চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০১ অক্টোবর, ২০২০

সর্বশেষ:

ভারতের সঙ্গেও টিকা পরীক্ষার আলোচনায় যাচ্ছে বাংলাদেশ

১৮ আগস্ট, ২০২০ | ৮:১৪ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভারতের সঙ্গেও টিকা পরীক্ষার আলোচনায় যাচ্ছে বাংলাদেশ

চীনের আবিষ্কৃত করোনাভাইরাসের টিকার পরীক্ষা সংক্রান্ত অনুমোদন ঝুলে থাকার মধ্যে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের টিকা উৎপাদনের সঙ্গে ‍যুক্ত ভারতের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনায় যাচ্ছে বাংলাদেশ। ঢাকা সফররত ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলার সঙ্গে বুধবার দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের আলোচ্যসূচিতে ওই টিকার পরীক্ষার বিষয় থাকছে বলে আ মঙ্গলবার জানিয়েছে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন জানিয়েছেন।

বুধবার ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে টিকা পরীক্ষার বিষয়েও আলোচনা হবে বলে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন জানিয়েছেন। এখন ইন্ডিয়ান বিভিন্ন ভ্যাকসিন প্রডিউসার তারা এটার এই মুহূর্তে ব্যবসায়িক দিকটা দেখছেন। সুতরাং আমাদের একটা প্রচেষ্টা আছে যে, বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় যেগুলো ভ্যাকসিন ইতোমধ্যে তৈরি হয়েছে বা চালু হচ্ছে, সেগুলো পাওয়ার ব্যাপারে আলাপ-আলোচনা চলছে।”কোনো টিকার চূড়ান্ত অনুমোদনের আগে তৃতীয় ধাপের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে বিপুল সংখ্যক মানুষের শরীরে প্রয়োগ করে তার ফলাফল দেখতে হয়। পরীক্ষায় নিরাপদ ও কার্যকর প্রমাণিত হলেই সেই টিকা অনুমোদন পায়।

চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের করোনাভাইরাসের টিকা এখন তৃতীয় ধাপের পরীক্ষার পর্যায়ে রয়েছে।এর মধ্যে চীনের সিনোভ্যাক বায়োটেক লিমিটেড তাদের তৈরি করা টিকার তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা বাংলাদেশেও করার পরিকল্পনা করে। গত ১৮ জুলাই এই টিকা বাংলাদেশে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের অনুমোদনও দেয় বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিল, বিএমআরসি।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনবাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনভারতীয় পররাষ্ট্র সচিবের সফর নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও ঢাকায় ভারতীয় হাই কমিশনের মুখ না খোলার মধ্যে ‘আকস্মিক’ এই সফরের আলোচ্যসূচি নিয়ে বিভিন্ন ধরনের গুঞ্জন ছিল।
এ বিষয়ে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, “আকস্মিক না এটা। যেহেতু আমাদের গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেশী ভারত, সুতরাং ভারতের সঙ্গে পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ে, বিভিন্ন পর্যায়ে প্রচুর ইনটার‌্যাকশন হয়।এ বছর কোভিডের কারণে বরঞ্চ কমই হচ্ছে। উনি ইতোমধ্যে এসে পৌঁছেছেন এবং আমরা আশা করছি উনি সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে। কালকে আমার সঙ্গে দেখা হবে।”

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবাসনের বিষয়টিও আলোচনায় থাকছে জানিয়ে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, “রোহিঙ্গা ইস্যুটা, তারা বিভিন্ন সময় বলেছে যে, আমাদের সাথে সহযোগিতা করবে এবং মিয়ানমারের যে কর্তৃপক্ষ আছে তাদেরকেও তারা বিভিন্ন হেল্প করছে, যাতে রোহিঙ্গা পুনর্বাসন যথা শিগগিরই শুরু হতে পারে।এ ব্যাপারে তাদের দিক থেকে যদি কোনো আপডেট থাকে, আমরা জানতে পারব। এবং আমরা কোন পর্যায়ে আছি, তাদেরকে আপডেট দিব।

পূর্বকোণ / আরআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 98 People

সম্পর্কিত পোস্ট