চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৯ মে, ২০২০

হালদায় ডলফিন হত্যা বন্ধে ভার্চুয়াল কোর্টে প্রথম রিট

১২ মে, ২০২০ | ১০:১৯ পূর্বাহ্ণ

ঢাকা অফিস

হালদায় ডলফিন হত্যা বন্ধে ভার্চুয়াল কোর্টে প্রথম রিট

নতুন যুগে প্রবেশ করলো বাংলাদেশের বিচার বিভাগ। দেশের উচ্চ আদালত হাইকোর্টে শুরু হলো অনলাইনে বিচার কার্যক্রম। গতকাল সোমবার অনলাইনে আইনজীবীদের বিভিন্ন আবেদন করার মধ্য দিয়ে ভার্চুয়াল আদালত চালু হল। গতকাল বিকেল ৩টা পর্যন্ত দুই কোর্টে চারটি আবেদন জমা হয়েছে। এর মধ্যে বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেনের কোর্টে তিনটি জামিন আবেদন দাখিল হয়েছে এবং বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের কোর্টে একটি রিট আবেদন জমা পড়েছে। প্রথম দিনে অনলাইনের আবেদনের বিষয়ে বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেনের কোর্টের বেঞ্চ কর্মকর্তা খায়রুল আলম লিটন বলেন, বিকেল ৩টা পর্যন্ত তিনটি জামিনের আবেদন জমা হয়েছে। এর মধ্যে একটি করেছেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির, একটি আইনজীবী দেওয়ান মো. আবু ওবায়েদ হোসেন, আরেকটি করেছেন মো. শাহীন মিয়া নামের একজন আইনজীবী। দাখিলকৃত আবেদনের মধ্যে গতকাল সোমবার একটি ফৌজদারি মামলায় কুমিল্লার জেলা ও দায়রা জজ আতাবুল্লাহ ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে শুনানি নিয়ে আসামির জামিন মঞ্জুর করেছেন।
প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ফুলকোর্ট সভায় সুপ্রিম কোর্টসহ সারাদেশে ভার্চুয়াল আদালত চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরেরদিনই হাইকোর্টে কার্যক্রম শুরু হলো। গত রবিবার ফুলকোর্টসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ওইদিনই ভার্চুয়াল আদালত পরিচালনার জন্য আপিল বিভাগ, হাইকোর্ট বিভাগ এবং অধস্তন আদালত জন্য আলাদা আলাদা ‘প্র্যাকটিস নির্দেশনা’ এবং আইনজীবীদের জন্য ‘ভার্চুয়াল কোর্টরুম ম্যানুয়াল’ প্রকাশ করা হয়।
এই নির্দেশনা মেনেই গতকাল সকালে দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকার সম্পাদক আবুল আসাদের জামিনের আবেদন দাখিল করার অনুমতি চেয়ে বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিমের বেঞ্চে আবেদন করেছেন আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. শিশির মনির। তিনি বলেন, জামিনের আবেদন দাখিল করার জন্য আদালতের কাছে অনুমতি চাওয়া হয়েছে। অনলাইনে এই অনুমতি চাওয়া হয়েছে। আমরা আদালতের অনুমতির অপেক্ষায় আছি। আদালত অনুমতি দিলেই জামিনের আবেদন দাখিল করা হবে। এরপর আদালত শুনানির জন্য সময় নির্ধারণ করবেন।
চট্টগ্রামের হালদা নদীতে ডলফিন হত্যা বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে ভার্চুয়াল মাধ্যমে শুনানির জন্য একটি রিট আবেদন ই মেইলের মাধ্যমে জমা দেওয়া হয়। বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের হাইকোর্ট বেঞ্চে একমাত্র এ রিট আবেদন জমা দেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আব্দুল কাইয়ুম লিটন। তিনি জানান, এ বিষয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করে আবেদনটি জমা দিয়েছি। আবেদনে হালদা নদীতে ডলফিন হত্যা বন্ধে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ হবে না এবং ডলফিন হত্যা বন্ধে কেন প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হবে না এ মর্মে রুল জারির আর্জি জানানো হয়েছে। আবেদনে মৎস ও পশু সম্পদ সচিব, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক, ও চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিবাদি করা হয়েছে। আবেদনে এ বিষয়ে ১০ মে একটি ইংরেজি দৈনিকে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনের কিছু অংশ তুলে ধরেন। সেখানে বলা হয়েছে, “লকডাউন আর শাটডাউন পৃথিবীর নানা অংশের বন্যপ্রাণী ও নদী-সমুদ্রের স্তন্যপায়ী প্রাণীদের জন্য আশীর্বাদ হয়ে আসলেও মানুষের নিষ্ঠুরতা থেকে মুক্তি পাচ্ছে না গাঙ্গেয় এ ডলফিন। অবৈধ জালের শিকার হচ্ছে মা মাছও। গত শনিবারও হালদা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ইঞ্জিন বোটের আঘাতে রক্তাক্ত ১৩ কেজি ওজনের একটি মা মাছ। গাঙ্গেয় এ ডলফিন (গাঙ্গেটিকা প্লাটানিস্টা) দক্ষিণ এশিয়ার নদীগুলোতে একটি বিপন্ন প্রজাতি। প্রকৃতি সংরক্ষণের জোট ‘আইইউসিএন’ এ প্রজাতিকে মহাবিপন্ন হিসেবে লাল ক্যাটাগরিতে তালিকাভুক্ত করেছে ২০১২ সালে। ডলফিনের মৃত্যুর তালিকায় যুক্ত হয়েছে নতুন ধরনের নৃশংসতাও। গত শুক্রবার সকালে রাউজানের উরকিরচর ইউনিয়নে হালদা সংলগ্ন এলাকায় একটি ডলফিনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ডলফিনের চর্বি থেকে তৈরি তেল নারীদের রোগমুক্তি ঘটে এমন কুসংস্কারের বশে এ ডলফিনকে হত্যা করা হয়েছে বলে স্থানীয়দের অভিমত।
উল্লেখ্য, করোনা বাইরাসের সংক্রমণের প্রেক্ষাপটে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির সঙ্গে তালমিলিয়ে গত ২৬ মার্চ থেকে সারাদেশে আদালতে সাধারণ ছুটি ঘোষনা করা হয়। ক্রমেই সাধারণ ছুটির মেয়াদ বাড়ছে। আপাতত আগামী ১৬ মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটি রয়েছে।

The Post Viewed By: 105 People

সম্পর্কিত পোস্ট