালে ১৯.৫৩%, সন্ধ্যায় ১০.৯২% এবং রাতে ১২.৯১%।

দুর্ঘটনার বিভাগওয়ারী পরিসংখ্যান বলছে, ঢাকা বিভাগে সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি ঘটেছে। ৭৩ টি দুর্ঘটনায় নিহত ৮৪ জন। সবচেয়ে কম বরিশাল বিভাগে। ২২ টি দুর্ঘটনায় নিহত ১৯ জন। একক জেলা হিসেবে ময়মনসিংহে সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি ঘটেছে। ১৬ টি দুর্ঘটনায় ৩৮ জন নিহত। সবচেয়ে কম মুন্সিগঞ্জে। ১ টি দুর্ঘটনা ঘটলেও কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। গত জুলাই মাসের তুলনায় আগস্ট মাসে সড়ক দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি উভয়ই বেড়েছে। জুলাই মাসে ২৯৩টি দুর্ঘটনায় ৩৫৬ জন নিহত হয়েছিলেন। এই হিসাবে আগস্ট মাসে দুর্ঘটনা ৩.০৭% এবং প্রাণহানি ৬.৪৬% বেড়েছে।

পূর্বকোণ / আরআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 156 People

সম্পর্কিত পোস্ট