চট্টগ্রাম রবিবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২০

২৭ এপ্রিল, ২০১৯ | ৩:৫৫ পূর্বাহ্ণ

মোহাম্মদ আলী

বিএনপির তৃণমূলে হতাশা

এর আগে ঐক্যফ্রন্টভুক্ত দল গণফোরামের সুলতান মোহাম্মদ মনসুর ও মুকাব্বির খান দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে শপথ নিয়েছিলেন। এ নিয়ে বিএনপিসহ ঐক্যফ্রন্টভুক্ত দলগুলোর মধ্যে চরম অসন্তোষ সৃষ্টি হয়। এ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে নতুন করে শপথ নিলেন বিএনপির জাহিদুর রহমান জাহিদ। বিএনপির এই সংসদ সদস্যের শপথ গ্রহণের ঘটনায় হতাশ হয়ে পড়েছে দলের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে শপথ নেওয়ায় তৃণমূল থেকে ওই সাংসদের বহিষ্কােেরর দাবি উঠেছে।
প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছে শপথ নেন ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে নির্বাচিত জাহিদুর রহমান জাহিদ। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঠাকুরগাঁও-৩ (পীরগঞ্জ-রানীশংকৈল) আসনে তিনি নির্বাচিত হন। এদিকে জাহিদুর রহমান জাহিদের শপথের পর বিএনপির বাকি পাঁচ সংসদ সদস্যকে নিয়েও দলের মধ্যে সন্দেহ তৈরি হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে আগামী দুই দিনের মধ্যে বিএনপির আরো দুই সংসদ সদস্য শপথ নিতে পারেন এমন কথাবার্তায় দলের মধ্যে এমন সন্দেহ তৈরি হয়েছে। বিএনপির অনেকেই মনে করছেন, শেষ পর্যন্ত তাঁরা শপথ নিতে পারেন। শপথ প্রশ্নে তাঁদের মধ্যে দ্বিধা-বিভক্তি রয়েছে বলে জানা গেছে।
চট্টগ্রামে বিএনপির তৃণমূলের কয়েক নেতাকর্মী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী বিএনপির সংসদ সদস্যদের শপথ না নেওয়ার দলীয় সিদ্ধান্ত রয়েছে। কিন্তু জাহিদুর রহমান জাহিদ এ সিদ্ধান্ত ভঙ্গ করে শপথ নেওয়ায় আমরা রীতিমত হতাশ। তাঁর এ শপথের মাধ্যমে বিএনপির ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে। হতাশ ও বিব্রত হয়েছে দলের নেতাকর্মীরা। এ অবস্থায় দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে আর কেউ নতুন করে শপথ নিচ্ছেন কিনা তা নিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে সন্দেহ সৃষ্টি হয়েছে।
তবে দলের তৃণমূল নেতাকর্মীদের বক্তব্যের দ্বিমত পোষণ করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম। দৈনিক পূর্বকোণকে তিনি বলেন, ‘সরকারের নীল নকশার অংশ হিসেবে ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে নির্বাচিত বিএনপির সংসদ সদস্য জাহিদুর রহমান জাহিদ শপথ গ্রহণ করেছেন। তাঁর বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিবে দল। এ ক্ষেত্রে দলের নেতাকর্মীরা হতাশ নন।’ এদিকে শপথ নেওয়া ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের সংসদ সদস্য জাহিদুর রহমানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করে শপথ নিয়ে গর্হিত কাজ করেছেন জাহিদুর রহমান। তাঁর বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গতকাল শুক্রবার রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপি থেকে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের ওপর শপথ নেয়ার বিষয়ে সরকারের চাপ আছে। তারপরও দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে শপথ শৃঙ্খলাভঙ্গ। যারাই এটি করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিএনপির প্রতীকে নির্বাচন করে জয়ী হয়েছেন জাহিদুর। বিএনপি ভোটারবিহীন নির্বাচনে গঠিত একাদশ সংসদে যোগ না দেয়ার বিষয়ে অনঢ় অবস্থানে। জাহিদুর দলীয় সিদ্ধান্ত না মেনে শপথ নিয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ফখরুল বলেন, বিএনপি আগেও বলেছে ৩০ ডিসেম্বর কোনো ভোট হয়নি। ভোট আগের রাতেই হয়ে গেছে। এই প্রহসনের নির্বাচন বিএনপি প্রত্যাখ্যান করেছে। সুতরাং বিএনপির নির্বাচিতদের শপথ নেয়ার প্রশ্নই উঠে না।
উল্লেখ্য, বিএনপি থেকে নির্বাচিত অন্য পাঁচ সংসদ সদস্যরা হলেন, বগুড়া-৬ আসনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে মো. আমিনুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে মো. হারুনুর রশীদ, বগুড়া-৪ আসনে মো. মোশারফ হোসেন এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে সংসদ সদস্য উকিল আবদুস সাত্তার। এর মধ্যে উকিল আবদুস সাত্তার বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এবং সাবেক প্রতিমন্ত্রী। হারুনুর রশীদ বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব। আমিনুল ইসলাম চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, মোশাররফ হোসেন বগুড়া জেলা বিএনপির সদস্য এবং জাহিদুর রহমান জাহিদ ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 337 People

সম্পর্কিত পোস্ট