চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০১ অক্টোবর, ২০২০

সর্বশেষ:

নতুন বিসিএস থেকেই নিয়োগ হবে ২ হাজার চিকিৎসক
নতুন বিসিএস থেকেই নিয়োগ হবে ২ হাজার চিকিৎসক

২৭ জুলাই, ২০২০ | ৭:৪১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নতুন বিসিএস থেকেই নিয়োগ হবে ২ হাজার চিকিৎসক

করোনা মোকাবিলায় আরও দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবে সম্পূর্ণ নতুন বিসিএসে এই নিয়োগ দিতে চায় সরকার। এজন্য বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে চাহিদাপত্র এসেছে। কমিশনের বিশেষ সভায় আজ সোমবার (২৭ জুলাই) বিশেষ সভায় পিএসসি’র নিয়োগবিধি ঠিক করে তা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হচ্ছে।

পিএসসির একাধিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করে বলে, আমরা চেয়েছিলাম যাতে ৩৮ ও ৩৯তম বিসিএসের নন–ক্যাডার তালিকা থেকে মেধার ভিত্তিতে দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগ পান। কেননা তাঁরা পরীক্ষিত। সবকিছুতে পাস করেছেন। পদ না থাকায় নিয়োগ দেয়া না গেলেও মন্ত্রণালয় তাঁদের নিয়োগ দিতে চায় না। নতুন বিসিএসের মাধ্যমে নিয়োগ দেয়ার চাহিদাপত্র এসেছে আমাদের কাছে। আজ নিয়োগবিধি ঠিক করা হয়েছে। এটি এখন জনপ্রশাসনে পাঠিয়ে দেয়া হবে।

এদিকে, ৩৮ ও ৩৯তম বিসিএসের প্রার্থীরা বলছেন, নতুন চিকিৎসকদের তাঁদের মধ্য থেকেই নিয়োগ দেয়া হোক। ২০১৮ সালের এপ্রিলে ৩৯তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয় যার ফল প্রকাশ করা হয় ২০১৯ সালের এপ্রিলে। ৩৯তম ব্যাচে উত্তীর্ণদের ভেতর থেকে ৪ হাজার ৭৯২ জন চিকিৎসককে নিয়োগের সুপারিশ করে পিএসসি। ওই বছরের নভেম্বর মাসে ৪ হাজার ৪৪৩ জনকে স্বাস্থ্য ক্যাডারে নিয়োগ দিয়ে আদেশ জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। একই বিসিএসে উত্তীর্ণ ৮ হাজার ৩৬০ জনকে নন-ক্যাডার পদে নিয়োগের জন্য রাখা হয়। এর মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হলে সেই ৮ হাজার ৩৬০ জনের মধ্য থেকেই গত মে মাসে ২ হাজার জনকে নিয়োগ দেয়া হয়। এই নন-ক্যাডারের তালিকায় অপেক্ষায় আছেন আরও ৬ হাজার ৩৬০ জন চিকিৎসক।

প্রার্থীরা বলেন, একটি বিসিএস পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি থেকে শুরু করে যাবতীয় প্রক্রিয়া শেষ করতে বছরের পর বছর লেগে যায়। টেকনিক্যাল ক্যাডারের বিশেষ বিসিএস বিবেচনায় নিয়েও সে সময় খুব একটা কম নয়। ৩৯তম বিশেষ বিসিএসে উত্তীর্ণদের মধ্য থেকেই মে মাসে দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেয় সরকার। আরও প্রায় সাড়ে ছয় হাজার চিকিৎসক কিন্তু ওই বিসিএসে উত্তীর্ণ হয়েও চাকরি পাননি। এই অবস্থায় নতুন বিসিএসে চিকিৎসক নিয়োগ যৌক্তিক নয়।

গত মাসে ৩৮তম বিসিএসের ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এই বিসিএসে উত্তীর্ণ হয়ে নন-ক্যাডার হিসেবে নিয়োগের অপেক্ষায় থাকা চিকিৎসকরাও নিয়োগ পাওয়ার দাবি জানান। তারা বলেন, জ্যেষ্ঠ বিবেচেনায় নতুন দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগে তাঁদের অগ্রাধিকার পাওয়া উচিত।

 

 

 

 

 

 

পূর্বকোণ/আরপি

 

 

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 152 People

সম্পর্কিত পোস্ট